• সোমবার, ১৭ জুন ২০১৯, ৩ আষাঢ় ১৪২৬  |   ৩৩ °সে
  • বেটা ভার্সন

সহজে ঘুম আসবে যে উপায়ে

  লাইফস্টাইল ডেস্ক ১২ জুন ২০১৯, ২০:৫৪

ঘুম
ছবি : প্রতীকী

যুক্তরাজ্য এবং অস্ট্রেলিয়ার বেশ কয়েকজন বিজ্ঞানীর গবেষণায় উঠে এসেছে ঘুম নিয়ে অদ্ভুত কিছু তথ্য। তারা তাদের গবেষণা থেকে বলছেন, ‘ঘুমের অভ্যাস বদলে দিতে পারলেই পাল্টে ফেলা যায় মানুষের দেহ ঘড়িকে। এতে করে বেড়ে যায় মানুষের সুস্থ থাকার পরিমাণও।‘

কর্মব্যস্ত একটি দিন পাড় করে ঘরে ফিরলেন ক্লান্ত হয়ে। বালিশে মাথা রাখলেন ঠিকই কিন্তু ঘুম তো আসেনা। ঘুম না আসার চিন্তায় আরো আসেনা ঘুম। এই সমস্যাটি বর্তমানে বেশিরভাগ মানুষকেই ভোগাচ্ছে। বিশেষ করে উঠতি বয়সী তরুণদের মধ্যে এ সমস্যা প্রকট। চাইলেই সহজেই ঘুম না আসার সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব। চলুন তাহলে জেনে আসি সমাধান ।

যে কয়টি কাজ করবেন না

মোবাইল ফোন ব্যবহার :

ঘুমাতে যাবার আগে কখনওই মোবাইল ব্যবহার করবেন না। ফেসবুক, ইউটিউব বা কোন ভিডিও গেম খেললে আপনার ক্লান্ত মস্তিষ্ক আরো সচল হয়ে পড়ে। এর ফলে ঘুম আসে না। ঘুমানোর কমপক্ষে চল্লিশ মিনিট আগে ফোনের সংস্পর্শ ত্যাগ করতে হবে। এমনকি মোবাইল ফোন বালিশের নিচে বা মাথার কাছে রেখে ঘুমানোর চেষ্টা করবেন না।

সন্ধ্যার পর চা-কফি :

সূর্য ডোবার পর চা, কফি পানের অভ্যাস ত্যাগ করুন। স্নায়ু উত্তেজক কোন পানীয়ও পান থেকে বিরত থাকুন। ঘুমানোর ইচ্ছাকে জাগিয়ে রাখতে চাইলে এই অভ্যাসটিকে ত্যাগ করতে হবে আপনার।

রাত মানেই মুভি দেখা :

রাত জেগে মুভি দেখাটা অনেকের নেশার মতন। সারাদিনের ক্লান্তি দূর করতে এটা কাজে দিলেও আপনার অজান্তেই কেড়ে নিচ্ছে আপনার ঘুম । ঘুমকে সুরক্ষিত রাখতে চাইলে মুভি দেখার অভ্যাস কমিয়ে আনতে হবে। আর অবশ্যই এমন সব মুভি বর্জন করবেন যা স্নায়ুকে উত্তেজিত করে।

দুশ্চিন্তা :

ঘুমানোর আগে অনেকেই বিভিন্ন ব্যাপারে দুশ্চিন্তা করেন। এই কারণে ঘুম পালিয়ে যায়। মনে রাখবেন দুশ্চিন্তা হচ্ছে ঘুমের প্রধান শত্রু। যারা প্রতিদিন বিভিন্ন ব্যাপারে দুশ্চিন্তা করেন তারা নিজেকে প্রশ্ন করতে পারেন, দুশ্চিন্তা করে আসলে কোন উপকার পেয়েছেন কীনা। দুশ্চিন্তা করলে আসলে কোন লাভই হয়না। তাই চেষ্টা করুন দুশ্চিন্তা থেকে দূরে থাকতে।

যে অভ্যাসগুলো গড়ে তুলবেন

নির্দিষ্ট সময়ে ঘুমাতে যাওয়া :

প্রতিদিন একটি নির্দিষ্ট সময়ে ঘুমাতে যাবার অভ্যাস করুন। সারাদিনের কাজগুলোকে একটা নিয়মের মধ্যে নিয়ে আসুন। মনে রাখবেন, নিয়মানুবর্তিতাই পারে আপনাকে সুস্থ রাখতে।

বই পড়া :

বই পড়ার একটা অভ্যাস গড়তে পারেন। ঘুমাতে যাবার আগে হালকা বা মজাদার কোন বই না পড়ে একটু গুরুগম্ভীর বিষয়ের বই পড়ুন। দেখবেন আপনাতেই ঘুম চলে আসবে।

পরিষ্কার হয়ে ঘুমাতে যাওয়া :

ঘুমাতে যাবার আগে হাত-পা ভাল মত ধুয়ে আসুন। দরকার হলে গোসলও করতে পারেন। আরামদায়ক এবং পরিষ্কার জামা পরে বিছানায় যাবেন। বিছানাটাও পরিষ্কার হওয়া আবশ্যক।

খাবারে সতর্কতা :

রাতের খাবারে অল্প পরিমাণে খান। বেশি খাবার হজম হতে বেশি সময় নেয় ফলে ঘুম আসতে দেরি হয়। খাবারের মেন্যুতে বেশি বেশি শাক সবজি রাখুন।

প্রচুর পানি পান করুন :

সারাদিনে কাজের ফাঁকে ফাঁকে প্রচুর পানি পান করুন। এতে আপনার দেহের তাপমাত্রার ভারসাম্য বজায় থাকবে। ফলে ঘুম আসবে তাড়াতাড়ি।

ব্যায়াম করুন :

নিয়মিত ব্যায়ামের অভ্যাস করুন। ফলে শরীরও সুস্থ থাকবে। পরিপাক তন্ত্রও ঠিক মত কাজ করবে । আর ব্যায়াম করে ক্লান্ত হলে ঘুম তো আসবেই।

সূত্র : বিবিসি

ওডি/এসএম

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড