• বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১১ বৈশাখ ১৪৩১  |   ৩৬ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ঢাকার বায়ুর মানে আরও উন্নতি

  অধিকার ডেস্ক

০১ এপ্রিল ২০২৩, ১১:২৪
ঢাকার বায়ুর মানে আরও উন্নতি
শান্ত রাজধানীর প্রকৃতি (ছবি : সংগৃহীত)

রাজধানী ঢাকার বায়ুর মানের আরও কিছুটা উন্নতি হয়েছে। আজ শনিবার (১ এপ্রিল) সকাল ১০টা ১৩ মিনিটে আবহাওয়ার মান পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্সের (আইকিউএয়ার) সূচকে ঢাকার স্কোর হচ্ছে ১০৬। এই স্কোরের অর্থ দাঁড়ায় ঢাকার দূষণমাত্রা ‘সংবেদনশীল গোষ্ঠীর জন্য অস্বাস্থ্যকর’।

নির্ধারিত এই সময়ের মধ্যে বায়ুদূষণের শীর্ষে রয়েছে- থাইল্যান্ডের চিয়াং মাই। শহরটির দূষণের সূচকে স্কোর হচ্ছে ৩৩৬ অর্থাৎ বিপজ্জনক। এরপর দূষণের দিক থেকে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে- দক্ষিণ কোরিয়ার ইনচিওন এবং স্কোর হচ্ছে ১৬০ অর্থাৎ অস্বাস্থ্যকর। একই স্কোরে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে- এশিয়ার পরাশক্তি চীনের রাজধানী বেইজিং। এরপর সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ের স্কোর হচ্ছে ১৫৯ অর্থাৎ সেখানকার বায়ু অস্বাস্থ্যকর। তারপরের অবস্থানে রয়েছে চীনের আরও একটি শহর উহান এবং স্কোর হচ্ছে ১৫৭।

একই সময়ে দক্ষিণ এশিয়ার মুসলিম অধ্যুষিত রাষ্ট্র পাকিস্তানের লাহোরের স্কোর ১৫৬ ও ভারতের রাজধানী দিল্লির স্কোর ১৫৩ অর্থাৎ সে দুটি শহরের বায়ুর মানও অস্বাস্থ্যকর পর্যায়ে রয়েছে।

স্কোর শূন্য থেকে ৫০ এর মধ্যে থাকলে বায়ুর মান ভালো বলে বিবেচিত হয়। ৫১ থেকে ১০০ হলে মাঝারি হিসেবে ধরা হয় বায়ুর মান। সংবেদনশীল গোষ্ঠীর জন্য অস্বাস্থ্যকর হিসেবে বিবেচিত হয় ১০১ থেকে ১৫০ স্কোর। ১৫১ থেকে ২০০ পর্যন্ত অস্বাস্থ্যকর হিসেবে বিবেচিত হয়।

স্কোর ২০১ থেকে ৩০০ হলে খুবই অস্বাস্থ্যকর বলে বিবেচনা করা হয়। এছাড়া ৩০১-এর বেশি হলে তা দুর্যোগপূর্ণ বলে বিবেচিত হয়।

বায়ুদূষণ যে কোনো মানুষের স্বাস্থ্যের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ। রাজধানীর বায়ুর মান দুর্যোগপূর্ণ ছিল চলতি বছরের জানুয়ারিতে, যা গত সাত বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ। আবহাওয়া সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বছরের নভেম্বর, ডিসেম্বর, জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারি এই চার মাস ঢাকার বায়ু বেশি দূষিত থাকে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড