• সোমবার, ১০ আগস্ট ২০২০, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৭  |   ৩১ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

কাজের মান ও ‘টাইমলাইন’ চান এলজিআরডি মন্ত্রী

  নিজস্ব প্রতিবেদক

২৬ জুলাই ২০২০, ২৩:৪৩
এলজিআরডি মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম (ছবি : সংগৃহীত)
এলজিআরডি মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম (ছবি : সংগৃহীত)

উন্নয়ন প্রকল্পসহ যে কোনো প্রকল্প নেওয়ার সময় একটি কর্মপরিকল্পনা তৈরি করার জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, কখন কোন কাজ করবেন এবং কীভাবে করবেন এর একটি নির্দিষ্ট টাইমলাইন প্রণয়ন করতে হবে।

রবিবার (২৬ জুলাই) সচিবালয়ে স্থানীয় সরকার বিভাগের আওতাধীন দপ্তর/সংস্থা/সিটি করপোরেশনের সঙ্গে ২০২০-২০২১ অর্থবছরের বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি সই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ আহ্বান জানান তিনি।

তাজুল ইসলাম বলেন, কোন সময় কী কাজ করবেন, কখন করবেন এবং কীভাবে করবেন এর একটি নির্দিষ্ট টাইমলাইন অথবা ওয়ার্ক প্ল্যান প্রণয়ন করতে হবে। এতে যে কোনো প্রজেক্ট বা কাজ নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে শেষ করা সহজ হবে।

‘এ টাইমফ্রেম শুধু আনুষ্ঠানিকভাবে করলেই হবে না, এটি সব সময় পর্যালোচনা করে কাজের অগ্রগতি যাচাই করতে হবে। ’ স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, আমাদের দেশে যে কোনো প্রজেক্ট নিলেই ৮-১০ বছরেও শেষ হয় না। প্রকল্পের একটা কাগজের প্রসেসিং করতে ছয় মাস সময় লাগে, এ নিয়ে প্রশ্ন তুলে তিনি বলেন, প্রকল্পের প্ল্যানিং করতে যদি বছরের পর বছর চলে যায় তাহলে জাতি তার সুফল পাবে কবে? প্রকল্পের কাজের মানের প্রসঙ্গ তুলে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, দেশের উন্নয়নে নেওয়া যে কোনো প্রকল্পে যদি নিম্নমানের কাজ হয়, দুর্নীতি হয় এবং মানুষের জন্য ক্ষতির কারণ হয় তাহলে সেই প্রকল্পের সঙ্গে জড়িত প্রকৌশলী, ঠিকাদার থেকে শুরু করে যারাই যুক্ত থাকবে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। গুণগত মানসম্পন্ন কাজ করতে গিয়ে কেউ যদি বাধার সম্মুখীন হতে হয় বা কোনো প্রভাবশালী কাজ ব্যাহত করে তাহলে তা মোকাবিলার দায়িত্ব তার মন্ত্রণালয় নেবে উল্লেখ করে এ ব্যাপারে কারো সঙ্গে সমঝোতা না করার নির্দেশ দেন মন্ত্রী। মন্ত্রী বলেন, মন্দ কাজের জন্য যেমন শাস্তি পেতে হবে, তেমনি যারা ভালো কাজ করবেন তাদের পুরস্কৃত করা হবে। ভালো কাজের জন্য পুরস্কৃত করা হলে কাজের আগ্রহ বাড়বে। মহামারি করোনা ভাইরাসের মধ্যেও বিবেকের তাড়নায়, দেশের উন্নয়নে স্থানীয় সরকার বিভাগের অধীন দপ্তর/বিভাগ এবং প্রতিষ্ঠান তাদের উপর অর্পিত দায়িত্ব যথাযথ পালন করায় সবার প্রশংসা করেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রী। এসময় ২০১৯-২০ অর্থবছরে বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তির মূল্যায়নে ঢাকা ওয়াসা প্রথম, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর দ্বিতীয় এবং সিলেট সিটি করপোরেশন তৃতীয় স্থান অর্জন করায় স্থানীয় সরকার মন্ত্রী ধন্যবাদ জানান। স্থানীয় সরকার বিভাগের আওতাধীন ২০টি দপ্তর/সংস্থা/সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাদের সঙ্গে স্থানীয় সরকার মন্ত্রীর পক্ষে স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ ২০২০-২১ অর্থবছরের বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি স্বাক্ষর করেন। অনুষ্ঠানে স্থানীয় সরকার বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, স্থানীয় প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী, জাতীয় স্থানীয় সরকার ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক, ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এবং ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও, চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন, খুলনা সিটি করপোরেশন, রাজশাহী সিটি করপোরেশন, বরিশাল সিটি করপোরেশন, সিলেট সিটি করপোরেশন, কুমিল্লা সিটি করপোরেশন, রংপুর সিটি করপোরেশন ও ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এবং খুলনা ওয়াসা ও রাজশাহী ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে যোগ দেন।

jachai
nite
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
jachai

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড