• শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

সফল উদ্যোক্তা জাবিনের পথচলা

  নিশীতা মিতু

০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ১০:৪২
দিলশাদ শারা জাবিন
জাবিন'স এর কর্ণধার দিলশাদ শারা জাবিন

একজন সফল নারী উদ্যোক্তা দিলশাদ শারা জাবিন। পোশাক প্রতিষ্ঠান ‘জাবিন’স’ এর কর্ণধার তিনি। রাজধানী ঢাকায় দুটো শোরুম রয়েছে জাবিন’স এর। উদ্যোক্তা এই নারীর সঙ্গে গল্প হলো তার ব্যবসা নিয়ে, স্বপ্ন নিয়ে আর নিজের কিছু গল্প নিয়ে।

কাপড় কাটাকাটি আর নকশা নিয়ে ছোটবেলা থেকেই ঘাঁটাঘাঁটি করছেন জাবিন। ছেলেবেলার স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে জানালেন সে কথাই। জাবিন বলেন, ছোটবেলায় পুতুল খেলা আমার সবচে প্রিয় ছিল। পুতুলের জন্য পোশাক তৈরি করতে খুব ভালো লাগতো। কাপড় কেটে পোশাক তৈরিতে আনন্দ পেতাম ভীষণ। ক্লাস ৭/৮ এ পড়ার সময় নিজের হাতে কাজ করা পোশাক পরতাম। সবাই সেসব পোশাক খুব পছন্দ করতেন।

পোশাকের সঙ্গে জাবিনের সখ্যতা বেশ পুরোনো। কলেজে পড়াকালীন পোশাকে ব্লকের কাজ করে সেই পোশাক পরতেন। সেসব পোশাক দেখে সহপাঠী বা শিক্ষকরা এত পছন্দ করলেন যে তারাও অর্ডার করা শুরু করলেন। জাবিন আর তার বোন সেসব অর্ডার নিতে লাগলেন। একসময় এত কাজের অর্ডার আসতে লাগলো যে কাজের চাপে পড়াশোনায় মনোযোগ কমে যাচ্ছিল। তখন বাবা কাজ বন্ধ করে দিতে বললেন।

বাবার আদেশে সাময়িকভাবে কাজ বন্ধ করলেও মাথা থেকে নেশা কী আর সরে? খারাপ লাগলেও মনকে বুঝিয়েছেন বড় হয়ে এই পোশাক নিয়ে কাজ করবেন। কিন্তু পোশাক নিয়ে কাজ করতে চাইলে তো আগে সে বিষয়ে জানা লাগবে, পড়াশোনা করা লাগবে। এখানেও বাবার বাধা। জানিয়ে দিলেন, ফ্যাশন ডিজাইনিং নিয়ে পড়তে পারবেন ঠিকই তবে তা মাস্টার্স শেষ করার পর।

বাবার কথাই রেখেছেন জাবিন। ইংরেজি সাহিত্যে অনার্স, মাস্টার্স শেষ করেছেন। সেসঙ্গে রেখেছেন নিজেকে দেওয়া ওয়াদাও। শুরু করেছেন পোশাক নিয়ে ব্যবসা। সেসঙ্গে ফ্যাশন ডিজাইনিং নিয়ে ডিপ্লোমাও করছেন।

জাবিন নিজের অনুভূতি প্রকাশ করে বলেন, যদিও একটু দেরি হয়েছে তাও তো পড়ছি। সন্তান, সংসার, ব্যবসা সবকিছু সামলে পড়াশোনা করাটা একটু কঠিন হয়ে পড়ে। তবুও অন্যরকম ভালো লাগে। নিজের পছন্দের বিষয়ে পড়তে পারছি বলে কথা।

জাবিন'স এর কিছু পোশাক

বর্তমানে ব্যবসা নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটছে জাবিনের। ২০১৪ সালে এডিসি এম্পায়ার প্লাজাতে প্রথম শোরুমের যাত্রা শুরু করেন। এরপর দ্বিতীয় শোরুম দেন সীমান্ত সম্ভারে। জাবিন’স এ রয়েছে ডিজাইন করা কুর্তি, টু পিস, আবায়া, টপস ইত্যাদি।

কাপড় সংগ্রহ থেকে ডিজাইন করা সবকিছু জাবিন নিজেই করেন। আর তাই অন্যদের থেকে জাবিন’স এর পোশাক ভিন্ন হয়ে থাকে- এমনটাই দাবি করেন তিনি। জাবিন বলেন, আমি সব পোশাক নিজে ডিজাইন করে তৈরি করি। তাই পোশাকে নিজের পছন্দের একটা ছাপ থাকে। কিছু পোশাক রয়েছে যেগুলোতে আমার নিজের করা হাতের কাজও থাকে।

সাত বছর ধরে ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত আছেন জাবিন। ক্রেতার সঙ্গে বেশ ভালো সম্পর্ক গড়ে উঠেছে এ ক বছরে। জাবিনের মতে, ব্যবসা ক্ষেত্রে ক্রেতার সঙ্গে ভালো ব্যবহার করা বেশ জরুরি। ক্রেতা যখন ঠিক তখন তো অবশ্যই, এমনকি তিনি ভুল হলেও।

ব্যবসাক্ষেত্রে কৃতজ্ঞতা জানাতে হলে কাকে জানাতে চান? জাবিন বলেন, বাবা আর স্বামীকে। তারা দুজন না থাকলে কখনোই এতদূর আসা হতো না। সবসময় তাদের সব ধরনের সাহায্য পেয়েছি।

নতুন করে যেসব নারীরা ব্যবসা করতে চান তাদের উদ্দেশে জাবিন বলেন, কাউকে অনুকরণ করবেন না। নিজের ওপর, নিজের কাজের ওপর নির্ভর করে আগাতে হবে। আর অবশ্যই অনেক ধৈর্য নিয়ে কাজ করবেন, তাহলে কখনো থেমে যেতে হবে না।

নিজের কাজকে নিয়ে অনেকদূর যাওয়ার স্বপ্ন দেখেন জাবিন। দেশের বাইরেও যেন জাবিন’স স্বীকৃতি পায় সে স্বপ্নও দেখেন। সেই লক্ষ্যেই প্রতিনিয়ত কাজের মান ভালো করে যাওয়ার চেষ্টা করেন। সফল এই নারী উদ্যোক্তা এগিয়ে যাক তার স্বপ্নকে সঙ্গী করে।

ওডি/নিমি

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড