• সোমবার, ১০ আগস্ট ২০২০, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৭  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

পাণ্ডুলিপির অব্যক্ত কথা

নেকরোফিলিয়া একটি সাইকোলজিক্যাল ডিসঅর্ডার

  মোহনা সেতু

০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৪:৫৫
প্রচ্ছদ
প্রচ্ছদ : উপন্যাস ‘আওয়াজ’

আমি দু বছর আগে সাইকোলজিক্যাল ডিসঅর্ডার নাম এবং লক্ষণ পড়ছিলাম। সত্যি কথা বলতে কী আমি নিজের মাঝে লক্ষণগুলো আছে কি না মিলাচ্ছিলাম। হঠাৎই চোখে পড়ে নেকরোফিলিয়া রোগের নাম। লক্ষণ পড়ে আমি চমকে যাই। ভাবি এও সম্ভব!

মৃত ব্যক্তির সঙ্গে যৌন সম্পর্ক? আমরা জানি জগতে ভীষণ সত্য একটি বিষয় মৃত্যু। শোক সংবাদ আমাদের মৃত্যুকে মনে করায়। এই যে আমি আজ আছি, হাঁটছি কিন্তু একদিন আমি থাকব না।

পড়ার পর ভাবছিলাম, একজন মৃত পুরুষ শুয়ে আছে সটান করে। আমি আগাই। আমাদের মাঝের দূরত্ব ক্রমশ কমতে থাকে। তার ঠোঁটের কাছাকাছি আসতে থাকে আমার ঠোঁট ক্রমশ। আমার ঠোঁট কাঁপতে থাকে। কিন্তু সে নিথর। কোনো সাড়া আসে না। জীবন্ত হলে সেও এগিয়ে আসতো। কিন্তু সে আসে না। আমিই যাই। চুমু খাই। কিন্তু একি!

তার দিক থেকে কোনো প্রকার সাড়া ছাড়া কীভাবে সম্ভব এর পরের ধাপে যাওয়া? আমি মৃত ব্যক্তিটাকে জড়িয়ে ধরি। কিন্তু তার বুকের বাঁ পাশ তো ধরফর করে না। হৎপিণ্ডের গতি কোথায়?

আমি ভয়েই ঘামতে থাকি বাস্তবে। ঘোর কাটে অল্প। আমি বোধহয় এমনটা করতে পারব না কক্ষনোই। সে আমার সেক্সুয়াল যতই এট্রাকশন থাকুক। আমি এই ব্যাপারটা নিয়ে জানতে প্রতিটা দিন উদগ্রীব হয়ে উঠি গত দিনের চেয়েও।

খুঁজতে থাকি কেন একটা মানুষ ক্রমান্বয়ে নেকরোফিলিক হয়ে ওঠে। এই রোগে আক্রান্ত রোগীর ৯৯ শতাংশ পুরুষ বাকি ১ শতাংশ নারী।

আশা করি আপনারাও খুঁজে পাবেন ‘আওয়াজ’ বইতে।

আরও পড়ুন : লাবণ্য দাশের সাথে দেখা হওয়ার আগে

আমরা দেখি ধর্ষককে, আমরা দেখি পাপীকে, রাতের আঁধারে পতিতাবৃত্তি করা যৌনদাসীকে। মুদ্রার আরেক পিঠ আমাদের অদেখা থেকে যায়। আমি বলছি না ধর্ষক, চোর, ডাকাত, নেকরোফিলিকরা পাপী না। কিন্তু সাথে আমি এটাই বলছি, এনারা একদিনেই খুনি, চোর, ডাকাত, ধর্ষক হয়ে ওঠে না। এখানে পাশাপাশি প্রশ্নবিদ্ধ সমাজ, প্রশ্নবিদ্ধ রাষ্ট্রও।

jachai
nite
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
jachai

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড