• বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৩ আশ্বিন ১৪২৯  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

কে আটকাবে এই লৌহমানবদের?

  মো. গোলাম সরোয়ার সাইমুম

০৯ জুলাই ২০২২, ২৩:২১
কে আটকাবে এই লৌহমানবদের?
মো. গোলাম সরোয়ার সাইমুম (ছবি : সংগৃহীত)

কালকে ইদের ছুটি, তাই আজ করতে হবে কাজ বেশি। করতে থাকি চল, কালকে যাব বাড়ি, এটাই আমার বল।

বাড়ি ফেরার পথে বের হয়েই দেখি রাস্তায় জল, শুনেছি এখানে নাকি ফ্লাইওভার হবে, তাই রাস্তা খুঁড়ে রেখেছে তিন চার বছর আগে, কাজ আজও শুরু হয়নি, কেমন লাগে বল?

দে পা, পা ডুবা সেই নর্দমারেই জলে, এ পথ পাড়ি দিতেই হবে, কারণ কালকে যাবো বাড়ি, আর এটাই আমার বল।

কাটতে গেলাম টিকিট, বললো টিকিট নাকি শেষ, তবে, লোকজনকে পাশে নিয়ে গিয়ে, ব্লাকে টিকেট বিক্রি করছে বেশ। আমাকেও ডেকে বলল, টিকিট আছে ব্লাকে, তুই কত দিবি বল? টিকিট পেতে হলে, তুই আমার সঙ্গে চল। টিকিট এর দাম শুনে মূর্ছা গেলাম যেনো, কাটতে টিকিট বেতনেরই বিশ ভাগ দিতে হবে কেনো?

চল দেখি সস্তায় কিছু পাওয়া যায় কিনা, দেখতে থাকি চল! কারণ কালকে যাব বাড়ি, আর এটাই আমার বল।

টিকিট শেষে আর পেলাম না, তবে এক ভাইয়ের ভাড়া করা বাসে ওঠার সুযোগ পেলাম, উঠে পর। চল! ওঠার পর দীর্ঘ যানজটে আটকা পড়লাম, কেমন লাগে বল? গরমে যেন সিদ্ধ হচ্ছি, ভাই বলল আরে এ জোয়ান ছেলে! গায়ে আছে তোর বল, উঠে পর ছাদে, এখানে কি করছিস বল?

উঠলাম ছাদে, ও আল্লাহ একি! এসব কি দেখছি? বাসে, ট্রাকে, সিএনজিতে, মোটরবাইকে, এ যেনো একেক লৌহমানবের দল! যা যা দেখলাম, জীবনে ভুলবো কেমন করে বল? মায়ের বুকে শিশু দিল বমি করে, মা এখন কি করবে বল? আঁচলে মুছে রওয়ানা দিলেন মা ট্রাকের মাঝে বসে।

বাবা নিয়েছেন বড় বোঝাটা আর ছেলে নিয়েছে ছোট বোঝাটা, তারা হাঁটতেই আছেন আর খুঁজেই চলেছেন, নিজের গন্তব্যে যাওয়ার প্রয়োজনীয় যান। কেনো বাজান? কারণ তারা ইদে যাবেন বাড়ি, আর এটাই তাদের বল।

ও আল্লাহ! রাতে পার্কে এনারা কারা?! মসজিদের বারান্দায় বসে আছেন, এখন তো নামাজের সময় নয়। ফুটপাতে গামছা বিছিয়ে বসে আছেন! ফুটপাত তো বসার জায়গা নয়!

এই সুন্দর অফিসের গেটের বাইরের ঘাসের উপর বসে রয়েছেন! এনারা কারা? ওরে! এনারাও দেখি একেক লৌহমানবের দল, রাতের টিকেট পাননি বলে, রয়েছেন বসে মশার দলে, সকাল হলেই যাবেন চলে।

যাবেন চলে তাদের কাছে, যাদের জন্যে খাটলেন সারাটি বছর ধরে। সারা বছর যান্ত্রিক খাটুনি আর সাথে আছে বসের, বাড়ির মালিকের নাগানি চুবানি। এসব ক্লান্তি দূর করতে, মানসিক শান্তি নিতে, ইদে ছুটে যায় এরা প্রিয়জনের কাছে, এজন্যেই শত কষ্ট হোক চল! প্রিয়জনের সাথে ইদ কাটতে হবে আর এটাই আমাদের বল।

এদের কে আটকাবে বলনা আমায়? নোংরা পানি, কাঁদা, পরিবহন সিন্ডিকেট, দ্বিগুণ তিনগুণ ভাড়া, কালোবাজারে টিকেট বিক্রেতারা তীব্র যানজট, প্রচণ্ড গরম, ঘাম, আর এই সুযোগে এক টাকার পানি, দুই টাকার খাবার তিন টাকায় বিক্রি করা লোকেরা?

এসব কিছুই তো আটকাতে পারলো না। আট ঘণ্টার যাত্রা চব্বিশ ঘণ্টা লাগলো, তবুও তো এরা থামলো না। এত কিছু সহ্য করছে এরা, কেনো বলবো না এদের লৌহমানব? শত অত্যাচার, জুলুম সবই সয়ে যাচ্ছে, যাচ্ছে তো যাচ্ছেই ওই প্রিয়জনদের কাছে,

এখন তুই থামবি কেনো বল? তোকেও তো যেতে হবে বহুদূর, বসতে হবে ওই রাষ্ট্রীয় চেয়ারে, তোকেই তো লাঘব করতে হবে এসব খেটে খাওয়া মানুষের কষ্ট। কেনো থামবি তুই? নেহ না আল্লাহর নাম! চল বহুদূর।

জানিস, কেমন করে এরা সহ্য করে এত অত্যাচার, জুলুম আর দুর্নীতি? ঠিক তেমনি করে, যেমন করে এরা সহ্য করে সকাল আটটায় কাজে ঢুকা আর শেষে অতিরিক্ত কাজ সহ এগারোটায় বের হওয়া। আর এনারাই যেনো আমার দেখায় সবথেকে সহনশীল শ্রেণির মানুষ!

তবে জানিস, দুর্নীতিবাজদের অত্যাচার খুবই বেড়ে গেছে, আর এসব লৌহমানবদের ধৈর্য্যের সীমা ছাড়িয়ে যাচ্ছে, শিঘ্রই হয়তো তারা এদের বিরুদ্ধে করবে শুরু লড়াই, কারণ এবার প্রশ্ন উঠেছে বাঁচা মরার।

এদের একটি লক্ষ্য প্রিয়জনদের কাছে যাওয়া, মৃত্যুও যেনো হয়না এদের সেই লক্ষ্যে বাধা, কারণ শেষে লাশ হলেও পৌঁছে যায় সেই প্রিয়জনদের কাছে, তো কি মনে হয়?

ইনশাআল্লাহ, আল্লাহই আছেন এনাদের সাথে। তো এখন কে আটকাতে পারবে এই লৌহমানবদের? যখন প্রিয়জনসহ থাকতে টিকে, লড়বে এরা অন্যায়ের বিরুদ্ধে, দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে।

তুইও হাল ছাড়িস না ভাই, এসব লৌহমানবদের নেতৃত্ব দিবি তুই তাই, ইনশাআল্লাহ, লড়তে হবে তোকেও।

শেষ করতে হবে নোংরা রাজনীতি, শুরু করতে হবে নতুনভাবে, সময় ফুরিয়ে আসতেছে, শুরু হয়েছে বৈশ্বিক লড়াই আর তীব্র প্রতিযোগিতা।

ওটায় টিকে থাকতে হলে হতে হবে এক, লড়তে হবে একসাথে তাই নতুন কিছু ভাব, আর নতুন করে স্বপ্ন দেখ।

লেখক : মো. গোলাম সরোয়ার সাইমুম, বড়বাড়ী, লালচাঁদপুর, খলেয়া, রংপুর সদর রংপুর।

নবীন- প্রবীন লেখীয়োদের প্রতি আহ্বান: সাহিত্য সুহৃদ মানুষের কাছে ছড়া, কবিতা, গল্প, ছোট গল্প, রম্য রচনা সহ সাহিত্য নির্ভর আপনার যেকোন লেখা পৌঁছে দিতে আমাদেরকে ই-মেইল করুন [email protected]
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো. তাজবীর হোসাইন  

নির্বাহী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118243, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড