• বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯  |   ৩২ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

মৃত্যুর কোল থেকে ফিরে সফল উদ্যোক্তা হাদীউজ্জামান

  সুমাইয়া আখতার তারিন

২০ জানুয়ারি ২০২২, ১২:৩০
গাজী হাদীউজ্জামান
গাজী হাদীউজ্জামান

তার নাম গাজী হাদীউজ্জামান। জন্ম খুলনার এক মধ্যবিত্ত পরিবারে। ছোট বেলায় বাবাকে হারিয়ে চাচার পরিবারে বেড়ে ওঠেন তিনি। এরপর অনেক সংগ্রাম কাটিয়ে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন। ভর্তির দুই বছর যেতে না যেতেই ২০১৯ সালের জুলাইয়ে জিবিএস ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্যারালাইজড হয়ে যান হাদীউজ্জামান। সুস্থ হওয়ার উপায় একটাই, তা হলো ভ্যাকসিনেশন। যাতে খরচ হবে ১০ লাখ টাকার বেশি, যা মধ্যবিত্ত পরিবারের সাধ্যের বাইরে। এরপর শিক্ষক, শিক্ষার্থী, সহপাঠী, শুভাকাঙ্ক্ষীসহ সবার সহযোগিতায় ঢাকার নিউরো সায়েন্স হাসপাতালের আইসিইউতে থাকা হাদীউজ্জামান মৃত্যুর কোল থেকে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফেরেন।

মৃত্যুর কোল থেকে ফিরে আসা হাদীউজ্জামান এরপর দুই বছর অ্যাকাডেমিক গ্যাপে পড়েন। এতে মানসিকভাবে বিধ্বস্ত হয়ে পড়েন তিনি। হতাশা তৈরি হয় তার মধ্যে। এর আগে নিয়মিত কোচিংয়ে ক্লাস নিলেও তা বন্ধ হয়ে যায় করোনার জন্য। ক্রমশ হতাশা বাড়তে থাকে তার। সকল আয়ের পথ বন্ধ হওয়ায় হতাশ হাদিউজ্জামানের মাথায় নতুন বুদ্ধি আসে। শুরু হয় উদ্যোক্তা হওয়ার অধ্যায়। কঠোর পরিশ্রমী হাদীউজ্জামান কাজে লেগে থাকেন। এরপর কাঙ্ক্ষিত সফলতা ধরা দেয় তার কাছে।

দেশের বিভিন্ন স্থানের বিখ্যাত পণ্যসামগ্রী নিয়ে 'বিখ্যাত পণ্য সম্ভার' নামে অনলাইন ব্যবসা শুরু করেন তিনি। অল্পদিনেই সকলের কাছে বিশ্বস্ত হয়ে ওঠেন হাদীউজ্জামান। যেসব পণ্য অন্যান্য জায়গায় সহজে পাওয়া যায় না সেসব পণ্য হাদীর কাছে পাওয়া যায় নিমিষেই। প্রাকৃতিক মধু, খুলনার বিখ্যাত চুইঝাল, পুরাণ ঢাকাইয়া বকরখানি, সাতক্ষীরার ঘি, যশোরের গুড় এবং ঘানি ভাঙানো সরিষার তেলসহ বিভিন্ন দুষ্প্রাপ্য পণ্য পাওয়া যায় তার কাছে। ব্যবসা করে নিজে স্বাবলম্বী হওয়ার পাশাপাশি তার প্রতিষ্ঠানে অনেককেই চাকরি দিয়েছেন তিনি, ধরেছেন পরিবারের হাল।

শুধু উদ্যোক্তাই না, পরোপকারী হিসেবেও বিশ্ববিদ্যালয় এবং নিজ এলাকায় পরিচিত হাদীউজ্জামান। ছোটবেলা থেকেই মানুষের সেবা করার স্বপ্ন দেখতেন তিনি। বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ার পর তার স্বপ্ন ক্রমশ বাস্তবতার দিকে এগোতে থাকে। যুক্ত হন স্বেচ্ছায় রক্তদাতাদের সংগঠন বাঁধনের ববি শাখার সঙ্গে। সেখান থেকে রোগীদের সর্বাধিক পরিমাণ রক্ত সংগ্রহ করে দেওয়ার রেকর্ডও গড়েন তিনি।

বন্যার্তদের জন্য ত্রাণ সহায়তা, নিজ এলাকায় বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় ক্যাম্প, অস্বচ্ছল মানুষদের চিকিৎসার জন্য অর্থ সংগ্রহ, শীতার্তদের জন্য শীতবস্ত্র বিতরণসহ বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী কাজে যুক্ত তিনি। 'শেখাই' নামের একটি ভিন্নধর্মী শিক্ষামূলক প্ল্যাটফর্মের পরিচালক প্যানেলেও বর্তমানে যুক্ত আছেন হাদীউজ্জামান। নিজ ব্যবসার লাভের একটা অংশ দিয়ে '১০ টাকার পাঠশালা' নামক প্রতিষ্ঠানের খরচ বহন করছেন তিনি।

উদ্যোক্তা হাদীউজ্জামান বলেন, আঙুল ফুলে কলা গাছ হওয়ার ইচ্ছা কখনও হয় না। তাইতো আস্তে আস্তে করেই এগিয়ে যেতে চাচ্ছি ও সেই অনুযায়ী কাজ করছি।

তরুণ প্রজন্মের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, চাকরি না পেয়ে কেউ হতাশ হবেন না। ছোট হোক বড় হোক যে কাজই করবেন সেটা মন দিয়ে করুন। পরিশ্রম করতে পারলে সফলতা অবশ্যই ধরা দেবে।

ভবিষ্যত পরিকল্পনার কথা জানতে চাইলে তিনি অধিকারকে বলেন, ব্যবসার বিভিন্ন প্ল্যানকে কাজে লাগানোর চেষ্টা করছি ও একজন সফল উদ্যোক্তা হওয়ার লক্ষ্যে উৎপাদনমুখী পরিকল্পনা শুরু করেছি।

ওডি/নিমি

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড