• শনিবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২৩, ১৪ মাঘ ১৪২৯  |   ২১ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

আদিত্য শাহীনের 'জনভাষ্য' 

কৃষি নিয়ে গণমানুষের চিন্তা এক করার অসাধারণ কাজ 

  অধিকার ডেস্ক

০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ১৭:১২
আদিত্য শাহীন

মলাটবন্দী চিন্তা বাক্য বা অক্ষরমালার আবেদন শেষ হবার নয়। মনের ভাব প্রকাশ করার বহুমুখি ডিজিটাল ও যাদুকরি মাধ্যম এসে মানুষের লেখার বা প্রকাশের বিষয়টিকে ঠুনকো করে তুলেছে। মোবাইলে ছবি তোলার মতো। ছবি তোলা হলেই যেন আবেদন শেষ। এই ছবি কোথায় কিভাবে টিকে থাকবে এ নিয়ে এই সময়ে আর মাথাব্যথা নেই। বড় জোর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করে শেষ করি দায়িত্ব। কিন্তু ওমর খৈয়ামের মতো বলতেই হবে ‘বই হচ্ছে অনন্ত যৌবনা।’ প্রকাশনার শক্তি যেন শেষ হবার নয়।

আমাদের শাহ কৃষি পাঠাগারের বইয়ের তাক থেকে কয়েকটি পুরোনো বই নিয়ে পাতা উল্টাতে বসেছি। সাংবাদিক আদিত্য শাহীন সম্পাদিত “জনভাষ্য”। একে একে ছয়টি খণ্ড। বিশ্বাস করি এভাবে সযত্নে এই সংকলন আর কারো কাছে সংরক্ষিত নেই। এই সংকলনগুলোর তিনটিতে আমার নিজের লেখাও স্থান দিয়েছেন সম্পাদক আদিত্য শাহীন। এতদিন পর মিলিয়ে দেখছি বাংলাদেশেরে কৃষির যেসব বাস্তবতার কথা এখানে দেশের কৃষিঘনিষ্ঠ মানুষ তুলে ধরেছিলেন, তা এখনকার বাস্তবতায় পুরোসত্য।

অবাক হচ্ছি এমন অমূল্য সংকলন প্রকাশনার আয়োজন ও সম্পাদক আদিত্য শাহীনের নিবিড় কর্মযজ্ঞ দেখে। আমি তাকে দেখেছি চ্যানেল আই এর হৃদয়ে মাটি ও মানুষ টিমের প্রধান গবেষক ও পান্ডুলিপি রচয়িতা হিসেবে মাঠের তথ্যের কাগজে কলমে অসাধারণভাবে ফুটিয়ে তুলতে। আমরা যখন জনাব শাইখ সিরাজের মাটি ও মানুষ অনুষ্ঠান দেখি তখন তার পেছনের মানুষ আদিত্য শাহীনের সৃজনশীলতাও দেখতে পাই। মাঠ থেকে মাঠে বা পথ থেকে পথে তারা যা রচনা করেন, তা আমাদের জীবন বাস্তবতার অনবদ্য এক সুর হয়ে ধরা দেয়। আদিত্য শাহীন চ্যানেল আই এর ন্যাশনাল ডেস্ক এর প্রধান হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন। তার মানে গ্রাম বাংলা ও কৃষি বিষয়ে চ্যানেল আইতে যত কাজ তার পেছনে আদিত্য শাহীনের শ্রম ও মেধা রয়েছে। তারই এক ধারাবাহিক কর্মসাফল্য ও গাঁথা হয়ে আছে “জনভাষ্য” নামক সংকলন।

“জনভাষ্য” কোনো প্রচলিত গবেষণা নয়। তবে সমাজের সকল শ্রেনীপেশার মানুষের চিন্তা ও ভাষ্যকে গুছিয়ে তা প্রকাশ উপযোগী করে তোলাটি অনেক বড় কাজ। আগেই বলেছি মানুষ এখন কাগজে কলমে লেখার কথা ভুলতে বসেছে। ক্ষুদেবার্তার যুগে রচনাধর্মী লেখার কথা তো চিন্তাই করা যায়না। সেই জায়গা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক, গবেষক, সরকারি কর্মকর্তা থেকে শুরু করে স্কুলের শিক্ষার্থী পর্যন্ত লিখেছেন জনভাষ্যে। বিষয়বস্তু বেঁধে দেয়ার কারণে লেখকরা সনির্দিষ্ট বিষয় নিয়ে ভাবতে পেরেছেন। কিন্তু পরে সম্পাদক তার ভেতর থেকে তথ্য, তত্ব ও ধারণাকে পৃথক করে ভিন্ন ভিন্ন শিরোনাম দিয়েছেন। “কৃষির বহুমুখি উন্নয়নে গণমাধ্যম কীভাবে ভূমিকা রাখতে পারে”মোটা দাগে এই ছিল প্রথম সংখ্যায় বিষয়। এই বিষয়কে ফুটিয়ে তুলতে লেখকেরা তুলে এনেছেন হাজার বছরের কৃষি ঐতিহ্য থেকে শুরু করে আজকের উৎকর্ষ ও সম্ভাবনার জায়গাগুলো। গণমাধ্যম কীভাবে কৃষি উন্নয়নে কাজ করতে পারে, কীভাবে দেশের আর্থ সামাজিক চিত্র পাল্টে দেয়ার পেছনে অবদান রাখতে পারে। বিশেষ করে সরকার ও রাষ্ট্রর মুলধারার সঙ্গে সাধারণ কৃষককে যুক্ত করতে পারে, তার দৃষ্টান্ত হিসেবে উঠে আসে হৃদয়ে মাটি ও মানুষ নামের গণমাধ্যম তৎপরতার নাম। দিনে দিনে গণমাধ্যমের অপরিহার্য এক অংশ হয়ে ওঠে কৃষি। দেখতে পাই আদিত্য শাহীন সম্পাদিত জনভাষ্য পরবর্তী আরো পাঁচটি সংখ্যায় দেশের কৃষির অতীত বর্তমান ও ভবিষ্যতের রূপরেখা তুলে ধরেছেন কয়েকশত লেখক। ২০১৪ সালে প্রকাশিত হয় “জনভাষ্য” এর ষষ্ঠ ও শেষ সংখ্যা। এই সংখ্যার বিষয় ছিল “পরিবর্তিত কৃষির চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় তথ্য প্রযুক্তির সমন্বিত ব্যবহার: একটি নতুন প্রস্তাব”। বিস্ময়ের ব্যাপার হলো, এই প্রকাশনার আট বছর পেরিয়ে গেছে। দেশের বিভিন্ন শ্রেনিপেশার মানুষের লেখনীর মধ্যে যে আশাবাদ উঠে আসে তাই বাস্তবায়ন করে বাংলাদেশে কৃষি ও গণমাধ্যম অনুশীলনের সফল প্লাটফরম শাইখ সিরাজের হৃদয়ে মাটি ও মানুষ। পৃথিবীতে কৃষি বিষেযে তথ্য প্রযুক্তি তথা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারের সবচেয়ে সফল ও ক্ষেত্র এটি।

আদিত্য শাহীন সম্পাদিত জনভাষ্যে চোখ রেখে কৃষির বাস্তবতা আজকের উন্নয়ন ও বহুমুখি সাফল্যের দৃশ্যের সঙ্গে মিলিয়ে দেখি। তার ছয় খণ্ডের “জনভাষ্য” প্রকাশনা এক অসাধারণ দলিল হয়ে আছে।

নবীন- প্রবীন লেখীয়োদের প্রতি আহ্বান: সাহিত্য সুহৃদ মানুষের কাছে ছড়া, কবিতা, গল্প, ছোট গল্প, রম্য রচনা সহ সাহিত্য নির্ভর আপনার যেকোন লেখা পৌঁছে দিতে আমাদেরকে ই-মেইল করুন [email protected]
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড