• বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

এইচআইভি এইডসের প্রাথমিক উপসর্গ কী কী?

  লাইফস্টাইল ডেস্ক

০১ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:৩৯
এইচআইভি এইডস
এইচআইভি এইডস (ছবি : প্রতীকী)

এইডস একটি ভয়ঙ্কর রোগ। বর্তমানেও এর কোনো ওষুধ আবিষ্কার হয়নি। এটি এইচআইভি (হিউম্যান ইমিউনোডেফিসিয়েন্সি ভাইরাস) দ্বারা সৃষ্ট হয়। যে ব্যক্তি এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয় তাদের একাধিক অঙ্গ বিকল হয়ে পড়ে। তাছাড়া রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও খুব দ্রুত হ্রাস পেতে থাকে।

এইচআইভি সংক্রমিত সব মানুষেরই যে শেষ পরিণতি এইডস তা কিন্তু নয়। সঠিক যত্ন ও ওষুধ গ্রহণের ফলে এখন এই সংখ্যা অনেক কমে গেছে। তবে যারা এই সংক্রমণের কারণে এইডসে আক্রান্ত হয় তাদের অনেকেরই একাধিক অঙ্গ বিকল হয়ে যায়।

বর্তমানে উন্নত স্বাস্থ্য ব্যবস্থার কারণে এইচআইভি সংক্রমিত ব্যক্তিরা স্বাস্থ্যকর জীবনযাপন করতে পারছেন, সাথে দীর্ঘায়ুও লাভ করেছেন। যার ফলে এই রোগটি এখন নিয়ন্ত্রণযোগ্য হয়ে উঠেছে।

২০২০ সালের শেষের সমীক্ষা অনুযায়ী পৃথিবীর প্রায় ৩৭.৭০ মিলিয়ন মানুষ এইচআইভিকে সঙ্গী করে বেঁচে আছেন। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য মতে, কেবল ২০২০ সালে এই রোগটিতে মৃত্যুবরণ করেন ৬ লাখ ৮০ হাজার মানুষ এবং এই এক বছরে নতুন করে এইচআইভিতে আক্রান্ত হন পৃথিবীর ১.৫ মিলিয়ন মানুষ।

এইডস সম্পর্কে বিশ্বব্যাপী সচেতনতা ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য প্রতি বছর পহেলা ডিসেম্বর বিশ্ব এইডস দিবস পালিত হয়। এটি সবচেয়ে ব্যাপকভাবে স্বীকৃত আন্তর্জাতিক স্বাস্থ্য দিবসগুলির মধ্যে একটি। এই দিবসটির লক্ষ্য হলো মানুষের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি করা, যারা মারা গেছেন তাদের স্মরণ করা এবং চিকিৎসা ও প্রতিরোধ পরিষেবার ক্ষেত্র বৃদ্ধি নিশ্চিত করা।

এইচআইভি এইডস রোগটির উপসর্গ এখন খুব সাধারণ রোগের মাধ্যমেও প্রকাশ পায়। কেউ কেউ জ্বর, মাথাব্যথা, ক্লান্তি, গলা ব্যথা, ফ্লুর মতো সাধারণ লক্ষণগুলো সম্পর্কে অভিযোগ করে। এই লক্ষণগুলি সাধারণত সংক্রমণের এক বা দুই মাসের মধ্যে দেখা দেয় আবার অনেকের ক্ষত্রে এটি দুই সপ্তাহ পর্যন্তও হতে পারে।

এইচআইভির প্রাথমিক দিকে যে লক্ষণগুলো দেখা যেতে পারে-

জ্বর মাথা ব্যথা ক্লান্তি বা অবসন্নতা লসিকা গ্রন্থি ফুলে উঠা, র‍্যাশ বা ফুসকুড়ি গলা ব্যথা পেশীতে ব্যথা রাতে ঘাম হওয়া পাতলা পায়খানা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা হ্রাস পাওয়া

আরও ছোট ছোট লক্ষণ যেমন- দাঁতের ব্যথা, মুখের ঘা হতে পারে।

এইচআইভি আক্রান্ত ব্যক্তিদের জন্য এই উপসর্গগুলো থেকে রক্ষা পাওয়া খুব কঠিন হয়ে পড়ে। ঘন ঘন সর্দি-কাশি হয়। আগের থেকে বেশি অসুস্থ থাকা এবং দীর্ঘদিন ধরে এই অসুস্থতা বিদ্যমান থাকা সমস্যা দেখা দেয়। অনেকে খুব ছোট উপসর্গ থেকেও অসুস্থ হতে পারেন যা সাধারণত জীবনের জন্য তেমন হুমকির কারণ হয় না।

তথ্যসূত্র- হিন্দুস্তান টাইমস

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

সহযোগী সম্পাদক: গোলাম যাকারিয়া

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

যোগাযোগ: 02-48118241, +8801907484702 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড