• মঙ্গলবার, ২১ মে ২০১৯, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬  |   ৩৩ °সে
  • বেটা ভার্সন

রমজানে দূরে থাকুক গ্যাস্ট্রিক

  লাইফস্টাইল ডেস্ক ১৪ মে ২০১৯, ১৯:৩০

এসিডিটি
ছবি : প্রতীকী

পবিত্র রমজান মাস পড়েছে এবার গ্রীষ্মকালে। গরমের এই সময়ে ১৪ থেকে ১৫ ঘণ্টা রোজা থাকতে হচ্ছে। ফলে অনেকের জন্যই রোজা রাখাটা বেশ কষ্টকর। বিশেষ করে যারা গ্যাস্ট্রিকের মতো সমস্যায় ভুগছেন তাদের জন্য এবারের রোজা বেশ কঠিনই। তবে যতটা না পরিবেশের জন্য রোজায় কষ্ট পাচ্ছেন তার চেয়ে বেশি কষ্ট বানিয়ে নিচ্ছেন নিজেই।

ইফতারের সময়ে আমাদের দেশের বেশিরভাগ মানুষ ভাজাপোড়া খেয়ে থাকেন। সেহেরির সময়েও নিজের অজান্তেই খেয়ে থাকেন অনেক ক্ষতিকর খাবার। এর ফলে গ্যাস্ট্রিকে আক্রান্তদের সমস্যা অনেকগুণ বেড়ে যায়। ভয়াবহ বিপদের হাত থেকে মুক্ত থাকতে রোজার এই সময়ে গ্যাস্ট্রিকে আক্রান্তদের মেনে চলতে হবে কিছু নিয়ম কানুন। বিশেষ করে খাবার গ্রহণের ক্ষেত্রে বেশ সতর্ক থাকতে হবে। চলুন জেনে নেওয়া যাক রোজায় গ্যাস্ট্রিক থেকে মুক্ত থাকতে কিছু পরামর্শ।

ইফতারে পানি এবং খেজুর :

যতই ভাজাপোড়া জাতীয় খাবার পছন্দ করেন না কেন ইফতারের সময় কোনোভাবেই সেসব খাবার খাবেন না। দীর্ঘ সময় খাবার গ্রহণ থেকে বিরত থাকায় হুট করে এইসব তৈলাক্ত খাবার খেলে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করতে পারে। একই সাথে এইসব খাবারের কারণে বুক জ্বালাপোড়ার মতো সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে। তাই ইফতারের আয়োজনে এমন সব খাবারই রাখুন যা আপনার স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। বিশেষ করে খেজুর এবং পানি দিয়ে ইফতার করলে গ্যাস্ট্রিকের কোনো সমস্যাই দেখা দেবে না। তবে ট্যাং বা লেবুর শরবত জাতীয় কিছু পান করা থেকে বিরত থাকুন।

দই, চিড়া ও কলা :

গ্যাস্ট্রিকের সমস্যায় ভোগা রোগীদের জন্য সবচেয়ে ভালো খাবার হলো চিড়া, দই এবং কলা। অনেকেই আছেন যাদের অল্পতেই গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা দেখা দেয় তাদের জন্য রোজার সময়ে এটি একটি বড় পথ্য হিসেবে কাজ করবে। তবে কেউ কেউ আছেন যারা দই-চিড়া পছন্দ করেন না। তাদের জন্যও সমাধান আছে। তারা ইফতারের সময়ে নরম ভাত বাঁ জাউ ভাত খেতে পারেন। এতে শরীর ঠিক থাকবে। রোজা রেখেও গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা থেকে দূরে থাকা যাবে।

রাতে ভাত খাবেন :

সারা দিন না খেয়ে থেকে রোজা রাখতে হয় তাই যারা গ্যস্ট্রিকের সমস্যায় ভুগছেন তাদের উচিত হবে রাতে ভাত খাওয়া। অনেকেই আছেন যারা ইফতারের সময়ে যা খাওয়ার খেয়ে নেন। পরে আর কিছু খান না। এমনটি করবেন না। চেষ্টা করুন রাতে অল্প পরিমাণে হলেও ভাত খেতে। তবে ডাল জাতীয় খাবার পরিহার করুন। শাক খেলেও অনেকের সমস্যা হতে পারে। তেল, মসলা এবং কম ঝাল দিয়ে রান্না করা তরকারি খেলে আরাম পাবেন।

ডাক্তারের পরামর্শ নিন :

রোজা রাখতে গিয়ে যদি গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা হয় তবে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ গ্রহণ করুন। মনে রাখবেন এসব ক্ষেত্রে দেরি করলে এর ফলাফল ভালো না হবারই সম্ভাবনা বেশি। তাই আগে থেকে সচেতন থাকলে সহজেই মোকাবেলা করা যাবে বড় কোনো দুর্ঘটনা। যেসব খাবার আপনার পেটের মধ্যে অস্বস্তি সৃষ্টি করে সেসব খাবার পুরোপুরি এড়িয়ে চলাই উচিত হবে।

ওডি/এসএম

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড