• সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯, ২৯ আশ্বিন ১৪২৬  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

জঙ্গি হামলার শঙ্কায় দিল্লিতে উচ্চ সতর্কতা

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

০৩ অক্টোবর ২০১৯, ১৪:২২
দিল্লিতে সতর্কতা
দিল্লির গুরুত্বপূর্ণ স্থানে তল্লাশি অভিযান চালাচ্ছেন নিরাপত্তা রক্ষীরা। (ছবিসূত্র : ইন্ডিয়া টিভি)

ভারতীয় সংবিধান সংশোধনের মাধ্যমে ভূস্বর্গ খ্যাত জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করায় অঞ্চলটিতে ইতোমধ্যে এক থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। যা নিয়ে সৃষ্ট উত্তেজনাকর পরিস্থিতির মধ্যে এবার রাজধানী নয়া দিল্লিতে জঙ্গি হামলার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। যে কারণে বৃহস্পতিবার (৩ অক্টোবর) সকাল থেকে শহরের বিভিন্ন এলাকায় তল্লাশি অভিযান শুরু করেছে দিল্লি পুলিশের স্পেশাল সেল। 

পুলিশ সূত্রের বরাতে বার্তা সংস্থা ‘এএনআই’ জানায়, রাজধানী দিল্লি ও এর আশপাশে পাকিস্তানি জঙ্গিরা হামলা চালানো হতে পারে বলে তথ্য পাওয়া গেছে। এ কারণে শহরের বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। তাছাড়া গোটা শহরে এরই মধ্যে উচ্চ সতর্কতাও জারি করা হয়েছে।

দিল্লি পুলিশের দাবি, গত বুধবার (২ অক্টোবর) পাকিস্তান থেকে কাশ্মীর হয়ে জঙ্গিরা সড়ক পথে সরাসরি দিল্লিতে প্রবেশ করেছে। তারা যে কোনো সময় হামলা চালাতে পারে। মূলত এমন তথ্যের ভিত্তিতে গোটা শহরে উচ্চ সতর্কতা জারি করা হয়েছে। 

সমস্ত ভারতের মতো রাজধানী দিল্লিতেও এখন পূজার আয়োজন চলছে। মূলত সেই উৎসবকে কেন্দ্র করেই শহরের বিভিন্ন স্থানে হামলা চালানো হতে পারে আশঙ্কা পুলিশের।

যার অংশ হিসেবে কাশ্মীরের জম্মু, অমৃতসর, পাঠানকোট, জয়পুর, গান্ধীনগর, কানপুর, লক্ষ্ণৌসহ অন্তত ৩০টির বেশি শহরে জঙ্গি হামলার শঙ্কায় এরই মধ্যে উচ্চ সতর্কতা জারি করেছে প্রশাসন। তাছাড়া শপিং মল, রেল স্টেশন, বাজারের মতো জনবহুল বিভিন্ন এলাকায় হামলা চালানো হতে পারে বলেও বিভিন্ন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থাগুলো তাদের সতর্ক বার্তায় জানিয়েছে।

এর আগে পাকিস্তানি জঙ্গিরা ভারতে হামলা চালাতে পারে বলে আশঙ্কা জানিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। বুধবার (২ অক্টোবর) ওয়াশিংটনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে যুক্তরাষ্ট্রের ইন্দো-প্যাসিফিক নিরাপত্তা বিষয়ক অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি রান্দাল স্ক্রিভার এসব কথা বলেন। 

তার মতে, ‘ইসলামাবাদ যদি পাকপন্থি জঙ্গি গোষ্ঠীর নিয়ন্ত্রণ রাখতে না পারে তাহলে তারা কাশ্মীর ইস্যুতে ভারতের বিভিন্ন অঞ্চলে সন্ত্রাসী হামলা চালাতে পারে।’

পাক-ভারতের বৈরী সম্পর্কের কথা স্মরণ করে রান্দাল স্ক্রিভার বলেছেন, ‘আমি মনে করি সংশ্লিষ্ট অনেকেই জঙ্গিদের নিয়ন্ত্রণে রাখার বিষয়ে পাক সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়ে উদ্বিগ্ন। কেন না কাশ্মীরে চলমান উত্তেজনার কথা মাথায় রেখে জঙ্গিরা সীমান্ত পার হয়ে হামলা চালাতে পারে। যুক্তরাষ্ট্র মনে করে না যে, চীন কখনোই এমন সংঘাত চায় বা সমর্থন করে।’

এর আগে গত ৫ আগস্ট ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ ধারা বাতিলের মাধ্যমে জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করেছিল ক্ষমতাসীন মোদী সরকার। যার প্রেক্ষিতে পরবর্তীতে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে বিতর্কিত লাদাখ ও জম্মু ও কাশ্মীর সৃষ্টির প্রস্তাবেও সমর্থন জানানো হয়।

এসবের মধ্যেই চলমান কাশ্মীর ইস্যুতে পাক-ভারত মধ্যকার সম্পর্কে নতুন করে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে। এরই মধ্যে একে একে ভারত সরকারের সঙ্গে বাণিজ্য, যোগাযোগসহ সব ধরনের সম্পর্ক ছিন্নের ঘোষণা দিয়েছে প্রতিবেশী পাকিস্তান। যদিও এমন সংকটময় পরিস্থিতিতে ভারত পাশে পেয়েছে রাশিয়াকে এবং পাক সরকারের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের তেলসমৃদ্ধ দেশ ইরান।

আরও পড়ুন :- কাশ্মীর ইস্যুতে এবার চীনা প্রেসিডেন্টের সঙ্গে মোদীর বৈঠক

ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারসহ রাজ্যের স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে সেখানকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক বলে জানানো হলেও; কাশ্মীর জুড়ে এখনো সংঘর্ষ ও গ্রেফতারের ঘটনা ঘটছে বলে দাবি পাকিস্তানের।

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড