• বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০১৯, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন

নিজেই নিজের বিপদ ডেকে আনছেন না তো?

  লাইফস্টাইল ডেস্ক ২৬ এপ্রিল ২০১৯, ১৬:১৪

রাস্তার পাশে ফল
রাস্তার পাশের এইসব খোলা ফলমূল হতে পারে অকালে মৃত্যুর কারণ। ( ছবি : সংগৃহীত )

গ্রীষ্মকাল চলছে। বছরের এই সময়টাতে সূর্যের তাপ অনেক বেশি। এই সময়ে প্রচণ্ড রোদে শরীর ঘেমে যায় খুব সহজেই। ঘন ঘন ক্ষুধা লাগাটাও হয় গরমের কারণে। ঘন ঘন ভারী খাবার না খেয়ে অনেকেই শরীর জুড়াতে বেছে নেন নানা রকম মৌসুমি ফলমূল। রাস্তার পাশেই পাওয়া যায় অনেক ভ্রাম্যমাণ ফলের দোকান। যেগুলোতে কাটা ফল কিংবা ফলের জুস বিক্রি হয়। উপকারী কিছু দিয়ে পেট ভরাতে এসব ফল খাচ্ছেন অনেকেই। তবে এসব ফল কতটা স্বাস্থ্যসম্মত তা নিয়ে ভেবেছেন কখনো?

শরীরের জন্য এসব ফল যতটা ভাল ভেবে খাচ্ছেন ঠিক ততটাই ক্ষতির কারণ হতে পারে এইসব দোকানের কাটা ফল। এসব খাবার গ্রহণের মাধ্যমে আসলে অসুখকেই আমন্ত্রণ জানাচ্ছেন নিজের অজান্তেই। ক্ষেত্রবিশেষে মৃত্যুকেও।

জ্বী, হ্যাঁ। সত্যিই তাই। গরম, পিপাসা কিংবা ক্ষুধা নিবারণের সব উপাদান থাকা সত্ত্বেও রাস্তার পাশে কাটা এসব ফল কিংবা ফলের জুস পান থেকে দূরে থাকার পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকরা। তাদের মতে আমাশয়, টাইফয়েড, ডায়রিয়ার মতো রোগ ছাড়াও আরও নানান বিপদজনক রোগের আঁতুড়ঘর বলা যায় এ ধরণের খাবারকে।

মেডিসিন বিশেষজ্ঞদের মতে, রাস্তার পাশে কাটা ফল থেকে মানব শরীরে ঢুকে পড়ছে ব্যাসিলাস, সালমোনেল্লা, স্টেফালাইকোক্কাস এবং সিউডোমোনাসের মতো ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া। যা মানব দেহের জন্য মারাত্মক ক্ষতির কারণ হতে পারে। বিশেষ করে এসব ব্যাকটেরিয়া পেটের নানা পীড়ার জন্য দায়ী। এছাড়া রাস্তার পাশে তৈরি করা ফলের জুস থেকে খুব সহজেই শরীরে প্রবেশ করতে পারে হেপাটাইটিসের মতো প্রাণঘাতী রোগের জীবাণুও।

বিশেষজ্ঞদের মতে, গরমে এসব ফল থেকে জুস বানাতে ব্যবহার করা হয় খুবই নিম্নমানের বরফ। যে বরফ মাছের আড়তে ব্যবহার করা হয় সেখানকার বরফই ব্যবহার করা হয় এসব জুস এবং শরবত বানাতে। বিশেষ করে রাজধানী ঢাকার গুলিস্তান, যাত্রাবাড়ি, মিরপুর, ফার্মগেট, মহাখালী এবং নিউমার্কেট এলাকাসহ পুরো শহরজুড়েই এসব দোকানের উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়। যাত্রাবাড়িতে রয়েছে অনেক মাছের আড়ত। সেগুলোকে কেন্দ্র করে গড়ে ওঠেছে অনেক বরফ কারখানা। এসব কারখানা থেকে খাবারের অযোগ্য বরফ সরবরাহ হচ্ছে বিভিন্ন ফলের জুসের দোকানে। এসব নিম্নমানের বরফ দিয়ে মাছ সংরক্ষণ করলেও মানুষের দেহে নানান রোগ জীবাণু প্রবেশ ঘটে সহজেই। আর লাচ্ছি বা ফলের জুস হলে তো কথাই নেই।

গরমের এই সময়ে রাস্তার পাশের খাবার খাওয়ার ক্ষেত্রে বেশকিছু সতর্কতা অবলম্বন করতে পারেন। বিশেষ করে ফল কেনার পর নিরাপদ পানি দিয়ে তা ধুয়ে তারপর খান। ফলের দোকান বাছার আগে সতর্ক হোন। পরিষ্কার এবং স্বাস্থ্যকর পরিবেশ আছে এমন দোকান থেকে ফল কিনুন। খুব দরকার না হলে এসব দোকান এড়িয়ে চলাই শ্রেয়।

কাজেই নিজের শরীরে কথা ভেবে বিরত থাকুন রাস্তার দোকান থেকে আঢাকা ফল বা জুস খাওয়া থেকে।

ওডি/এসএম

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড