• শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০১৯, ৭ বৈশাখ ১৪২৬  |   ২৬ °সে
  • বেটা ভার্সন

ব্রেকিং :

ভিসা জালিয়াতি এবং স্বপ্নের অপমৃত্যু

ভিসা জালিয়াতির শিকার হলে কী করবেন?

  অধিকার ডেস্ক    ১৯ মার্চ ২০১৯, ১৯:০৪

ভিসা জালিয়াতি

কুড়িগ্রামের চর রাজিবপুরে বসবাস করত রাজিব। জীবিকা নির্বাহের টানে, একটু ভালো থাকার আশায় মালেয়শিয়ায় পাড়ি জমান তিনি। কিন্ত ভাগ্যের নির্মম পরিহাসে তিনি এখন দিন কাটাচ্ছেন মালেয়শিয়ার কারাগারে।

তার মতোই আরেক হতভাগ্য তরুণ আসিফ। তার বাড়ি শরীয়াতপুরের নড়িয়া থানায়। কিন্তু এখন সে পৃথিবীর প্রাচীন সপ্তমাশ্চর্যের একটি পিরামিডের দেশ মিশরের কারাগারে অন্ধকারে দিন কাটাচ্ছে।

এ দুজনই আদম পাচারকারীদের খপ্পরে পড়ে জাল ভিসা নিয়ে দেশে প্রবেশ করতে গিয়ে ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষের হাতে ধরা পড়েন।

ভাগ্য পরিবর্তনের আশায় লাখ লাখ টাকা খরচ করে দেশটিতে এসে এখন দিন কাটছে অন্ধকার কারাগারে।

শুধু এ দুজনই নয়, তাদের মতো লাখ লাখ মানুষ এভাবে জাল ভিসায় প্রবেশ করতে গিয়ে দেশটির প্রচলিত আইনের মুখোমুখি হয়ে কাউকে কারাদণ্ড ভোগ করতে হয়, কাউকে বা বিমানবন্দর থেকেই ফিরতি উড়োজাহাজে তুলে দেওয়া হয়।

আবার অনেকেরই দেশ থেকে ফিরতি উড়োজাহাজ ভাড়াসহ আনুষাঙ্গিক খরচের অর্থ না পাঠানোয় বা বিনা বিচারে থেকে মুক্তি পেলেও দেশে ফেরার ভাড়া না থাকায় বাড়তি সময় জেলে দিন কাটায়।

মূলত ভিসা জালিয়াতি চক্রের খপ্পরে পড়ে তারা এই নির্মম ভাগ্য মেনে নিতে বাধ্য হন। এই ভিসা জালিয়াতি সুনির্দিষ্ট কোনো দেশের মধ্যে সীমাবদ্ধ নয়। বিশ্বের যে কোনো দেশে ভিসা জালিয়াতি হতে পারে।

আবার এই ভিসা জালিয়াতি চক্র ভিসা পাওয়ার জন্য ভুল তথ্য দিয়ে ভিসায় আবেদন করে, তথ্য গোপন বা মিথ্যা তথ্য প্রদান করে, ভিসা বিক্রি করে, অবৈধভাবে প্ররোচিত করা বা বৈধ ভিসা স্থানান্তর করাসহ নানাভাবে ভিসা জালিয়াতি করে।

এ ধরণের চক্র থেকে দূরে থাকার জন্য তাই কিছু সাবধানতা অবলম্বন করা উচিত। সবার আগে জানা উচিত কীভাবে ভিসা জালিয়াতি হয়।

১. সাধারণত ব্যক্তিগত তথ্য গোপন করে বা মিথ্যা তথ্য দিয়ে ভিসার জন্য আবেদন করা বা অভিবাসনের চেষ্টা করা হয়।

২. ভিসায় জাল নথি বা মিথ্যা তথ্য দেওয়া হয়।

৩. অনেকেই ভিসা পাওয়ার জন্য দালালকে টাকা দেয়।

৪. এছাড়া প্রলোভন,অযৌক্তিক প্রভাব বা অপপ্রচার চালিয়ে ভিসা আবেদনকারীদের আকৃষ্ট করা হয়।

ভিসা আবেদনের সময় নিম্নোক্ত বিষয়ে সচেতন থাকা উচিত

১. প্রত্যেক দেশের অনুমোদিত ভিসা আবদেন সেন্টারে আবেদন করা উচিত।

২. মনে রাখতে হবে, ভিসা আবেদন সেন্টারে ভিসা ফি দেওয়া ছাড়া আর কোন আর্থিক লেনদেন হয় না।

৩. ভিসা সফল করার জন্য ভিএফএস গ্লোবাল কোনো ধরনের সহায়তা করার ক্ষমতা রাখে না।

৪. কোনো ভিএফএস কর্মকর্তা বা কর্মচারী ভিসা ইস্যুর ক্ষমতা রাখে না। এ যোগ্যতা ও ক্ষমতা একমাত্র দূতাবাসের।

৫. ভিএফএস গ্লোবালে বর্তমানে বা অতীতে কর্মরত কোনো ব্যাক্তির কারও ভিসা প্রাপ্তিতে কোনো ধরনের হাত নেই।

৬. অবশ্যই মনে রাখতে হবে, কোনো দালাল বা এজেন্টের ভিসা সফল করার বা প্রাপ্তির কোনো ক্ষমতা বা প্রভাব থাকে না।

৭. ভিএফএস গ্লোবাল শুধু ভিসা আবেদন সম্পর্কিত প্রশাসনিক কার্যক্রমে জড়িত।

৮. মাথায় রাখতে হবে, ভিসা প্রাপ্তি বা ত্বরান্বিত বা নিশ্চিত করার জন্য কোনো ধরনের আর্থিক লেনদেন গুরুতর অপরাধ।

এতো সতর্কতার পরও অনেকেই ভিসা জালিয়াতির শিকার হয়। যদি এ ধরনের প্রতারণার শিকার হন, তাহলে নিম্নলিখিত পদক্ষেপগুলো অনুসরণ করবেন।

১. কখনো যদি সন্দেহ হয় যে, আপনি ভিসা জালিয়াতির শিকার হচ্ছেন, তখন তাৎক্ষণিকভাবে ভিএফএস গ্লোবাল কর্পোরেট নিরাপত্তা বিভাগকে ই-মেইলে ([email protected]) বিস্তারিত লিখুন।

২. সেই ই-মেইলে আপনার সঠিক তথ্য পরিষ্কারভাবে উল্লেখ করতে হবে। যেমন- নাম, যোগাযোগ নম্বর ও পূর্ণ ঠিকানা ইত্যাদি। ফলে ভিএফএস কর্তৃপক্ষ ভবিষ্যতে যে কোনো তথ্যের জন্য যোগাযোগ করতে পারে। তবে এটাও মনে রাখতে হবে, ভিএফএস সাধারণত ভুল তথ্য বা উদ্দেশ্য প্রণোদিত ই-মেইল গ্রহণ করে না।

দেশ কিংবা বিদেশ, পর্যটন কিংবা অবকাশ, আকাশ কিংবা জল, পাহাড় কিংবা সমতল ঘুরে আসার অভিজ্ঞতা অথবা পরিকল্পনা আমাদের জানাতে ইমেইল করুন- [email protected]
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড