• শুক্রবার, ০৭ আগস্ট ২০২০, ২৩ শ্রাবণ ১৪২৭  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ভোট পেছাতে ১৮ ঘণ্টার আল্টিমেটাম (ভিডিও)

  ঢাবি প্রতিনিধি

১৪ জানুয়ারি ২০২০, ২০:০৭
আন্দোলন
আন্দোলন স্থগিত করার পর গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলছেন আন্দোলনকারীদের একজন (ছবি : সংগৃহীত)

ঢাকা দুই সিটির নির্বাচনের তারিখ পেছানো না হলে নির্বাচন কমিশন (ইসি) ঘেরাও করার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শিক্ষার্থীরা।

মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) নির্বাচনের তারিখ পেছানোর দাবিতে ঢাবির প্রায় তিন শতাধিক শিক্ষার্থী রাজধানীর শাহবাগ মোড় অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন।

শাহবাগ মোড় ঘেরাও কর্মসূচিতে ঢাবির জগন্নাথ হল সংসদের সহ-সভাপতি উৎপল বিশ্বাস বলেন, ১৮ ঘণ্টার মধ্যে সিটি নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তন না হলে বুধবার (১৫ জানুয়ারি) নির্বাচন অফিস ঘেরাও করা হবে।

মঙ্গলবার বিকাল ৫টা থেকে শাহবাগ মোড় অবরোধ করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মুসলিম-অমুসলিম শিক্ষার্থীরা। ঢাকা দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তনের জন্য ‘পূজার দিনে ভোট নয়’ দাবিতে হাইকোর্ট বরাবর রিট করা হয়। এ দিন দুপুরে হাইকোর্টের বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ রিটটি খারিজ করে দেন।

আবেদনটি সরাসরি খারিজ করে দিয়ে আদালত আদেশে বলেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয় ২৯ জানুয়ারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি ঘোষণা করেছে। সুপ্রিম কোর্টের ক্যালেন্ডারেও ২৯ তারিখ ছুটির কথা বলা আছে। আর নির্বাচন কমিশন ৩০ তারিখ ভোটের তারিখ ঘোষণা করেছে। তার দুই দিন পর এসএসসি পরীক্ষা। এমতাবস্থায় ভোটের তারিখ পেছানোর কোনো সুযোগ নেই, তাই আবেদনটি সরাসরি খারিজ করা হলো।

হাইকোর্টের এমন সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যানারে মঙ্গলবার বিকাল ৫টা থেকে যান চলাচল বন্ধ করে শাহবাগ অবরোধ করে ঢাবি শিক্ষার্থীরা। তবে অ্যাম্বুলেন্স চলাচলে সাহায্য করেন তারা।

এ বিষয়ে উৎপল বিশ্বাস বলেন, নির্বাচন কমিশন বরাবর চিঠি দেওয়ার পরেও আমাদের দাবি কেন মেনে নেওয়া হলো না তার জবাব চাই আমরা। একই দিনে সরস্বতী পূজা এবং সিটি নির্বাচন কখনো হতে পারে না। আমাদের দাবি না মানা পর্যন্ত আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাব।

এ সময় উৎপল বিশ্বাস দুটি দাবি তুলে ধরেন—এক. আগামী ৩০ জানুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য ঢাকা উত্তর ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের তারিখ আগামী বুধবার (১৫ জানুয়ারি) দুপুর ১২টার মধ্যে পরিবর্তন করতে হবে৷ দুই. সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের দায়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনারসহ সংশ্লিষ্ট নির্বাচন কমিশনার ও কর্মকর্তাদের পদত্যাগ করতে হবে ৷

এছাড়াও আন্দোলনে অংশ নেন ঢাবির বিভিন্ন হল সংসদ ও বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সহসাধারণ সম্পাদক (এজিএস) সাদ্দাম হোসেন বলেন, নির্বাচনের তারিখ কীভাবে পেছাতে হয়, তা আমরা দেখে নিব। নির্বাচনের তারিখ অবশ্যই পরিবর্তন করতে হবে।

বিজয় একাত্তর হল সংসদের এজিএস আবু ইউনুস বলেন, নির্বাচন কমিশনের এমন সিদ্ধান্ত ন্যক্কারজনক। বঙ্গবন্ধু আমাদের একটি অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ উপহার দিয়েছেন। তাই যে কোনো ধর্মের মানুষের ধর্মীয় কার্যক্রম ব্যাহত করার অধিকার কারও নেই। দ্রুত সময়ের মধ্যে নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করতে হবে।

আরও পড়ুন : রংপুরে সমস্যা হয়নি ঢাকাতেও হবে না : ইসি সচিব

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল সংসদের জিএস মেহেদী হাসান শান্ত বলেন, অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশে পূজার দিনে নির্বাচন কখনো কাম্য হতে পারে না। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা এটার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

উল্লেখ্য, আইনজীবী অশোক কুমার ঘোষ হাইকোর্ট বরাবর রিটটি করেন। রিটকারী আইনজীবী অশোক কুমার ঘোষ আদালতে নিজেই শুনানি করেন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল মিজানুর রহমান। নির্বাচন কমিশনের পক্ষে ছিলেন তৌহিদুল ইসলাম।

অশোক কুমার ঘোষ বলেন, এই আদেশে আমরা সংক্ষুব্ধ। আমরা আপিল বিভাগে যাব।

ওডি/টিএএফ

jachai
nite
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
jachai

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড