• বৃহস্পতিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২৪ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

আসাদুজ্জামান সবুজের লাবণ্য সিরিজের কবিতা

ভাষা আছে নদী ও জলের

  আসাদুজ্জামান সবুজ

০১ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৩:০০
কবিতা
ছবি : মৃন্ময়ী অনু

ভাষা আছে নদী ও জলের

লাবণ্য, 
শুনেছি দুঃখেরও নাকি একটা ভাষা থাকে
ভাষা থাকে নিঃসঙ্গতার, একাকিত্বের।
ভাষা থাকে অভিমানের, অশ্রুর।
কিন্তু দেখো, 
যখন একাকিত্বের নিরেট শৃঙ্খলে আবদ্ধ জীবন
তখন অশ্রুও স্বার্থপর, গলে না চোখ বেয়ে!
মুহুর্মুহু আর্তনাদে বুকের ঝোপে
মাতাল বৈশাখী কালাঝড়!
সময় হয়তো বয়ে গেছে অনেক
হয়তো নদী এখন স্তব্ধ, শীর্ণ স্রোত। 
তোমার অবহেলায় হতে পারে মরুভূমি। 
কিন্তু তুমি জানোনা লাবণ্য 
একবার, শুধু একবার তুমি ছুঁয়ে দিলেই
জলের কল্লোল তুলে তোমাকেই ভিজিয়ে দেবে
পায়ের নখ থেকে কালো মেঘের পাহাড়। 
ঝাঁক ঝাঁক পানকৌড়ি সারাবছর 
তোমার নামে জয়ধ্বনি দিতে দিতে
উড়োচিঠি পাঠাবে আকাশের ঠিকানায়, 
নাম জানা না-জানা হাজারো চিঠি 
তোমার আকাশে পাখি হয়ে উড়বে 
আর জলকেলি করবে আর-
চিৎকার করে বলবে
লাবণ্য লাবণ্য লাবণ্য লাবণ্য
জলের রাণী, লাবণ্য অমর হোক অমর হোক।
জানো লাবণ্য 
উড়ারও একটা ভাষা আছে,
ভাষা আছে ভালোবাসার
ভাষা আছে নদী ও জলের।
আসাদুজ্জামান সবুজ


প্রাগৈতিহাসিক বেদনা 

লাবণ্য,
উদ্বেলিত অনুভব বিসর্জন দিয়েই
তোমার সামনে নতজানু, 
জানি পাথরের প্রতিমা তুমি নও
নও তুমি দণ্ডায়মান নিষ্ঠুর কাঁটাতার,
তবুও তোমার কাছেই আমার আচমকা পরাজয়।
বুকের ভিতর তোমার নাম ধরে 
অবিরাম বেজে চলছে নিষিদ্ধ ভায়োলিন, 
চারিদিকে রটে গেছে আমার গৌরবান্বিত 
পরাজয়ের মুখরোচক শোক সংবাদ। 
তোমাকে দেবীর আসনে প্রতিষ্ঠিত করে
চক্রাকারে চলছে বিজয়ী মার্চপোস্ট,
আমার কপালে আঁকানো হবে
তোমার নামে খোদাইকৃত পরাজয় তিলক। 
এই-যে ইতিহাসের পাতায় কালো অক্ষরে
লেখা হচ্ছে আমার সকরুণ পরাজয়ের নিদারুণ উপহাস,
তবুও আমার এতো উচ্ছ্বাস কেন?
কেন আমি মাতাল মায়াবী সুরে?
কেন পা মেলাচ্ছে রক্তেরা ধ্রুপদী নাচে?
জানো তুমি লাবণ্য? 
আমি জানি এই নির্মম পরাজয়ের ইতিহাস 
তুমি কখনোই জানবেনা!
তুমি কখনোই জানবেনা 
তোমাকে ভালোবেসে একটি হৃদয়
প্রাগৈতিহাসিক বেদনা বুকে চেপে
ইতিহাসের পাতায় অমর হয়ে গেছে।


রাত হলেই 

লাবণ্য, 
রাত হলেই 
শার্শির জানালা ভেদ করে আসে হুহু উত্তরি হাওয়া।
রাত হলেই একটি পাখির পিলে চমকানো 
বিরহী চিৎকার।   
রাত হলেই উষ্ণ কম্বলের ভিতর 
শীতার্ত আমি’র কনকনে অনুভব। 
রাত হলেই একজোড়া খোলা চোখ
দূরবর্তী নক্ষত্রের ওলানে ফোঁটা ফোঁটা দুঃখ। 
রাত হলেই আগুনমুখো পেঁচা
ভেন্নাতলাই তাসের আসর।
রাত হলেই লাবণ্যহীন আমি’র
দুঃখের সাথে বাসর।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন সজীব 

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড