কবিতা : শরবত ভেবেছিলাম

প্রকাশ : ১২ জানুয়ারি ২০১৯, ০৯:১১

  খন্দকার জাহাঙ্গীর হুসাইন

শরবত ভেবে কিঞ্চিত শরাব পান করেছিলাম। হঠাৎ দেখি শরাবের শিশিটাই মদ হয়ে গেল।

তাতে কী তেজরে বাবা! চোখ দুটি বুজে এলো,
নিষ্ঠার সে নিয়ম মেনে নীল নাক-
দুর্গন্ধ ছড়াল চতুর্দিক।

সেদিন মদ্যপ রাত আমাকে
সানন্দার  যোনী দেখিয়ে ছাড়ল 
দেখাল বুকের খোলস খুলে 
নেতিয়ে পড়া স্তনযুগল।
উড়ুর উর্ধমুখে যোনীর কপাটে বেশরম করে তোলে কবিতার পাণ্ডুলিপি। 

চেতনার মাইকটি খুলে দিয়েছিল তারের বন্ধন। আমি চিৎকার করে
বলে দিয়েছিলাম, আমি উন্মাদ আমি উন্মাদ।

কিন্তু সে চিৎকার পৌঁছাতে পারিনি কারো কান অবধি
শুধু বাতাসকে দুর্গন্ধ করে তাড়িয়ে 
ফিরছিল সক্কলের নাক ছুঁয়ে।

অতঃপর আমি শরবত ভেবে পুরোটাই মদ পান করেছিলাম!