• রোববার, ০৫ এপ্রিল ২০২০, ২২ চৈত্র ১৪২৬  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

পাণ্ডুলিপির কবিতা

প্রেমিকার দৃষ্টি যেন এক ভ্রাম্যমাণ টিকেট কাউন্টার

  রিকেল

৩০ জানুয়ারি ২০২০, ১৪:৫৫
কবিতা
প্রচ্ছদ : কাব্যগ্রন্থ ‘মাননীয় স্পীকার’

মন খারাপের জল 

কোন 
পাখিটি 
কখন থেকে 
অল্প প্রেমের গান 
গায়; কোন নদীটি কার 
ভেতরে খুব গোপনে ভেসে যায়
কেউ রাখেনি জলের খবর কার চোখেতে 
টলোমল, কেউ দেখেনি বুকের ভেতর কোন সাগরে
অধিক তল; সেই পাখিটি আমার মতো সকাল দেখে
তোমার চোখে; সেই পাখিটি ডানা মেলে উড়ে বেড়ায়
প্রেমের বুকে; 
সেই নদীটি
তোমায় নিয়ে 
আমার মধ্যে 
ভেসে যায়,
সেই নদীটি 
যখন তখন 
মন খারাপের
জল বাড়ায়


চুমোযোগ্য ঠোঁট  

জলের বদলে চুমো খাব বহুদিন
এই ভেবে ঘুমিয়ে আছি হলো তিন দিন
আদরের অভাবে আর ঘুম ভাঙা হলো না
কারো শরীরে বাঁধা হলো না একখানা খেলাঘর
এই নিয়ে কত তামাশা করলো বন্ধুরা
সিগারেট এগিয়ে দিয়ে বলেছিল— নে ধোঁয়া খা
আমি ধোঁয়ার বদলে চুমো খাব বহুদিন
এই বিশ্বাসে বন্ধুরা আমাকে একা রেখেছিল আঠারো দিন
আমি তখন মেয়েবন্ধুর পারফিউমের দিকে যেতে শুরু করলাম
তাদের চোখের দিকে চুলের দিকে আর পায়ের দিকে যেতে শুরু করলাম
বিশ্বাসযোগ্য ঠোঁটের অভাবে তবু চুমোর পাশে গেলাম না।


গোরখোদক

তোমার নেশাগ্রস্ত নাভির দিকে তাকিয়ে
আমার নাম লিখে যাব তোমার নামে 
আমার চিন্তা আর পুনর্জন্ম দিয়ে দেব তোমাকে; 
জেনেছি শরীর আত্মহত্যার এক অপূর্ব স্থান
শ্মশানে যাবার আগে একবার তোমার নাভি ভ্রমণে যাব
যদি শুয়ে থাকার কোনো কবর খোঁড়া যায় 
নিজের এপিটাফ খুঁজে পাব।


চতুষ্কাম

◆ শরীর
শরীর এক অলৌকিক বিষের পেয়ালা 
পান করার পর পেতে পারেন এক রোমান্টিক মৃত্যু 

◆ ঠোঁট
প্রিয়তমার ঠোঁট— এক দুর্লভ এলকোহল
পান করে মাতাল হোন
মাতাল হলেই আপনি সত্য বলতে শুরু করবেন

◆ স্তন
প্রেমিকার স্তন— নির্জন কোমল এক প্রচ্ছন্ন পাহাড়
পাহাড় ভাঙার আগে প্রেমিকার চোখের দিকে তাকান
প্রেমিকার দৃষ্টি যেন এক ভ্রাম্যমাণ টিকেট কাউন্টার

◆ সঙ্গম
সঙ্গম— এক জীবনমুখী কবিতা
যে কবিতা অন্তত একবার লিখে জীবনকে প্রশ্রয় দেবেন


মাননীয় স্পীকার 

আমি সেই শয়তান— যিনি ঈশ্বরের যোগ্য
যিনি হেসে আপনাকে খুন করেন
আঙুলে যিনি প্রতিবাদ করেন
যার কণ্ঠ আপনি কেটে ফেলেছেন গত সন্ধ্যায়
আমিই সেই মহামান্য শয়তান
আমি সেই পাপি— যিনি পৃথিবীর অধীশ্বর 
যার অভিশাপে আপনি সুস্থ হয়ে ওঠেন
যার অসুন্দরে আপনি সৌন্দর্যের শোভা পান
যার চিৎকার আপনার অহংকার
যিনি নিঃসঙ্গ, তবু আপনার কথা বলেন পবিত্র সংসদে
আমিই সেই মহান পাপি
আমি সেই প্রেমিক— যিনি ভালোবাসার প্রথম সন্তান
যার অশুদ্ধতায় আপনার শুদ্ধতার চাষ
যার প্রবল বর্ষণে আপনার তৃষ্ণার্ত জল
যার কঠিন অন্ধত্বে আপনার চোখে সুনীল আকাশ 
আপনার ঘরের দুঃখ যিনি নিজের ভেতর লালন করেন
যিনি প্রেমিকার নিষ্ঠুরতাকে সযত্নে প্রশ্রয় দেন
আমিই সেই নির্মম প্রেমিক
আমি তো সেই কবি— যিনি আপনার ভাষায় লেখেন
যার ছড়া আপনাকে মা মা শৈশব দেয়
যার কবিতা আপনাকে ভালোবাসতে শেখায়
যার রয়েছে উড়ে যাবার শব্দে গড়া দুটি ডানা
মাননীয় স্পীকার,
আমিই বাংলার কবি
আমাকে আত্মহত্যা করবার তিন মিনিট সময় দিন।

আরও পড়ুন : কখনো কখনো মিথ্যারা শিল্প হয়ে ওঠে

ওডি/এসএন

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড