• বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৩ আশ্বিন ১৪২৬  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন

সমসাময়িক নারী লেখকদের নিয়ে চিরকুটের অনন্য আয়োজন

  হাসান তানভীর

১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১১:৪৭
ছবি
ছবি : চিরকুটের অনন্য আয়োজন ‘নারীর অভিজ্ঞতা নারীর বয়ান’

আমাদের সমাজে নারীর চলার পথ মসৃণ নয়। নারী অধিকার নিয়ে শত বছরের সংগ্রামের পরও নারীর প্রতি সমাজের দৃষ্টিভঙ্গির খুব একটা পরিবর্তন হয়নি। নারীকে তার অস্তিত্বের জানান দিতে প্রতিনিয়ত লড়াই করতে হয় পরিবার থেকে নিয়ে সমাজ ও রাষ্ট্রের সঙ্গে। নারী শব্দটার প্রতিচ্ছবি সমাজের দেয়ালে অঙ্কিত হয়েছে অবলার চিত্রকল্পে। সেই অবলা নারী যখন সমাজকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে শিল্প ও সাহিত্যের চর্চা করে তখন তাকে লক্ষ্যে পৌঁছাতে পাড়ি দিতে হয় হাজারো ভ্রুকুটির পুলসিরাত। তবে আশার কথা হলো কিছু সংগ্রামী নারী সমাজের হাতকড়া ভেঙে নিজেদের নাম লিখেয়েছেন সাহিত্যের চিত্রপটে। 

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের একমাত্র সাহিত্য সংগঠন ‘চিরকুট’ এমনই ক’জন নারীকে নিয়ে গত ১১ সেপ্টেম্বর আয়োজন করে ‘নারীর অভিজ্ঞতা নারীর বয়ান’ শীর্ষক আলোচনা সভা। এ সময়ের তরুণ নারী লেখকদের উঠে আসার গল্প ও নারীর প্রতি সামাজিক ধারণার বিপরীতে তাদের বিদ্রোহের আলেখ্যই ছিল অনুষ্ঠানটির মূল প্রতিপাদ্য বিষয়।

চিরকুটছবি : চিরকুটের অনন্য আয়োজন কথা বলছে অতিথিরা

অনুষ্ঠানটিতে উপস্থিত ছিলেন- সমসাময়িক নারী লেখক রেহনুমা আহমেদ, সাকিরা পারভীন, নাহিদা আশরাফী, আয়শা ঝর্না ও ইশরাত তানিয়া। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন- কবি ও অনুবাদক অধ্যাপক আহমেদ রেজা এবং কবি ও কথাসাহিত্যিক অধ্যাপক রায়হান রাইন। 

নারী লেখকদের নিয়ে এই ধরনের আয়োজন কেন জানতে চাইলে চিরকুটের সভাপতি অবেদুল্লাহ আল মাসুম বলেন, ‘সাহিত্য সংগঠন হিসেবে চিরকুট বোদ্ধা মহলে একটি পরিচিত নাম। আমাদের কাজ মূলত বিশ্ববিদ্যালয়ের নবীন লিখিয়েদের নিয়ে। আমরা মনে করেছি অগ্রজ নারীদের অভিজ্ঞতা আমাদের সংগঠনের নারী সদস্যদের পথ চিনতে সহায়তা করবে। এছাড়াও নারীদের শিল্প চর্চায় তাদের নিজেদের মূল্যায়ন কী তা সম্পর্কে তরুণদের ধারণা থাকা দরকার। এই বিবেচনা থেকেই অনুষ্ঠানটি করা।’

চিরকুট৩ছবি : উপস্থিত অতিতিদের সাথে চিরকুটের সদস্যবৃন্দ

সভাটি বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন কলা ভবনের দ্বিতীয় তলায় অনুষ্ঠিত হয়। প্রথম পর্বে আমন্ত্রিত অতিথিরা তাদের অভিজ্ঞতার বর্ণনা দেন। এতে নারীর প্রতি সামাজিক দৃষ্টিভঙ্গির অসারতা ফুটে ওঠে। সমাজে নারীকে দেখা হয় দুর্বল হিসেবে, পরিবার চায় তাদের অনাগত সন্তান হোক ছেলে, কম বয়সে বিয়ে দিয়ে নারীকে করা হয় পরনির্ভরশীল, বিনোদনের নামে নারীকে বানানো হচ্ছে পণ্য- যার প্রতিবাদ করেন বক্তারা। অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে কবিতা পাঠ করা হয় এবং চিরকুটের নতুন সভ্যদের বরণ করে নেওয়া হয়। অনুষ্ঠানটি শুরু হয় বিকেল পাঁচটায় এবং শেষ হয় রাত আটটায়। 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড