• মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

মেঘের রাজ্যে কিছুক্ষণ

  লাইফস্টাইল ডেস্ক

১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৪:৩৬
কংলাক পাহাড়
সূর্য উঠার সাথে সাথে যেন আরেক অপরূপ দৃশ্য হাজির (ছবি- সম্পাদিত)

ভোর ৫টা বেজে ১০ মিনিট। টুংটাং বেজে উঠলো মোবাইল ফোনের অ্যালার্ম। অভ্যাসগত ভাবেই অ্যালার্ম বন্ধ করে আবার ঘুমিয়ে পড়লাম। ঠিক ১৫ মিনিট পর পাপ্পু ভাইয়ের ডাক। আজাহার, তাড়াতাড়ি উঠ। বাকিদের ও ডাক। সাড়ে ৫টা বাজে। ঘুমিয়েছিলাম রাঙামাটির ছাদ হিসেবে পরিচিত সাজেকের দু’টি রিসোর্টে প্রতি রুমে ৪/৫ জন করে।

সবাই দ্রুত উঠে রেডি হয়ে নিলাম। উদ্দেশ্য মেঘের বিচরণ দেখতে কংলাক পাহাড়। সকাল ৬টায় চান্দের গাড়িতে (জীপ) করে মেঘের সঙ্গে সখ্যতা করতে যাব সবাই। আগের দিন বলা হয়েছিল কেউ গাড়ি মিস করলে তাকে রেখে যাওয়া হবে।

রেডি হয়ে রুম থেকে বেরিয়ে পড়লাম সবাই। রাস্তায় গাড়ির সামনে সবার সমাগম। উদ্দেশ্য কংলাক পাহাড়। ড্রাইভার আসছে না। সবাই অস্থির কখন যাবো মেঘের রাজ্যে বিচরণ করতে।

এ দিকে কেউ একজন লক্ষ্য করল রাস্তার ধার থেকে মেঘমালা দেখা যাচ্ছে। অনেকে আবার কোনোভাবেই বিশ্বাস করছে না। কেউ কেউ কুয়াশা বলে হাসাহাসি করছে। একেকজন পক্ষে বিপক্ষে একেক ধরনের যুক্তি দিচ্ছে। পাল্টাপাল্টি যুক্তি দিতে দিতেই ড্রাইভার আসলো। তখন ৬টা বেজে ১৭ মিনিট। এদিকে কারও আর অপেক্ষা সইছে না। উঠে পড়লাম গাড়িতে মেঘের সঙ্গে মিতালি করতে।

চান্দের গাড়ি (জীপ) চলল কংলাক পাহাড়ের উদ্দেশ্যে। কংলাক হচ্ছে সাজেকের সর্বোচ্চ চূড়া। উইকিপিডিয়ার তথ্য মতে এই পাহাড়ের চূড়া ভূপৃষ্ঠ হতে ১ হাজার ৮০০ ফুট সুউচ্চ। কংলাকে যাওয়ার পথে মিজোরাম সীমান্তের বড় বড় পাহাড়, আদিবাসীদের জীবনযাপন, চারদিকে মেঘের আনাগোনা দৃষ্টি কেড়ে নেয়।

গাড়ি এসে থামল পাহাড়ের নিচে। বাকি পথ হেঁটে উঠতে হবে। গাড়ি থেকে নেমে পাহাড়ি পথ বেয়ে সবাই হাঁটা শুরু করলো। কেউ আবার পাহাড়ি রাস্তার ভিডিও করছে। একপর্যায়ে উঠে পড়লাম কংলাক পাহাড়ের চূড়ায়। যেখান থেকে মেঘমালার ভেসে বেড়ানোর মনোমুগ্ধকর দৃশ্য উপভোগ করা যায়।

কংলাকের চূড়ায় উঠার সঙ্গে সঙ্গেই দৃশ্য উপভোগ করার পাশাপাশি অনেকে সেলফি, ছবি তোলা, ভিডিও করায় মেতে উঠে। মন বলে, ‘আমি যদি পাখি হতাম, তবে মেঘের সঙ্গে উড়ে বেড়াতে পারতাম।’

আরও পড়ুন : ১৫ মিনিটেই যাওয়া যাবে নেপাল, ভাড়াও লাগবে কম

সূর্য উঠার সঙ্গে সঙ্গে যেন আরেক অপরূপ দৃশ্য হাজির। সূর্যের আলোয় মেঘমালা যেন নতুন সাজে সুসজ্জিত হয়ে উঠলো। তুলার মতো ভেসে বেড়াচ্ছে মেঘ। পাহাড়ের গায়ে যেন আটকে যাচ্ছে। মেঘে ঢেকে যাচ্ছে পাহাড়। 

আহা! কী মনোমুগ্ধকর দৃশ্য। সত্যি সত্যি মেঘের রাজ্যে হারিয়ে যেতে মন চায়। মন গেয়ে উঠে, ‘মন চায় মন চায়, যেদিকে চোখ যায়, সেদিকে যাবো হারিয়ে’। হারানোর স্বপ্ন দেখতে দেখতেই সময় হয়ে এলো ফিরে যাওয়ার। কিন্তু ফিরে যেতে মন চায় না। কবির ভাষায় ‘যেতে নাহি মন চায়, তবু চলে যেতে হয়।’ 

লেখক : আজাহার ইসলাম, শিক্ষার্থী, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়

ওডি/এনএম

দেশ কিংবা বিদেশ, পর্যটন কিংবা অবকাশ, আকাশ কিংবা জল, পাহাড় কিংবা সমতল ঘুরে আসার অভিজ্ঞতা অথবা পরিকল্পনা আমাদের জানাতে ইমেইল করুন- [email protected]
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড