• শনিবার, ২০ জুলাই ২০১৯, ৫ শ্রাবণ ১৪২৬  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন

পিএস নিয়োগ প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শে, এপিএস নিয়ে সিদ্ধান্ত রবিবার

  অধিকার ডেস্ক    ১২ জানুয়ারি ২০১৯, ১১:১০

শেখ হাসিনা
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। (ছবি : সংগৃহীত)

এবার প্রথমবারের মতো মন্ত্রিসভার সদস্যদের (মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী কিংবা উপমন্ত্রী) একান্ত সচিব (পিএস) নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শে। সুশাসন নিশ্চিত করতেই এমন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।

এপিএস নিয়োগেও একই প্রক্রিয়া অবলম্বনের কথা ছিল। তবে পিএস নিয়োগ নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার কারণে সেই সিদ্ধান্ত থেকে কিছুটা সরে এসেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের একজন যুগ্ম সচিব জানিয়েছেন, সরকারের ওপর মহলের নির্দেশেই এপিএস নিয়োগের প্রক্রিয়া সাময়িকভাবে স্থগিত রাখা হয়েছে আগামী রবিবার নাগাদ এ নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হতে পারে।

‘দ্য মিনিস্টার্স, মিনিস্টার্স অব স্টেইট অ্যান্ড ডেপুটি মিনিস্টার্স (রেমুনারেশন অ্যন্ড প্রিভিলেজেজ) অ্যাক্ট, ১৯৭৩’ অনুযায়ী মন্ত্রীসভার সদস্যদের একান্ত সচিব নিয়োগ দেওয়া হয়। সংশ্লিষ্ট আইনের ১৪ (১) ধারায় মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী কিংবা উপমন্ত্রীর পছন্দ অনুযায়ীই তাদের একান্ত সচিব নিয়োগ দেওয়ার বিধান রয়েছে। এতোদিন সেই ধারা মেনে মন্ত্রীরা পছন্দের ব্যক্তির নাম জানিয়ে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে আধাসরকারী পত্র (ডি) পাঠাতেন। মন্ত্রণালয় কেবল সেই পছন্দ অনুযায়ী পিএস নিয়োগের আদেশ জারি করতো।

তবে নানাদিক বিবেচনা করে এবার ব্যতিক্রমী সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এরইমধ্যে নিয়োগ চূড়ান্ত করে নতুন পিএসদের দায়িত্ব সম্পর্কে অবহিত করে তাদের সততা ও দক্ষতার সঙ্গে কাজ করার পরামর্শ দিয়েছে। তাদের দক্ষতা বৃদ্ধিতে ভবিষ্যতে কর্মশালা আয়োজন করা হবে বলেও জানা গেছে।

এ ব্যাপারে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের দাবি, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তেই মন্ত্রীসভার সদস্যদের পিএস নিয়োগ দিয়েছে। আমাকে যে পিএস দেওয়া হয়েছে, তাকে আমি যোগদান করতে বলেছি এবং তিনি ইতিমধ্যে যোগদানও করেছেন। তিনি কাজ করছেন। তবে তাকে দিয়ে আমার মতো করে কাজ না হলে আমি বিষয়টি পিএমকে জানাবো।’

এক যুগ্ম সচিব বলেছেন, ‘রাজনৈতিক সরকারের মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও উপমন্ত্রীদের পছন্দ অনুযায়ী এলাকার বা দলের পরিচিত ব্যক্তিকে এপিএস নিয়োগ না দিলে বিড়ম্বনা সৃষ্টির আশঙ্কা থাকে। সে কারণে এ নিয়ে স্পষ্ট কোনো সিদ্ধান্ত দিতে পারছিল না জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। বিষয়টি সরকারের উচ্চ পর্যায়ের আমলে নেওয়া হয়। এর পর সিদ্ধান্ত হয়, পছন্দের ব্যক্তিকে এপিএস নিয়োগ দিতে পারবেন মন্ত্রিসভার সদস্যরা। তারা জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে আধা-সরকারিপত্র (ডিও) দিলে মন্ত্রণালয় তাদের নিয়োগ দিয়ে আদেশ জারি করবে। ’

এইরমধ্যে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, নতুন সরকারের মন্ত্রিসভার সদস্যরা পছন্দের ব্যক্তিকেই সহকারী একান্ত সচিব (এপিএস) পদে নিয়োগ দিতে পারবেন । তবে কবে নাগাদ মন্ত্রিসভার সদস্যরা এ পদে লোক নিয়োগ দিতে পারবেন তা তিনি জানাতে পাননি। তবে ওই যুগ্ন সচিব আশা প্রকাশ করেন, ‘পর্যালোচনা শেষে আগামী ২/১ দিনের মধ্যেই সরকার এ বিষয়ে একটি সিদ্ধান্ত দেবে, তখন সেই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তারা পদক্ষেপ নেবেন। ’

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড