• বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯  |   ২৫ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

সীমান্তে গুলি চালানোয় মিয়ানমারের দুঃখ প্রকাশ

  শাহজাহান চৌধুরী শাহীন, স্টাফ রিপোর্টার (কক্সবাজার)

৩১ অক্টোবর ২০২২, ১৪:২৯
সীমান্তে গুলি চালানোয় মিয়ানমারের দুঃখ প্রকাশ

মিয়ানমার অভ্যন্তরে সংঘাতের জেরে বাংলাদেশের ভিতর গোলাগুলিসহ সম্প্রতি ঘটে যাওয়া বিভিন্ন ঘটনার জন্য আনুষ্ঠানিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করেছে বর্ডার গার্ড পুলিশ (বিজিপি)।

বিজিবি কর্তৃক বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্ত এলাকা দিয়ে মিয়ানমার নিরাপত্তা বাহিনীর হেলিকপ্টার উড্ডয়ন, সীমান্ত এলাকায় অস্ত্রের ফায়ারিং, জানমালের ক্ষয়ক্ষতির বিষয়ে তীব্র প্রতিবাদ জানানো হয়।

মিয়ানমারের অভ্যন্তরীণ কোন্দলের জেরে ভবিষ্যতে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে কোনো গোলা পতিত না হয় সে বিষয়ে সজাগ দৃষ্টি রাখার আহবান করা হয় বিজিপিকে।

সীমান্তে অনুপ্রবেশ ও মাদক পাচার রোধে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) সঙ্গে একমত পোষণ করেছে মিয়ানমারের বর্ডার গার্ড পুলিশ (বিজিপি)।

গতকাল রবিবার (৩০ অক্টোবর) সকাল ১০টার দিকে নাফনদ সংলগ্ন সীমান্তে টেকনাফের শাহপরীর দ্বীপে বিজিবির নির্মিত ‘সাউদার্ন পয়েন্ট’র সম্মেলন কক্ষে দু’দেশের প্রতিনিধিদলের মধ্যে বৈঠক শুরু হয়। সেটি বিকাল ২টা ৫০ মিনিটে শেষ হয়।

বৈঠক শেষে বিকাল ৪টায় টেকনাফ ২ বিজিবির সদর দপ্তরে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন রামু রিজিওন এর সেক্টর কমান্ডার আবদুর রউফ (পিএসসি) ও বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের প্রধান বিজিবি-২ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল শেখ খালিদ ইফতেখার। এ সময় তিনি মিয়ানমারের প্রতিনিধিদলের আনুষ্ঠানিক দুঃখ প্রকাশসহ উপরোক্ত তথ্য জানান।

পতাকা বৈঠকে ৮ সদস্যের বিজিবি'র প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন টেকনাফ ব্যাটালিয়ন (২ বিজিবি)'র অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল শেখ খালিদ মোহাম্মাদ ইফতেখার এবং বিজিপি'র ৭ সদস্যের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন ১ নম্বর বর্ডার গার্ড পুলিশ ব্রাঞ্চর অধিনায়ক লে: কর্নেল ইয়ে ওয়াই শো।

বৈঠকে মিয়ানমারের সীমান্ত এলাকায় উদ্ভূত পরিস্থিতি ছাড়াও অবৈধভাবে মিয়ানমারের নাগরিকদের অনুপ্রবেশ ও মাদক পাচার রোধে ফলপ্রসূ আলোচনা হয়।

শেষে পারস্পরিক বিদায়ী শুভেচ্ছা জ্ঞাপনের মাধ্যমে সৌহার্দ পূর্ণ পরিবেশে স্থানীয় সময় বেলা পৌনে তিনটায় পতাকা বৈঠকের শেষে প্রতিনিধি দল ৩টায় মিয়ানমারে উদ্দেশ্যে টেকনাফ ত্যাগ করেন।

উল্লেখ্য, গত আড়াই মাস ধরে মিয়ানমারের অভ্যন্তরে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে বিদ্রোহীদের সংঘাত চলছে। সেই সংঘাতের গোলাগুলি একাধিকবার বাংলাদেশের ভূখণ্ডে পড়েছে এবং এতে প্রাণহানিও হয়েছে। এসব ঘটনাকে কেন্দ্র করে সীমান্তে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি বিরাজ করছে। আতঙ্কে ছিল বাংলাদেশ সীমান্তের বাসিন্দারা।

সীমান্তের সংকটময় এমন পরিস্থিতিতে ঢাকায় বার্মিজ রাষ্ট্রদূতকে দফায় দফায় তলব করে প্রতিবাদ জানানো হয়। পাশাপাশি এ ধরনের ঘটনা বন্ধে দ্রুত পদক্ষেপ নিতে বলা হয়।

এ নিয়ে আলোচনায় বসতে একাধিকবার বিজিপির কাছেও চিঠি পাঠানো হয়। কিন্তু সাড়া মেলেনি। যদিও নিয়মিত বৈঠক হিসেবে মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিপি বৈঠকে বসতে রাজি হয়।

এর আগে গত ১০ অক্টোবর পরিস্থিতি দেখতে সীমান্তে আসেন বিজিবি মহাপরিচালক মেজর জেনারেল শাকিল আহমেদ। সীমান্ত পরিদর্শনের পাশাপাশি তিনি বিজিবির কার্যক্রম দেখেন।

এ সময় তিনি সাংবাদিকদের জানান, প্রতিবাদলিপি পাঠানোর পাশাপাশি বিজিপির সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করা হচ্ছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড