• বুধবার, ২২ মে ২০১৯, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬  |   ৩১ °সে
  • বেটা ভার্সন

মেঘালয় রাজ্যের পথে পথে (১ম পর্ব)

  লাইফস্টাইল ডেস্ক ০৮ মে ২০১৯, ১১:৪১

মেঘালয়
মেঘালয়ের কিছু দর্শনীয় স্থান; (ছবি : সম্পাদিত)

ভারতের ক্ষুদ্র রাজ্য মেঘালয়। মেঘালয় নামের আক্ষরিক অর্থ হলো "মেঘের আলয়"। বিট্রিশরা এই জায়গার নাম দেন "প্রাচ্যের স্কটল্যান্ড"। পৃথিবীতে সবচেয়ে বেশি বৃষ্টি হয় মেঘালয়ে। মেঘালয় রাজ্যের রাজধানী হলো শিলং। খাশি, জয়ন্তিকা, গারো এই তিনটি পাহাড় মেঘালয়কে ঘিরে রেখেছে।

মেঘালয় ভারতের অন্যতম সুন্দর প্রাকৃতিক দৃশ্যের অধিকারী স্থান। ধোঁয়াটে পাহাড় এবং মেঘের চিরস্থায়ী সম্পর্ক আপনাকে নিয়ে যাবে কল্পনার রাজ্যে। খাসিয়াদের জীবন ব্যবস্থা এবং মেঘেদের অপরুপ খেলা দেখতে প্রতি বছর হাজার হাজার পর্যটক ছুটে আসে রাজ্যটিতে।

মেঘালয়ের দর্শনীয় স্থানসমূহ-

সোনাংপেডেং-

ডাউকির অসম্ভব সুন্দর একটি গ্রাম সোনাংপেডেং। গ্রামটি শিলং শহর থেকে ৯৫ কিলোমিটার এবং ডাউকি বর্ডার থেকে ৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত।

পাশেই রয়েছে উমংগট নদী। নদীর পাশেই রয়েছে থাকার ছোট ছোট কটেজ। নদীর পানির রং ঘন সবুজ এবং স্বচ্ছ। নদীর জল এতই স্বচ্ছ যে পানিতে নৌকা চললে মনে হয় নৌকা হাওয়ায় ভাসছে। পাথুরে নদীতে স্নোরকেলিং, বোটিং, কায়াকিং, রাফটিং সবই করতে পারবেন।

আশেপাশে রয়েছে ঝর্ণা। ট্রেকিং, জিপলাইনিং ও করতে পারবেন মন চাইলে। বোটিং এর জন্য নির্ধারিত সময় সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা। কাছেই রয়েছে ঝুলন্ত ব্রীজ। ব্রীজের ওপর থেকে অনেকদূর পর্যন্ত নদীটি দেখা যায়। অনেক রাত পর্যন্ত এই পাহাড়ী নদীর গ্রামগুলোতে বসে জল এবং পাথরের অপূর্ব সংগীত শুনতে পাবেন।

মাওলিনং-

এটি হলো ভারত তথা এশিয়ার সবচেয়ে পরিচ্ছন্ন গ্রাম। ফুলে ভরা এই গ্রাম আপনার মন ভালো করে দিবে। ডাউকি থেকে মাওলিনং যেতে প্রথমেই পরবে লিভিং রুট ব্রিজ। মানে গাছের শিকড় দিয়ে রাস্তা। প্রাকৃতিক সেতুর পর দেখতে পাবেন গাছ বাড়ি (tree house)। গাছের ডালে বেত, বাঁশ দিয়ে তৈরি বাড়ি।

বেশ কয়েকটি খাসিয়া পরিবার নিয়ে ছোট গ্রাম মাওলিনং। বাড়িগুলো সাধারণ কিন্তু সুন্দর। এ গ্রামে গেলে অবশ্যই একদিন আপনার থাকতে মন চাইবে। প্রতিটা বাড়ির সামনে এবং রাস্তায় কিছু দূর পর পরই রয়েছে বাঁশের তৈরি ডাস্টবিন। এ গ্রামের কেউ যেখানে সেখানে ময়লা ফেলে না। এমনকি গাছের পাতা ছেড়াও নিষেধ।

এলিফ্যান্ট ফলস-

শিলং থেকে ১২ কিঃমিঃ দূরে অবস্থিত এই জলপ্রপাত। অনেক বছর আগে ভূমিকম্পে একটি পাথর ধসে পড়ে। পাথরটি দেখতে হাতির মতো বলে এর পাশের জলপ্রপাতকে বলা হয় এলিফ্যান্ট জলপ্রপাত। এই জলপ্রপাতের তিনটি ধাপ রয়েছে। সিঁড়ি দিয়ে নিচে নামলেই এক এক করে তিনটি ধাপ দেখতে পাবেন।

পরবর্তী পর্বে শিলং, চেরাপুঞ্জিসহ মেঘালয়ের আরও কিছু দর্শনীয় জায়গা সম্পর্কে আপনাদের জানাবো।

লেখক- লামিয়া আলভী।

ওডি/এনএম

দেশ কিংবা বিদেশ, পর্যটন কিংবা অবকাশ, আকাশ কিংবা জল, পাহাড় কিংবা সমতল ঘুরে আসার অভিজ্ঞতা অথবা পরিকল্পনা আমাদের জানাতে ইমেইল করুন- [email protected]
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড