• শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭  |   ২৩ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

শুভ জন্মদিন ‘কথার জাদুকর’

  সাহিত্য ডেস্ক

১৩ নভেম্বর ২০২০, ১০:২১
হুমায়ূন আহমেদ
হুমায়ূন আহমেদ (ছবি : সংগৃহীত)

সহজ-সরল ভাষার মধুরতায় নান্দনিক মায়াজালের রূপকার হুমায়ূন আহমেদের জন্মদিন আজ।

অলৌকিকতার মিশেলে বাংলা কথাসাহিত্যকে তুলে ধরা এই কথার জাদুকরের ৭২তম জন্মদিন আজ।

নেত্রকোনায় জন্মগ্রহণ করা হুমায়ূন আহমেদ একাধারে লেখক, সাহিত্যিক, চলচ্চিত্র পরিচালক, গীতিকার, নাট্যকার এবং অধ্যাপক (রসায়ন) হিসেবে পরিচিত। তিনি ১৯৪৮ সালের ১৩ নভেম্বর নেত্রকোনা জেলার কুতুবপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। বাংলা সাহিত্যের সংলাপ প্রধান নতুন শৈলীর জনক এবং আধুনিক বাংলা বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনীর পথিকৃৎ তিনি। তার প্রকাশিত গ্রন্থের সংখ্যা প্রায় তিন শতাধিক। ১৯৭২ সালে ‘নন্দিত নরকে’ নামে তার প্রথম উপন্যাস প্রকাশিত হয়।

জীবনের প্রথম উপন্যাসের নামকরণ ছিল এক অসাধারণ বিস্ময়কর। সাথে উপন্যাসের চিত্রনাট্যে দেখিয়েছিলেন চৌকষ মুন্সিয়ানা। এতে সাহিত্যবিশারদগন তখনই বুঝতে পেয়েছিলে, বাংলা সাহিত্যে নতুন এক ধূমকেতুর আবির্ভাব হচ্ছে।

তার সৃষ্ট হিমু, মিসির আলী ও শুভ্র চরিত্রগুলির দিকে তাকালে বুঝা যায় তিনি আসলে ধূমকেতু না নক্ষত্র ছিলেন। তার হাতে গড়া চরিত্রগুলো তরুণ থেকে শুরু করে সবার ভিতরে এক গভীর স্পন্দন সৃষ্টি করেছে। জীবদ্দশায় ছিলেন তিনি জনপ্রিয়তার তুঙ্গে। এছাড়া ‘নন্দিত নরকে’ এবং ‘শঙ্খনীল কারাগার’ উপন্যাস দু’টি দিয়ে যাত্রা শুরু করে বাংলা সাহিত্যকে সমৃদ্ধ করেছেন ‘জোছনা ও জননীর গল্প’, ‘কোথাও কেউ নেই’, ‘এইসব দিনরাত্রি’, ‘কবি’, ‘বাদশা নামদার’সহ অসংখ্য উপন্যাসে। তার সর্বশেষ ‘দেয়াল’ উপন্যাসটিও পেয়েছে আকাশচুম্বী পাঠকপ্রিয়তা।

লেখালেখির সঙ্গে সঙ্গে হুমায়ূন আহমেদ নির্মিত চলচ্চিত্রগুলোও সবার কাছে বিশেষ সমাদৃত হয়। ‘আগুনের পরশমণি’, ‘শ্রাবণ মেঘের দিন’, ‘দুই দুয়ারী’, ‘শ্যামল ছায়া’, ও ‘ঘেটুপুত্র কমলা’ চলচ্চিত্রগুলোর জন্য তিনি পেয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। এছাড়া তার নির্মিত ‘কোথাও কেউ নেই’, ‘এইসব দিনরাত্রি’, ‘অয়োময়’ ও ‘বহুব্রীহি’ বাংলা নাটকের অমর সৃষ্টি।

হুমায়ূন আহমেদ তার দীর্ঘ চার দশকের সাহিত্যজীবনে ভূষিত হয়েছেন বিভিন্ন পুরস্কারে। এরমধ্যে একুশে পদক, বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার, হুমায়ুন কাদির স্মৃতি পুরস্কার, লেখকশিবির পুরস্কার, মাইকেল মধুসূদন দত্ত পুরস্কার, জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ও বাচসাস পুরস্কার অন্যতম। এছাড়া বিভিন্ন সময় দেশের বাইরেও সম্মানিত হয়েছেন হুমায়ূন আহমেদ।

আরও পড়ুন : রুহু

বেঁচে থাকতে হুমায়ূন আহমেদের জন্মদিন ঘিরে নানা আয়োজনে মুখরিত থাকতো দখিন হাওয়া, নুহাশপল্লী। এখন তিনি নেই, ২০১২ সালের ১৯ জুলাই চলে যান অদেখার ভুবনে। তবু হুমায়ূনভক্তদের মন মানে না। দৃষ্টি সীমানার ওপারে যেন প্রিয় লেখক ভালো থাকেন- হুমায়ূন আহমেদের জন্মদিনে এই প্রত্যাশা।

নবীন- প্রবীন লেখীয়োদের প্রতি আহ্বান: সাহিত্য সুহৃদ মানুষের কাছে ছড়া, কবিতা, গল্প, ছোট গল্প, রম্য রচনা সহ সাহিত্য নির্ভর আপনার যেকোন লেখা পৌঁছে দিতে আমাদেরকে ই-মেইল করুন [email protected]
jachai
niet
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
niet

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: +8801703790747, +8801721978664, 02-9110584 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড