• বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০১৯, ৬ আষাঢ় ১৪২৬  |   ৩৩ °সে
  • বেটা ভার্সন

কবিতা : দেবলীনা

বনশ্রী বড়ুয়া

  সাহিত্য ডেস্ক ২৩ মে ২০১৯, ১০:৫৭

দেবলীনা
ছবি : প্রতীকী

কী অদ্ভুদ সুন্দর তুমি! 

রোজ যখন বারান্দায় এসে বসো আমি সব কিছু এলোমেলো করে ফেলি, গুবলেট হয়ে যায় সব,আমার ভেতরে ছুঁয়ে যায় দখিন হাওয়া।

আমি নিমগ্ন হই প্রার্থনায়,

দু'মিনিটের জন্য থেমে যাক সকল কিছু, পৃথিবীর ঘড়ির চাকা স্তব্ধ হোক। আমি শুধু তোমায় দেখি। স্নিগ্ধতার দেবী তুমি।

তোমার বরটা যেন কেমন, একটুও ভালোবাসে না তোমায়। অবশ্য আমি তাতে খুব খুশি। কেউ তোমাকে ছুঁয়ে দিক আমি তা চাই না। কিন্তু মাঝেমাঝে তোমার বরটার কী যেন হয়, তীব্র চুম্বনে তোমার ঠোঁটের কোলে হারায়, তোমার বুকের উষ্ণতায় ডুবে যেতে থাকে, আগুনের লেলিহান শিখায় দগ্ধ হই আমি ভীষনরকম।

এক এক দিন তোমার চোখ বৃষ্টিতে ভেসে যায়। এক এক দিন তুমি ঠিকানা হারাও। ভালবাসার খরায় ফেটে চৌচির হয় তোমার বুকের নরম ভূমি। অস্থিরতায় ভাসাও নিজেকে। কেন এমন কর তুমি?

কী এত কষ্ট তোমার দেবলীনা?

তোমার ওই বৃষ্টি আমাকে দ্বিখণ্ডিত করে, আমি সইতে পারি না। তখন ইচ্ছে করে ছুঁয়ে দেই তোমায় প্রচণ্ড ভালোবাসায়, আবেগী হাওয়ায়,

তোমার তো ইশ্বরে খুব ভক্তি।

তাকে বলো,

পরজন্মে আমি যেন মানব হই,

তুমি হবে মানবী,

আমাদের প্রেমে ভেসে যাবে রাজহংসের দল,

ভেসে যাব আমি তুমি,

এ জন্মের যত অপূর্ণতা, যত অতৃপ্তি,

বৃষ্টি জলে ভিজিয়ে নেব,

ভালবাসায় স্নান করে তৃপ্ত হব আমি।

আমি

তোমার প্রিয় দখিনের জানালা।

ওডি/এনএম

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড