• রবিবার, ১৮ আগস্ট ২০১৯, ৩ ভাদ্র ১৪২৬  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন

সর্বশেষ :

জিয়ার পরিচয় তিনি বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারী : রেলমন্ত্রী||কলকাতায় চিকিৎসা করাতে যাওয়া ২ বাংলাদেশিকে পিষে মারল জাগুয়ার||ছাত্রদলের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক পদের ফরম বিক্রি শুরু ||ইহুদিবাদী ইসরায়েলের প্রস্তাব নাকচ করে দিল মার্কিন সাংসদ||ভারতকে অবিলম্বে কাশ্মীরের কারফিউ তুলতে বলেছে ওআইসি||‘তদন্ত করতে হবে কেন এসব অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটছে’||ইউক্রেনের হোটেলে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ৮ জনের প্রাণহানি||‘অগ্নিকাণ্ডে কেউ চাপা পড়েছে কিনা তল্লাশি চলছে’ ||মুক্তিপ্রাপ্ত ইরানের সুপার ট্যাঙ্কারটি আটকে এবার যুক্তরাষ্ট্রের ওয়ারেন্ট জারি||অবৈধ অভিবাসন ইস্যুতে ঢাকায় আসছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী  
eid

মূল : স্টিফেন ডান

অনুবাদ কবিতা : স্মিথভিল মেথডিস্ট চার্চে

  অনুবাদ: শামস আল মমীন

১০ নভেম্বর ২০১৮, ০৩:৩৪
কবিতা
ছবি : প্রতীকী

পুরা সপ্তাহ আর্টস এ্যান্ড ক্রাফটস হওয়ার কথা,
কিন্তু ‘জিসাস সেভস’ বোতাম নিয়ে
মেয়েটি যখন ঘরে ফিরে, বুঝলাম কী চাল
চলছে, সেই পুরানা কৌশল।

ছোট্ট বন্ধুদের ভালই লেগেছে তার।
কাগজ ভাঁজ করে কিম্বা মুচড়ে মুচড়ে পুতুল বানানো
বন্ধ করে যখন ওরা গান গাইছিলো, সেও বেশ আমোদে ছিল।
কী এমন খারাপ হতো।

জিসাস ভালো মানুষ, ভালো মানুষকে ভক্তি
আর অপকর্মে তাল মিলিয়ে চলা
এও করতে হয়,
ওটাও আবার দুঃখজনক।

আমরা বলি, ঠিক আছে। শুধু এক সপ্তাহ। কিন্তু যখন
সে ‘জিসাস আমায় ভালোবাসে, বাইবেল বলে তাই,’
গাইতে গাইতে বাড়ি ফেরে, ভাবলাম ব্যাপারটা নিয়ে
কথা বলা দরকার। আমরা কি বলতে পারি

জিসাস তোমাকে ভালোবাসে না? তোমাকে কষ্ট দিতে
বাইবেলের মতো পূন্য-গ্রন্থের কথা কেউ কেউ বলে,
এ কথা কি তাকে বলা যায়? কিছু না বলেই
আমাদের কথা শেষ হয়।

সেও তো বহুদিন আগে যখন জিসাসকে আমরা নিয়তি
অথবা বন্ধুর মতো করে চেয়েছিলাম,
ভক্তিও করেছিলাম আর ভাবতাম তিনি
যথার্থই মৃত:,

আমাদের ছেলেমেয়েরা তাঁকে লিংকন
অথবা থমাস জেফারসনের মতই একজন ভাবতো।
অল্পদিনেই আমরা বুঝে ফেলি: কোনো শিশুকেই
তার মনের বিরুদ্ধে বোঝানো কঠিন।

শুধু মন ভোলানো গল্পই তা পারে, কিন্তু
এর চেয়ে ভালো গল্পও আমাদের জানা নেই।
প্যারেন্টস নাইটে আর্টস এ্যান্ড ক্রাফটস
অ্যাপেটাইজারের মতই

ছড়ানো ছিটানো ছিল। আমরা চার্চের
ভেতরে গিয়ে বসি
ছেলেমেয়েরা পবিত্র নৌকা আর ঈশ্বরের জয়ধ্বনি
করে গান গায়

এবং জিসাসের জন্য লম্প-ঝম্পও করে। কোনটা
তামাসা আর
কোনটা প্রার্থনা এই জীবনে প্রথম বুঝে
উঠতে পারিনি।

ইভ্যলুশন ঐন্দ্রজালিক কিন্তু এতে বীরদের কপাল পোড়ে।
‘ইভল্যুশন লাভস ইউ’
সন্তানকে এ কথা বলা যায়!
ধ্বংস নিয়ে যতসব ফালতু গল্প এবং

কয়েক শতাব্দী চমকে দেওয়ার মতো কিছুই ঘটেনি।
আমার মেয়ের জন্য একটা ভালো গল্পও আমার
জানা ছিল না অথচ সে আজ উদ্ভাসিত। গাড়ি করে বাড়ি
যেতে যেতে সেই গানগুলো সে গাইছিলো

মাঝে মাঝে জিসুর জন্য উঠেও দাঁড়ায়।
গাড়ি চালানো, দোল খাওয়া কিম্বা
মনে মনে সুর মেলানো ছাড়া আমাদের
কিছুই করার ছিল না।

নবীন- প্রবীন লেখীয়োদের প্রতি আহ্বান: সাহিত্য সুহৃদ মানুষের কাছে ছড়া, কবিতা, গল্প, ছোট গল্প, রম্য রচনা সহ সাহিত্য নির্ভর আপনার যেকোন লেখা পৌঁছে দিতে আমাদেরকে ই-মেইল করুন [email protected]
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড