• বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ৫ বৈশাখ ১৪৩১  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

মসিক নির্বাচন

উচ্ছ্বাস শেষ এবার রায়ের অপেক্ষা

  বিশেষ প্রতিবেদক

০৮ মার্চ ২০২৪, ২১:২৯
উচ্ছ্বাস শেষ এবার রায়ের অপেক্ষা
৩৩টি ওয়ার্ডের ১২৮টি কেন্দ্রে ইভিএমে হচ্ছে ভোট
নির্বাচনে মেয়র পদে লড়াই করছেন পাঁচজন
সাধারণ কাউন্সিলর পদে নির্বাচন করছেন ১৫৯ প্রার্থী
সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ৬৯ জন
মসিকের মোট ভোটার ৩ লাখ ৩৬ হাজার ৪৯৬ জন
নির্বাচনে মোট ভোটারের ১২ শতাংশই নতুন
৪০ হাজার ভোটার এবারই প্রথম ভোট দিচ্ছেন

ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের (মসিক) নির্বাচনে প্রতীক বরাদ্দের পর থেকে মিছিল, মিটিং, গানে স্লোগানে ভোট প্রার্থনা, মোড়ে মোড়ে ক্যাম্পিং, বাসায় বাসায় গিয়ে লিফলেট বিতরণ, অলিগলিতে নেতা-কর্মী-সমর্থকদের অবিরাম ছুটে চলাÍ সব মিলে ভোটের কলরবে ময়মনসিংহ নগরীতে এখন উচ্ছ্বাস ও উৎসবের আমেজ।

আজ নির্বাচনে নগরীর ৩৩টি ওয়ার্ডের ১২৮টি ভোটকেন্দ্রে ইভিএমে ভোটগ্রহণ করা হবে। নির্বাচনে মেয়র পদে পাঁচজন, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১৫৯ জন এবং সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ৬৯ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। যদিও ভোটকে কেন্দ্র করে এ উচ্ছ্বাস গতকালই শেষ হয়ে গেছে। এখন শুধু ভোটারদের রায়ের অপেক্ষায় থাকবেন প্রার্থীরা। নির্বাচন কমিশনের ঘোষণা অনুযায়ী, গতকাল দিবাগত মধ্যরাত থেকে প্রার্থীদের প্রচার শেষ হয়।

ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনে ভোটার রয়েছেন ৩ লাখ ৩৬ হাজার ৪৯৬ জন। এদের মধ্যে ৪০ হাজার ভোটার এবারই প্রথম সিটি নির্বাচনে ভোট দেবেন। নতুনদের সংখ্যা মোট ভোটারের ১২ শতাংশ।

এবার ময়মনসিংহ সিটি নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টি বাদে অন্যকোনো দলের নেতা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আসেননি। ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ দলীয় প্রতীক না দিয়ে নির্বাচন উš§ুক্ত ঘোষণা করায় দলটি থেকে একাধিক নেতা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

সিটি করপোরেশনের প্রথম মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. ইকরামুল হক টিটু দেয়াল ঘড়ি প্রতীক, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এহতেসামুল আলম ঘোড়া প্রতীক, শহর আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সাদেকুল হক খান মিল্কী টজু হাতি প্রতীক ও কৃষক লীগ নেতা কৃষিবিদ ড. রেজাউল হক হরিণ প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী হিসেবে শহীদুল ইসলাম স্বপন মন্ডল লড়ছেন দলীয় প্রতীক লাঙ্গল নিয়ে।

যদিও ভোটের মাঠের প্রচারে ও আলোচনা-সমালোচনায় এখন পর্যন্ত আওয়ামী লীগের নেতাদের মধ্যে মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে বলে মনে করছেন নগরীর সাধারণ ভোটাররা। অনেকেই মনে করছেন, শেষ পর্যন্ত বর্তমান মেয়র ইকরামুল হক টিটুর দেয়াল ঘড়ি ও সাদেকুল হক মিল্কি টজুর হাতি প্রতীকের মধ্যে মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতা হতে পারে। সচেতন মহল মনে করছেন, ভোটের মাঠে অনেকটাই সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছেন সাবেক মেয়র ইকরামুল হক টিটু।

কিন্তু বিএনপিসহ অন্যান্য দলগুলো নির্বাচনে না আসায় ভোটের মাঠে এন্টি-আওয়ামী লীগ বলয়ের ভোট এবং নীরবে থাকা সাধারণ ভোট গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

ভোটারদের মন জয় করতে প্রার্থীরা নানা প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন। সংবাদ সম্মেলন করে তিন মেয়র প্রার্থী তাদের নিজ নিজ নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছেন। পাঁচজন মেয়র প্রার্থীর মধ্যে আওয়ামী লীগের তিন নেতা ময়মনসিংহ প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে বহুদফা প্রতিশ্রুতি সংবলিত নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছেন। এর মধ্যে হাতি প্রতীকের মেয়র প্রার্থী সাদেকুল হক খান মিল্কী টজু গত ২৬ ফেব্রুয়ারি ১৫ দফা প্রতিশ্রুতি দিয়ে ইশতেহার ঘোষণা করেন।

এরপর গত ২ মার্চ ঘোড়া প্রতীকের মেয়র প্রার্থী এহতেশামুল আলম ২০ দফা প্রতিশ্রুতি নিয়ে নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেন। এর একদিন পর ৩ মার্চ ময়মনসিংহ প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলন ডেকে সদ্য সাবেক মেয়র ও টেবিল ঘড়ি প্রতীকের মেয়র প্রার্থী ইকরামুল হক টিটু ২৩ দফা প্রতিশ্রুতি দিয়ে ইশতেহার ঘোষণা করেন।

মেয়র প্রার্থীদের পাশাপাশি কাউন্সিলররা প্রার্থী থেমে নেই। তারাও ভোটারদের নানা প্রতিশ্রুতি দিয়ে যাচ্ছেন। অনেক ক্ষেত্রে দেখা গেছে, যে সমস্ত কাজ কাউন্সিলরদের পক্ষে বাস্তবায়ন সম্ভব নয়; নির্বাচিত হলে সেগুলোও বাস্তবায়ন করে দেবেন বলে প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন সাধারণ ও নারী কাউন্সিলর প্রার্থীরা।

নির্বাচনকে নগরীর বিভিন্ন ওয়ার্ডে প্রার্থী ও কর্মী-সমর্থকদের পক্ষ-প্রতিপক্ষকে হুমকি-ধমকির কারণে কোথাও কোথাও সাধারণ ভোটারদের মাঝে কিছুটা উৎকণ্ঠা দেখা দিয়েছে। এসব ঘটনায় সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ ভোট নিয়েও তৈরি হয়েছে নানা শঙ্কা। তবে নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ সুষ্ঠু এবং শান্তিপূর্ণ ভোট অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে সব ধরণের প্রস্তুতি থাকার কথা জানিয়েছেন। শেষ পর্যন্ত নির্বাচন শান্তিপূর্ণ হবে বলেই প্রত্যাশা করছেন নগরবাসী।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড