• শুক্রবার, ০৩ জুলাই ২০২০, ১৯ আষাঢ় ১৪২৭  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

৩২ প্রাণের অবসান

ডুবে যাওয়া লঞ্চটি ২৬ ঘণ্টা পর উদ্ধার

  নিজস্ব প্রতিবেদক

৩০ জুন ২০২০, ১২:৪৯
ভাসিয়ে তোলা
লঞ্চটিকে এয়ার লিফ্টিং ব্যাগ দিয় ভাসিয়ে তোলা হয় (ছবি: সংগৃহীত)

বুড়িগঙ্গা নদীতে ডুবে যাওয়া লঞ্চটি ২৬ ঘণ্টা পর উদ্ধার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৩০ জুন) বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে লঞ্চটিকে এয়ার লিফ্টিং ব্যাগ দিয় ভাসিয়ে তোলা হয়। গতকাল সোমবার সকাল ৯টার দিকে লঞ্চটি ডুবে যায়।

এখন পর্যন্ত ৩২ জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া লঞ্চটি ডুবে যাওয়ার প্রায় ১৩ ঘণ্টা পর সোমবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে একজনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়।

এদিকে, ডুবে যাওয়া জাহাজটি উদ্ধারকারী জাহাজ প্রত্যয় পৌঁছতে পারেনি ঘটনাস্থলে। গতকাল নারায়ণগঞ্জ থেকে আসার পথে পোস্তগোলায় বুড়িগঙ্গা সেতুতে জাহাজটির ধাক্কা লাগে। এতে সেতুতে ফাটল দেখা দেয়। ঘটনার পর থেকে সেতুতে যানচলাচল বন্ধ রেখেছে কর্তপক্ষ। 

সোমবার সকালে রাজধানীর শ্যামবাজার এলাকার বুড়িগঙ্গা নদীতে ময়ূর-২ লঞ্চের ধাক্কায় ডুবে যায় ছোট আকারের লঞ্চ মর্নিং বার্ড।মুন্সীগঞ্জের কাঠপট্টি থেকে সদরঘাটে এসে নোঙর করতে যাচ্ছিল মর্নিং বার্ড। ময়ূর-২ লঞ্চটিও চাঁদপুর থেকে সদরঘাটে এসে যাত্রী নামিয়ে ভিন্ন স্থানে নোঙর করতে যাচ্ছিল। 

ডুবে যাওয়া লঞ্চটি থেকে এ পর্যন্ত ৩২ জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ছাড়া লঞ্চডুবির প্রায় ১৩ ঘণ্টা পর রাত ১০টার দিকে এক ব্যক্তিকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। নদীতে ভেসে ওঠার পর কোস্ট গার্ডের কর্মীরা তাঁকে তুলে নেন। উদ্ধার করার পর তিনি অচেতন হয়ে পড়েন। সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতালে নেওয়া হলে তাঁর জ্ঞান ফিরে আসে। তাকে রাজধানীর স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ক্যাজুয়ালটি ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ঘটনায় ৭ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়। এছাড়া, মৃত প্রত্যেকের পরিবারকে দেড় লাখ টাকা ও তাৎক্ষণিক ভাবে দাফন করা জন্য ১০ হাজার টাকা দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী। এদিকে মঙ্গলবার ভোর রাতে সাত জনকে আসামি করে মামলা করেছে পুলিশ। 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড