• বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯, ৩০ কার্তিক ১৪২৬  |   ৩২ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

কাশ্মীরি শিশুদের রক্ষায় জাতিসংঘের প্রতি মালালার আহ্বান

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৮:৫২
মালালা ইউসুফজাই
শান্তিতে নোবেল জয়ী পাকিস্তানি নাগরিক মালালা ইউসুফজাই। (ছবিসূত্র : দ্য ইন্ডিয়া টুডে)

ভারতীয় সংবিধান সংশোধনের মাধ্যমে ভূস্বর্গ খ্যাত জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করায় অঞ্চলটিতে ইতোমধ্যে এক থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। যা নিয়ে পরবর্তীতে সৃষ্ট উত্তেজনাকর পরিস্থিতির মধ্যে এবার উপত্যকাটির স্কুল শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে জাতিসংঘের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন শান্তিতে নোবেল জয়ী পাকিস্তানি নাগরিক মালালা ইউসুফজাই। 

সূত্রের বরাতে পাক গণমাধ্যম 'দ্য ডন' জানায়, শনিবার (১৪ সেপ্টেম্বর) একাধিক টুইটার পোস্টে তিনি এ আহ্বান জানান। মালালা বলেন, 'কাশ্মীরের সকল শিক্ষার্থীরা যাতে আবারও নিরাপদে স্কুলে যেতে পারে; সে বিষয়ে জাতিসংঘের আসন্ন সাধারণ অধিবেশনে যেন ফলপ্রসূ আলোচনা হয়।'

এর আগে গত ৫ আগস্ট ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ ধারা রদের মাধ্যমে জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করেছিল ক্ষমতাসীন মোদী সরকার। যার প্রেক্ষিতে পরবর্তীতে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে বিতর্কিত লাদাখ ও জম্মু ও কাশ্মীর সৃষ্টির প্রস্তাবেও সমর্থন জানানো হয়।

এসবের মধ্যেই চলমান কাশ্মীর ইস্যুতে পাক-ভারত মধ্যকার সম্পর্কে নতুন করে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে। এরই মধ্যে একে একে ভারত সরকারের সঙ্গে বাণিজ্য, যোগাযোগসহ সব ধরনের সম্পর্ক ছিন্নের ঘোষণা দিয়েছে প্রতিবেশী পাকিস্তান। যদিও এমন সংকটময় পরিস্থিতিতে ভারত পাশে পেয়েছে রাশিয়াকে এবং পাক সরকারের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের তেলসমৃদ্ধ দেশ ইরান।

ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারসহ রাজ্যের স্থানীয় প্রশাসন সেখানকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক বলে জানানো হলেও; কাশ্মীর জুড়ে এখনো সংঘর্ষ ও গ্রেফতারের ঘটনা ঘটছে বলে দাবি পাকিস্তানের। এরই মধ্যে গত শুক্রবার (১৩ সেপ্টেম্বর) টানা ৩৯ দিন পর রাজ্যটিতে আরোপিত কারফিউ তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় ভারত সরকার।

এ দিকে ভূস্বর্গ খ্যাত অঞ্চলটির 'বিশেষ মর্যাদা' বাতিলের মাধ্যমে রাজ্যটিকে দুটি আলাদা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ভাগ করার সিদ্ধান্ত নেয় ক্ষমতাসীন মোদী সরকার। যদিও এর মাত্র দিন কয়েকের মাথায় এক টুইটার পোস্টের মাধ্যমে নিজের অবস্থান পরিষ্কার করেছিলেন মালালা। 

সে সময় তিনি কাশ্মীর সংঘাতের ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপট তুলে ধরে টুইট বার্তায় লিখেছিলেন, 'যখন আমি শিশু ছিলাম, যখন আমার মা-বাবাও শিশু ছিলেন, এমনকি যখন আমার দাদা-দাদী তরুণ ছিল; তখন থেকেই কাশ্মীরের জনগণ এক রকম সহিংসতার মধ্যে বসবাস করছে। যার ধারাবাহিকতায় বিগত সাতটি দশক উপত্যকাটির শিশুরা মাত্রাতিরিক্ত এক সহিংসতার মধ্যে বেড়ে উঠছে।'

অপর দিকে সরকারের আরোপিত কারফিউ প্রত্যাহারের পর অন্য এক টুইটার পোস্টে মালালা বলেছেন, 'আমি আটককৃত চার হাজারের অধিক কাশ্মীরিদের নিয়ে উদ্বিগ্ন, যাদের মধ্যে অসংখ্য শিশুও আছে। এদের অনেকে ৪০ দিনেরও বেশি সময় যাবত স্কুলে যেতে পারছে না। অনেক মেয়ে তো নিজের ঘর থেকেও বের হতে পারছে না।'

টুইট বার্তায় বিশ্বনেতাদের উদ্দেশে তিনি বলেছেন, 'আমি জাতিসংঘের আসন্ন সাধারণ অধিবেশনকে সামনে রেখে নেতাদের বলতে চাই আপনারা দয়া করে কাশ্মীরিদের আওয়াজ শুনুন, সেখানে শান্তি প্রতিষ্ঠায় কাজ করুন। সকল শিশু যেন নিরাপদে স্কুলে যেতে পারে, তাদের সেই সহায়তাই করুন।'

আরও পড়ুন :- কাশ্মীর ইস্যুতে মোদীর প্রশংসায় পঞ্চমুখ মুসলিম নেতা মাদানি

কাশ্মীর পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ জানিয়ে শান্তিতে নোবেল জয়ী এই পাকিস্তানি নাগরিক বলেছিলেন, 'আমি তিন জন কাশ্মীরি কিশোরীর সঙ্গে কথা বলেছি। তাদের অভিজ্ঞতা প্রায় একই রকম ছিল। উপত্যকাটি একদমই নিশ্চুপ; কার সঙ্গে ঠিক কি হচ্ছে এখন আর বোঝার কোনো উপায় নেই। বর্তমান পরিস্থিতি সত্যিই ভীষণ ভয়াবহ।'

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড