• বৃহস্পতিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৬  |   ২০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

পাণ্ডুলিপির কবিতা

কথা ছিল আমি হবো তোমার দীর্ঘতম প্রতীক্ষা

  মহসিনা সরকার

১৯ জানুয়ারি ২০২০, ১৪:৫২
প্রচ্ছদ
প্রচ্ছদ : কাব্যগ্রন্থ ‘এবং রুদ্র’

ব্যাকস্পেসের ফসিল 

একটা বিদ্রোহ চাই তোমার আমার 
অপ্রিয় অক্ষরপথের দ্বারপ্রান্তে, 
শরীরের নিলামে রাতের পর রাত পার হয়ে যাচ্ছে, 
এই যে, যুগের পর যুগ যাচ্ছে চলে, 
কই, তুমি তো এসে আমার রাগ ভাঙালে না। 

কথা ছিল আমি হবো তোমার দীর্ঘতম প্রতীক্ষা 
যে প্রতীক্ষায় তোমার সকল আবেগ ঘনীভূত হয়, 
আজ তুমি আমার শীতলতার অহংকার 
হেথায় আমি কিনা তোমার উদীয়মান হাহাকার। 

ইচ্ছে ছিল পাশাপাশি হাঁটব সোডিয়াম নিয়নে, 
অথচ ইচ্ছেগুলো আজ কর্পূরদানায় রূপান্তরিত, 
জোনাকি আগুনের আভায় যে প্রেম-
হারিয়ে যায় ব্যাকস্পেসে, 
হেথায় আর কোন আবেগের ফসিল ফলবেনা। 


ধূমকেতুর নীলাভ্র 

আমার খামখেয়ালী সময়গুলো 
আত্মসাৎ এর একক সর্বনাম তুমি, 
অক্ষরে অক্ষরে নিলামে ওঠা
বরফে ঢাকা ধূমকেতুর নীলাভ্র, 
আঙ্গুলের ফাঁক গলে বেড়িয়ে যাওয়া 
তীব্র যৌবনের নিখোঁজ দর্শন।

তুমি আমার প্রতীক্ষার লবণের মতো 
অর্থহীন আকালের ধোঁয়া, 
আমার বিশেষ ট্রাইব্যুনালের ঘটে যাওয়া 
অহরহ বাণিজ্যিক অন্ধকারের 
অভিযোগ ক্ষত এর আরেক নাম।


অভিশপ্ত ফুটপাত 

একেকটা ব্যর্থ দিন পেরিয়ে আসে বিনিদ্র রাত
ঘুমন্ত নগরীতে নামে বিষের ছায়া, 
মুখোশ কবিদের কবিতায় জেগে থাকে 
নতুন স্বপ্ন কেনার আশায় জীবিকারা। 

এই অভিশপ্ত ফুটপাত জীবনে
প্রতিটি নিখোঁজ যাত্রীর-
কান পেতে শোনা ইতিহাস জানে 
এই নগরীর একেকটি ল্যাম্পপোস্ট,
আমি পড়ে থাকি তারি মতো অবহেলায় 
যেমনটি পিচঢালা রাস্তায় জেগে থাকা 
অপুষ্ট অনাহারী রাস্তার কুকুরের নসীব।


পাওয়া যাবে কি 

তোমার জানালার গ্রিলে 
রোজ সকালে যতটুকু 
রোদ আঁটকে যায়, 
ঠিক ততটুকু আবেগ
তুমি দিও আমায়। 

হঠাৎ বৃষ্টি হলে 
যতটা যত্নে তুমি 
রবীন্দ্রনাথে চোখ বুলাও,
ঠিক ততটা স্মৃতির কার্নিশ 
তুমি দিও আমায়। 

বাণিজ্যের দুপুরে 
বেলাজ রোদ্দুর 
যতটা ব্যস্ত থাকে, 
ঠিক ততটা যান্ত্রিকতা 
তুমি দিও আমায়।

ভদ্র রাজনীতির 
মুখোশের আড়ালের
প্রোপাগান্ডার মতো হলেও, 
নীতি বহির্ভূত ভালোবাসা 
তুমি দিও আমায়। 


অভিমানী রুদ্র 

রুদ্র,
তোর কথা আজ খুব মনে ধরেছে, 
চারশত দু’বছর কেটে গেলো তবু্ও 
তোমায় আর তুই করে হয়না ডাকা। 

যে ভালোবাসায় আমার রুদ্র গ্রাস হয়, 
আমি চাইনি তুই তার সাথে জুড়ে যা, 
সাঁতার পারিস না বলে দিলেই পারতি, 
এই ঘূর্ণি প্রেমের ঘন তমসায়-
তোর যবনিকা ফেলতাম না।

জানি আজ তুই বড্ড অবিশ্বাসী
আর আমায় বিশ্বাস করতেও বলবো না, 
তোর নিউরনের সাইনাস সন্ধিস্থলে
দানা বেঁধে থাকা কর্পূর বিষ
উদ্বায়ী করে দেব বলেই,
আজ তোকে মনে ধরালাম।

রুদ্র তোকে যেমন ভোলা যায় না, 
তেমনি মনে করতে নেই, 
আসলে মনে করা যায়ও না, 
কারণ, রুদ্ররা এতটাই অভিমানী।

আরও পড়ুন- বিলুপ্ত নগরীর কোন অংশেই কি আমার অস্তিত্ব ছিলো না

ওডি/ এসএন

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড