• বুধবার, ০৩ জুন ২০২০, ২০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ঘ্রাণশক্তি হারিয়ে ফেলাই কি করোনার লক্ষণ?

  স্বাস্থ্য ডেস্ক

০৪ এপ্রিল ২০২০, ১৭:৪২
করোনা ভাইরাস
করোনা ভাইরাস (ফাইল ছবি)

সম্প্রতি গবেষণায় জানা গেছে, হালকা থেকে মাঝারি ধরনের করোনা ভাইরাসের প্রভাবের ক্ষেত্রে প্রথমে ঘ্রাণশক্তি লোপ পায় এবং পরবর্তীতে স্বাদের। প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস বা কোভিড-১৯ এর সবচেয়ে প্রাথমিক ও ব্যতিক্রমী লক্ষণ হলো এটা।

বার্তাসংস্থা সিএনএন এর চিফ মেডিকেল করেসপন্ডেন্ট ড. সঞ্জয় গুপ্তা বলেন, ‘এটাকে বলা হয় অ্যানোজমিয়া (Anosmia), যার ফলে রোগীদের গন্ধ পাওয়ার ক্ষমতা নষ্ট হয়। যার সঙ্গে খাবারের স্বাদ, ক্ষুধাভাব কমে যাওয়া সম্পর্কিত।’ তবে কি ঘ্রাণশক্তি হারিয়ে ফেলাই করোনার লক্ষণ?

গবেষণায় দেখা গেছে, করোনা ভাইরাসের ক্ষেত্রে প্রধান লক্ষণগুলো হলো- জ্বর, সর্দি-কাশি ও শ্বাসকষ্টের সমস্যা। তবে সাম্প্রতিক সময়ের পরিসংখ্যান থেকে উঠে এসেছে, দক্ষিণ কোরিয়ায় অন্তত ৩০ শতাংশ করোনা ভাইরাসের রোগী গন্ধ না পাওয়ার সমস্যায় ভুগেছেন। এছাড়া জার্মানিতে প্রতি ৩ জনের মধ্যে দুইজনের মাঝেই অ্যানোজমিয়ার লক্ষণ প্রকাশ পেয়েছে।

এ বিষয়ে অ্যামেরিকান অ্যাকাডেমি অব ওটাল্যারিঙ্গওলজি-হেড অ্যান্ড নেক সার্জারি এবং মার্কিন যুক্তরাজ্যের ইএনটি ইউকে জানিয়েছে, স্বাদ ও গন্ধ না পাওয়ার সমস্যাটির সঙ্গে করোনা ভাইরাসের আক্রান্তের সংযোগ থাকতে পারে।

কীভাবে বুঝবেন ঘ্রাণশক্তি লোপ পেয়েছে?

গন্ধ না পাওয়ার বিষয়টি হুট করে চিহ্নিত করা এবং বোঝা সম্ভব হয় না। এই সমস্যাটিকে দ্রুত বুঝতে পারার জন্য ‘জেলিবিন টেস্ট’ নামক একটি পরীক্ষা বের করা হয়েছে। জেলিবিন হল একধরনের ফ্লেভার্ড সুগার ক্যান্ডি। তবে পরীক্ষাটি শুধু জেলিবিন নয়, অন্য যেকোনো খাবারের সাহায্যেও করা যাবে।

পরীক্ষাটির জন্য একহাতে একটি জেলিবিন নিয়ে অন্য হাতের সাহায্যে শক্তভাবে নাক চেপে ধরে রাখতে হবে। এই অবস্থাতেই জেলিবিন মুখে দিয়ে চিবাতে হবে। জেলিবিনের মিষ্টিভাব পুরো মুখে ছড়িয়ে পড়লে ধীরে নাক খুলতে হবে। নাক খোলার সঙ্গে সঙ্গেই জেলিবিনের ফ্লেভার ও গন্ধ এসে ধাক্কা দিবে ইন্দ্রিয়তে। তখন বোঝা যাবে যে জেলিবিনটি আসলে কোন ফ্লেভারের ছিল, কারণ তখন তার গন্ধ নাক গ্রহণ করতে পারবে। বিজ্ঞানীরা এই প্রক্রিয়াটির নাম দিয়েছেন ‘রেট্রো নাসাল অলফ্যাকশন’।

অবশ্যই সকল ক্ষেত্রে গন্ধ পাওয়ার ক্ষমতা হারানোর সঙ্গে করোনা ভাইরাস সম্পর্কিত নয়। সাধারণ ঠান্ডার সমস্যা, সর্দি ও ফ্লু থেকেও এই সমস্যাটি দেখা দেয় এবং কিছুদিনের মধ্যে ঠিকও হয়ে যায়। এছাড়া নাসাল পলিপ, টিউমার, ট্রমাটিক ব্রেইন ইনজুরি অথবা হেড ট্রমা থেকেও এই সমস্যাটি দেখা দেয়।

আরও পড়ুন : একটি দুটি নয়, বিশ্বজুড়ে ছড়িয়েছে ৮ প্রজাতির করোনা ভাইরাস!

তবে যদি কোনো কারণ ও সমস্যা ছাড়া হুট করেই গন্ধ পাওয়ার ক্ষমতা লোপ পায়, সেক্ষেত্রে সমস্যাটিকে গুরুত্ব দিয়ে দেখতে হবে।

এ ব্যাপারে নিউ ইয়র্কের ল্যাংগন হেলথের স্লিপ ওটাল্যারিঙ্গওলজি বিভাগের ডিরেক্টর এবং নাক-কান-গলা বিশেষজ্ঞ ড. এরিক ভয়েজ জানিয়েছেন, ‘কারণ ব্যতীত গন্ধ না পাওয়ার সমস্যার ক্ষেত্রে রোগীর দ্রুত আইসোলেশনে যেতে হবে এবং অন্যদের কাছ থেকেও দূরে থাকতে হবে। সেই সঙ্গে যত দ্রুত সম্ভব করোনা ভাইরাস শনাক্তকরণ পরীক্ষা করাতে হবে।’

ওডি

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড