• শনিবার, ২৪ আগস্ট ২০১৯, ৯ ভাদ্র ১৪২৬  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন

গণপরিবহনে নারী ধর্ষণ, নিরাপত্তা নিশ্চিতে আপনার করণীয়

  লাইফস্টাইল ডেস্ক

১১ মে ২০১৯, ১৫:৩৪
গণপরিবহনে নারী
ছবি : প্রতীকী

বর্তমানে শিক্ষা থেকে শুরু করে কর্মক্ষেত্র—সর্বত্র নারীর অংশগ্রহণ বৃদ্ধি পাচ্ছে। পুরুষের সঙ্গে তাল মিলিয়ে দেশ ও জাতির অগ্রযাত্রায় অংশ নিচ্ছেন নারীরাও। কিন্তু ঘরের বাইরে বের হলেও তাদের পথ চলতে হয় নিরাপত্তার শঙ্কা নিয়ে। এমনকি গণপরিবহনের মতো স্থানেও প্রতিনিয়ত ধর্ষণ, যৌন হয়রানির সম্মুখীন হচ্ছেন বিভিন্ন বয়সের নারীরা। 

বর্তমানে নারী ধর্ষণ যেন খুব স্বাভাবিক বিষয়। পত্রিকার পাতা, টিভি চ্যানেল, অনলাইন সংবাদ মাধ্যম সবখানেই প্রতিদিন মিলছে নারী ধর্ষণের খবর। কেবল ঘর নয়, রাস্তায় গণপরিবহনেও ধর্ষিত হচ্ছে নারী। যা থেকে বোঝা যাচ্ছে বর্তমানে ভয়ঙ্কর রূপ নিয়েছে এই ব্যাপারটি। একটি দেশের জন্য এমন কিছু মোটেও শুভকর নয়। 

গত বছরের ২৫ আগস্টের কথা। ময়মনসিংহের একটি প্রতিষ্ঠানে মার্কেটিং বিভাগে কর্মরত রূপা, বগুড়ায় শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে বাসে ময়মনসিংহ ফিরছিলেন। রূপা যে বাসে ফিরছিলেন সে বাসটি ঐদিন রাতে টাঙ্গাইলের এলেঙ্গা অতিক্রম করার পর সব যাত্রী নেমে যায়। এরপর বাসটি কালিহাতি এলাকায় পৌঁছার পর বাসের মধ্যেই ধর্ষণের শিকার হন রূপা। পরে তার মৃতদেহ পাওয়া যায় মধুপুর এলাকার জঙ্গলে।

সম্প্রতি আবারও চলন্ত বাসে নারী ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। শাহিনুর আক্তার তানিয়া সোমবার (৬ মে) বিকালে নিজ বাড়ি কিশোরগঞ্জের কটিয়াদি পিরিজপুরে আসার জন্য ঢাকার মহাখালী বাস টার্মিনাল থেকে স্বর্ণলতা পরিবহনের একটি বাসে উঠেন। রাত সাড়ে ৯টার দিকে কটিয়াদি আসার পর তানিয়া ও অপর দুই যাত্রী ছাড়া বাকি সবাই নেমে যান। কিছু দূর যাওয়ার পর অন্য দুই যাত্রীও নেমে যায়। বাসটি কিশোরগঞ্জ-ভৈরব সড়কের বাজিতপুর উপজেলার পিরিজপুর ইউনিয়নের বিলপাড় গজারিয়া নামক স্থানে পৌঁছানোর পর তাকে ধর্ষণ করা হয়। 

সবকিছু মিলিয়ে গণপরিবহন যেন নারীর জন্য এখন এক আতঙ্কের নাম। প্রতিটি মুহূর্তে একজন নারীর ভয়ে থাকতে হয়। বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির সমীক্ষা অনুযায়ী গত এক বছরে গণপরিবহনে ধর্ষণের শিকার হওয়া নারীর সংখ্যা ২১। যার প্রকৃত সংখ্যা আরও বেশি বলে জানান বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির মহাপরিচালক মোজাম্মেল হক চৌধুরী। 

এমন পরিস্থিতিতে গনপরিবহনে নিজেদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে নারীদের বেশ কিছু পদক্ষেপ গ্রহণের পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা- 

রাতের বেলায় খালি বাসে না চড়া- 

রাতের বেলায় বাড়ি ফেরার সময় যে কোনো নারীকে অবশ্যই সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। কখনই খালি বাসে চড়া যাবে না। পাশাপাশি বেশি রাত হলে খালি বাস কিংবা যে কোনো প্রতিষ্ঠানের বাসে ওঠা থেকে বিরত থাকুন। 

পথের খেয়াল রাখুন- 

আপনি যে পরিবহনে উঠেছেন তা কোন পথ দিয়ে যাচ্ছে তা খেয়াল রাখুন। নির্জন রাস্তা বা ঝুঁকি রয়েছে এমন কোনো পথ দিয়ে চলাচল করবেন না। 

শ্রমিকদের আচরণ নজরে রাখুন- 

গণপরিবহনে চলাচলের সময় শ্রমিকদের আচরণের দিকে খেয়াল রাখতে হবে। যদি কারও আচরণ সন্দেহজনক মনে হয় তবে নিরাপদ স্থানে নেমে পুলিশের সহযোগিতা নিন।

এছাড়াও মনে রাখবেন- 

● নির্জন এলাকা দিয়ে চলাচলের ক্ষেত্রে রাতে কখনোই একা গাড়িতে চড়বেন না।

● অনেক সময় দেখা যায় চেনা রুটে অল্প যাত্রী নিয়ে অচেনা বাস চলাচল করছে। পরিচিত প্রতিষ্ঠানের বাস ছাড়া ওঠবেন না।

● বাসে চড়ার আগে গাড়ির নম্বর প্লেট দেখে নিন।

● নিজের নিরাপত্তা নিশ্চিত করুন নিজেই। অনাকাঙ্ক্ষিত দুর্ঘটনা এড়াতে পারবেন তবে। 

তথ্যসূত্র- বিবিসি। 

ওডি/এনএম

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড