• শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮, ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৫  |   ৩২ °সে
  • বেটা ভার্সন

নেদারল্যান্ড সম্পর্কে অজানা ১৩

  ফারিয়া এজাজ ০৭ নভেম্বর ২০১৮, ০৮:৫৯

নেদারল্যান্ড
ছবি : সম্পাদিত

পশ্চিম ইউরোপের বেলজিয়াম ও জার্মানির মাঝে ছোট একটি দেশ নেদারল্যান্ড। এ দেশের রয়েছে নানা মজার দিক, যার অনেকগুলোই হয়তো আপনার অজানা। আজকের লেখায় চলুন তেমনই কিছু মজার দিক সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক-

১। স্বাস্থ্যের দিক থেকে সেরা 

অক্সফামের একটি রিপোর্ট অনুযায়ী; বিশ্বের ১২৫টি দেশের মধ্যে পুষ্টি, স্বাস্থ্য ও খাবারের সাশ্রয়ী মূল্যের দিক থেকে নেদারল্যান্ড সবসময়ই সবার চাইতে এগিয়ে থাকে। আর তাই এই দেশটি সবচাইতে স্বাস্থ্যবান দেশ হিসেবে পরিচিত। 

২। সর্বাধিক উচ্চতা সম্পন্ন ব্যক্তিদের বসবাস এখানে 

নেদারল্যান্ডে ছেলেদের গড় উচ্চতা প্রায় ৬ ফুট এবং মেয়েদের ক্ষেত্রে প্রায় ৫ ফুট ৬ ইঞ্চি। সাধারণত ডাচ মানুষেরা উচ্চতায় পৃথিবীতে সবচাইতে লম্বা হয়ে থাকে। বিজ্ঞানীদের মতে; এর কারণ হলো তাদের ডিএনএ, পুষ্টি ও সমৃদ্ধি। কারো কারো মতে, তাদের এতো উচ্চতা হওয়ার পেছনের কারণ হলো তাদের প্রচুর পরিমাণে দুগ্ধজাত খাবার খাওয়া। 

৩। বিয়ারের সবচাইতে বড় উৎপাদনকারী 

ইউরোপের বিয়ার প্রস্তুতকারীদের মতে, বিশ্বের যে কোনো দেশের চাইতে নেদারল্যান্ডে সবচাইতে বেশি বিয়ার উৎপাদন করা হয়। অর্থাৎ, মোট উৎপাদিত বিয়ারের ৫০ শতাংশই আসে নেদারল্যান্ড থেকে। 

৪। হল্যান্ডের সাথে নেদারল্যান্ডকে গুলিয়ে ফেলবেন না যেন! 

নেদারল্যান্ড ও হল্যান্ড এক নয়। হল্যান্ড নেদারল্যান্ডের পশ্চিম উপকূলীয় অঞ্চলে অবস্থিত। মানুষ প্রায়ই নেদারল্যান্ড এবং হল্যান্ডকে গুলিয়ে ফেলে। 

৫। সর্বোচ্চ মানসম্পন্ন উদ্ভাবনগুলো হয় এখানে 

বলা হয়ে থাকে যে, ১৬ অথবা ১৭ শতাব্দীতে এই দেশেই মাইক্রোস্কোপ, টেলিস্কোপ, পেন্ডুলাম ঘড়ি এবং মারকিউরি থার্মোমিটার উদ্ভাবন করা হয়েছিল। 

৬। কাঠের জুতা 

এই দেশের আরেকটি মজার ও বিস্ময়কর ব্যাপার হলো যে, বহু আগে থেকেই সেখানকার মানুষেরা খড়ম বা কাঠের জুতা বা ‘কোম্পেন’ পরে আসছে। এই খড়মগুলোই পরবর্তী সময়ে ডাচ সংস্কৃতির প্রতীক হয়ে যায়। আজকাল সবাই-ই সেখানে সাধারণ জুতা পরে, তবে এখন পর্যন্ত এই খড়মগুলো পর্যটকদের বেশ আকর্ষণ করে। 

৭। উইলহেল্মাস, সবচাইতে পুরাতন জাতীয় সঙ্গীত 

এই জাতীয় সঙ্গীতটি হলো পৃথিবীর সবচাইতে পুরাতন জাতীয় সঙ্গীত। এই জাতীয় সঙ্গীতের গানের কথা ও সুর দুটোই ১৬ শতাব্দীর। তাদের জাতীয় সঙ্গীতটি এমন যে, একজন ডাচ রাজা তাঁর জার্মান রক্ত নিয়ে কথা বলেন যাতে স্প্যানিশ মুকুটের প্রতি তাঁর আনুগত্য প্রকাশ পায়। 

৮। গাড়িঘোড়া নয়, শুধুই সাইকেল! 

১৯৮০ সালের প্রথমদিকে এই দেশটির শহরের ৪০০০ জন মানুষেরা সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন যে, গাড়ি চালানোর বদলে তাঁরা সবাইকে সাইকেল চালানোর জন্য অনুপ্রাণিত করেন। ডাচ শহর হিউটন পৃথিবীর সবচাইতে সুরক্ষিত শহর হিসেবেও পরিচিত। 

৯। পোষা প্রাণীদের জন্য রয়েছে বিশেষ অধিকার 

দেশটিতে পশু নির্যাতনের জন্য রয়েছে কঠোর শাস্তি। সাম্প্রতিক একটি সরকারি অনুমোদনের ঘোষণা থেকে জানা যায় যে, দেশটিতে কোনো পরিত্যাক্ত কুকুর বা বিড়াল নেই। 

১০। পুলিশ কর্মকর্তা হিসেবে কোনো ইঁদুরকে কাজ করতে দেখেছেন? 

দেশটির রটারডেম অঞ্চলের পুলিশ বাহিনীতে ২০১৩ সাল থেকে ইঁদুর যুক্ত করা হয়েছে। পুলিশ বাহিনী তাদের সাথে ইঁদুরকে সংযুক্ত করেছেন, কারণ ইঁদুরের ঘ্রাণ বোধ, নেশা জাতীয় বস্তু, গানপাউডার বা বিস্ফোরক খুঁজে বের করার শক্তি থাকার জন্য। যা মূলত অন্য কারো বা কোনো কিছুর চাইতে এই ইঁদুররাই ভালো করতে পারবে। 

১১। ইংরেজিতে সর্বাধিক দক্ষতা 

ডাচরা ইংরেজি ভাষায় কথোপকথনে বেশ বিশারদ। ২০১৬ সালের করা একটি জরিপের মতে, নেদারল্যান্ডের স্কোর ৭২ দশমিক ১৬। সেক্ষেত্রে ডেনমার্ক ও সুইডেন রয়েছে যথাক্রমে দ্বিতীয় ও তৃতীয় অবস্থানে। ডাচরা গড়ে ১০ জনের মধ্যে ৯ জনই দ্বিতীয় ভাষা হিসেবে ইংলিশে কথা বলে থাকেন। 

১২। পেট্রোল কিংবা ডিজেল কোনোটিই নেই 

সবুজ শক্তি উন্নয়নের জন্য এই দেশের সরকার ২০২৫ সাল নাগাদ পেট্রোল ও ডিজেল চালিত গাড়ি বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা দিবেন বলে পরিকল্পনা করেন। সেখানকার সরকারের পরিকল্পনা হলো ভবিষ্যতে রাস্তাঘাটে শুধু ইলেকট্রিক গাড়ি চলাচল করবে। 

১৩। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে বেশ নিচে 

এই দেশটি সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে এতটাই নিচে যে, এর ৫০ শতাংশ তার চাইতে বেশি জায়গা সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে মাত্র ১ মিটার উপরে। এর রাজধানী অ্যামস্টারড্যামও সমুদ্রপৃষ্ঠের ২ মিটার নিচে অবস্থিত। 

তথ্যসূত্র : ওহফ্যাক্ট 
 

দেশ কিংবা বিদেশ, পর্যটন কিংবা অবকাশ, আকাশ কিংবা জল, পাহাড় কিংবা সমতল ঘুরে আসার অভিজ্ঞতা অথবা পরিকল্পনা আমাদের জানাতে ইমেইল করুন- [email protected]
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড