• বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২২ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

সানস্ক্রিন কেন ব্যবহার করবেন?

  সাদিয়া ইসলাম বৃষ্টি

১১ জুলাই ২০১৯, ১৩:৩৮
সানস্ক্রিন
ছবি : প্রতীকী

সানস্ক্রিন যে আমাদের শরীরে ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে তা নিয়ে নানারকম গবেষণা হয়েছে। লেখালেখিও হয়েছে প্রচুর। কিন্তু তারপরও সানস্ক্রিন কেন ব্যবহার করবেন? এই উপাদানটি কি সত্যিই অনেক খারাপ? চলুন, আজ সানস্ক্রিন কেন ব্যবহার করবেন সেটা জেনে নেওয়া যাক- 

ত্বকের সুরক্ষা নিশ্চিত করে-

আপনি যে চিকিৎসককেই জিজ্ঞেস করেন না কেন, তাদের প্রত্যেকেই একটি ব্যাপারে আপনাকে নিশ্চিত করবে। আর ব্যাপারটি হলো এই যে, ত্বকে সারাদিন সূর্যের আলো সরাসরি পড়লে এতে করে ত্বকের কোষ নষ্ট হয়ে যায়। সূর্যের আল্ট্রাভায়োলেট রশ্মি থেকে দূরে থাকতে হ্যাট বা ছাতাও সবসময় কাজে আসে না। ফলে ত্বকের কোনো সমস্যা থেকে শুরু করে ক্যানসার পর্যন্ত হতে পারে। এই সমস্যা থেকে আপনাকে সহজেই মুক্ত করতে পারে সানস্ক্রিন।

স্কিন ক্যানসার প্রতিরোধ করে-

আল্ট্রাভায়োলেট রশ্মির কারণেই ৮০-৯০ শতাংশ ত্বকের ক্যানসার হয়ে থাকে। আর এই ক্যানসারের পরিমাণ অনেক বেশি। সানস্ক্রিন এক্ষেত্রে ব্যাসেল সেল কারসিনোমা, ম্যালানোমা, স্কোয়ামাউস সেল কারসিনোমা ইত্যাদির ঝুঁকি অনেক বেশি কমিয়ে দেয়। 

ক্ষতির চেয়ে লাভটা বেশি-

এমন না যে সানস্ক্রিন পুরোটাই উপকারী। সানস্ক্রিনের অনেক খারাপ দিক আছে। এটি শরীরে ভিটামিন ‘ডি’ এর অভাব তৈরি করতে পারে। তবে তার অর্থ এই নয় যে, আল্ট্রাভায়োলেট রশ্মি থেকে ভিটামিন ‘ডি’ পাওয়া যায়। তাই যতটা সম্ভব এটি থেকে দূরে থাকাটাই ভালো। অন্যদিকে, সাধারণ সানস্ক্রিন ঘাম এবং অন্যান্য কারণে ঘণ্টা দুয়েকের মধ্যেই কাজ করা বন্ধ করে দেয়। এ জন্য আপনি বেছে নিতে পারেন উন্নত মানের ক্রিম। ক্ষতিটা অনেক কম হবে তাতে। অন্যদিকে, আপনার শরীর ঠিক যা যা দরকার তার সবটাই পাবে। 

বয়সের ছাপ কম পড়ে-

বয়স হয়ে গেলে তার একটা ছাপ আমাদের ত্বকে পড়েই যায়। গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে, ৫৫ বছর বয়সী নারীদের মধ্যে যারা সানস্ক্রিন ব্যবহার করেন তাদের ত্বকে বয়সের ছাপ অন্যদের তুলনায় ২৪ শতাংশ কম পড়ে। আমাদের ত্বকের ভাঁজ, কালো দাগ এবং অন্যান্য ব্যাপারগুলোর পেছনে আছে পরিবেশের প্রভাব। এই প্রভাব থেকে মুক্ত থাকতেই সানস্ক্রিন আমাদের সাহায্য করে।

সানবার্ন- 

সূর্যের সরাসরি সংস্পর্শে আসলে ত্বক সবসময় যে উপকৃত হয় তা না। নেতিবাচক অনেক প্রভাবও এতে করে পড়ে। আর ত্বকে যে অ্যালার্জি, ব্রণ ও অন্যান্য সমস্যা তৈরি হয়, যেগুলোর পেছনেও এই ক্ষতিকারক আল্ট্রাভায়োলেট রশ্মি কাজ করে। 

অনেক সময় ত্বকে পোড়া দাগ হয়ে যায় এই কারণে। এই সমস্যাগুলো থেকে দূরে থাকার ভালো একটি উপায় হলো সানস্ক্রিন ব্যবহার করা। আপনার শরীরের কিছু অংশের রং একরকম এবং কিছু অংশের রং অন্যরকম, এমনটা নিশ্চয় খেয়াল করেছেন। এই ব্যাপারটি থেকে দূরে থাকতেও সানস্ক্রিন ব্যবহার করাটা বেশ কার্যকরী। এটি ত্বকের উপরে এমন একটি প্রলেপ তৈরি করে যেটি ভেদ করে সূর্যের আলো অতিরিক্ত পরিমাণে প্রবেশ করতে পারে না। 

মেকআপ করার সময়-

মেকআপ করতে গেলে অনেক সময় এমন কিছু প্রসাধনী ব্যবহার করতে হয় যেটি আপনার ত্বকে বাজে প্রভাব ফেলতে পারে। গরমে মেকআপ খুব বেশি সময় ত্বকে ভালোভাবে থাকেও না। এই দুটো সমস্যাই দূর করার সেরা উপায় হিসেবে কাজ করতে পারে সানস্ক্রিন। এটি ত্বকে সতেজ একটা ভাব এনে দেয়। মেকআপ অনেক বেশি সময় ধরে স্থায়ী হয়। এছাড়া, প্রসাধনী সরাসরি ত্বকের সংস্পর্শে না আসতে পাওয়ায় এর কোনো নেতিবাচক প্রভাবও ত্বকে পড়ে না।

হ্যাঁ, এই এতগুলো সুবিধা আছে সানস্ক্রিনের। তার মানে এই নয় যে, সানস্ক্রিন পুরোপুরি ইতিবাচক একটি জিনিস। সানস্ক্রিনের এমন অনেক দিক আছে যেটি নিয়ে এখনো গবেষণা করা হচ্ছে।

তবে এখানে আবার সেই ভালো ব্র্যান্ডের কথা চলে আসে। মানে ভালো এমন সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন। সেক্ষেত্রে, অপকারিতার চাইতে উপকারিতাই বেশি পাবেন আপনি সানস্ক্রিন থেকে।

সূত্র- ওয়েবএমডি

ওডি/এনএম

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড