• বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ১ কার্তিক ১৪২৬  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

কাশ্মীরের মুসলিমদের নিয়ে উদ্বিগ্ন ইরান : খামেনি

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

২২ আগস্ট ২০১৯, ১২:৫১
জম্মু-কাশ্মীর
ইরানের প্রেসিডেন্ট, মন্ত্রীসভার সঙ্গে বৈঠকে সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ খামেনি। ছবি : তাসনিম নিউজ এজেন্সি

রাষ্ট্রপতি এবং তার মন্ত্রীসভার সদস্যদের সঙ্গে বৈঠকে ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ খামেনি কাশ্মীরের মুসলমানদের পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কাশ্মীর নিয়ে ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে মধ্যস্থতার প্রস্তাব দেওয়ার এক দিনের মাথায় বুধবার (২১ আগস্ট) ইরান থেকে এমন মন্তব্য আসে।

খামেনিকে উদ্ধৃত করে তাসনিম নিউজ এজেন্সি জানায়, 'ভারত সরকারের সঙ্গে আমাদের সুসম্পর্ক রয়েছে, তবে ভারত সরকার কাশ্মীরের আদর্শ মুসলিম জনগণের প্রতি সুষ্ঠু নীতি গ্রহণ করবে বলে আশা করছি, যাতে এই অঞ্চলের মুসলিম জনগণ নিপীড়িত না হয়'। ভারতশাসিত জম্মু-কাশ্মীরকে বিশেষ মর্যাদা দেওয়া সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ কেন্দ্র কর্তৃক বাতিলের দুই সপ্তাহ পর ইরান তাদের বিবৃতি দিলো। 

ভারত উপমহাদেশ থেকে সরে যাওয়ার আগে দুর্বৃত্ত ব্রিটিশ সরকার কর্তৃক গৃহীত পদক্ষেপের ফলস্বরূপ কাশ্মীরের বর্তমান পরিস্থিতি এবং ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে বিরোধ চলছে বলে বর্ণনা করেন ইসলামিক প্রজাতন্ত্রের সর্বোচ্চ এই নেতা। খামেনি বলেন, 'ব্রিটিশরা ইচ্ছাকৃতভাবে এই অঞ্চলে এই দ্বন্দ্বের সৃষ্টি করেছিল, যাতে করে কাশ্মীর নিয়ে এই অঞ্চলে সংঘর্ষ চলমান থাকে।'

ইরানের মন্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় নয়াদিল্লীর থেকে এখনো কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি বলে জানায় টেলিগ্রাফ ইন্ডিয়া। সাংবাদিকরা বারবার প্রশ্ন করা সত্ত্বেও, ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ট্রাম্পের মন্তব্যেরও কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি। 

মধ্যস্থতা নিয়ে ট্রাম্প মঙ্গলবার হোয়াইট হাউসে বলেন, 'সুতরাং, আপনি জানেন, আমি মনে করি আমরা পরিস্থিতিকে সহায়তা করছি। তবে এই দুই দেশের মধ্যে প্রচুর সমস্যা রয়েছে এবং আমি মধ্যস্থতা বা অঞ্চলটির ভালো কিছু করার জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা করব। উভয়ের সঙ্গে আমার দুর্দান্ত সম্পর্ক।'

এ দিকে, গত ২৩ জুলাই মোদী তাকে কাশ্মীরে মধ্যস্থতা করতে অনুরোধ জানান বলে দাবি করেন ট্রাম্প। ভারত তখন এই জাতীয় কথোপকথনটি অস্বীকার করেছিল। মঙ্গলবার হোয়াইট হাউজে ট্রাম্প বলেন, 'প্রধানমন্ত্রী মোদীর সঙ্গে থাকতে যাচ্ছি আমি। সপ্তাহান্তে ফ্রান্সে তার সাথে থাকব। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী (ইমরান) খান সম্প্রতি এখানে এসেছিলেন। তাদের দুজনের সঙ্গে সত্যিই আমার সম্পর্ক ভালো হয়ে উঠছে।'

যদিও ফ্রান্সের বিয়ারিটজে এই সপ্তাহান্তে জি-৭ শীর্ষ সম্মেলনের সময় মোদী এবং ট্রাম্পের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকের বিষয়টি নিশ্চিত করেনি ভারত। মার্কিন রাষ্ট্রপতির মন্তব্য বৈঠকের সম্ভাবনার পরামর্শ দেয়।

ট্রাম্প বলেন, 'সত্যি বলতে, এটি একটি খুব বিস্ফোরক পরিস্থিতি। আমি গতকাল প্রধানমন্ত্রী খান ও প্রধানমন্ত্রী মোদীর সঙ্গে কথা বলেছি। তারা উভয়ই আমার বন্ধু। তারা দুর্দান্ত মানুষ। তারা অসাধারণ মানুষ এবং তারা তাদের দেশকে ভালবাসে।'

ট্রাম্প সোমবার সন্ধ্যায় মোদী ও ইমরানের পরাপর কথা বলেছিলেন, এমনকি পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীকে বিবাদে মধ্যস্থতার প্রয়োজনীয়তাও জানিয়েছেন। মোদী মার্কিন প্রেসিডেন্টের কাছে, পাকিস্তানের উত্তপ্ত বক্তব্য উত্তেজনা বাড়িয়ে তুলছে বলে অভিযোগ ও জানান।

ট্রাম্প কাশ্মীর ইস্যুকে হিন্দু-মুসলিম সঙ্কট হিসাবে বর্ণনা করেছেন। 'কাশ্মীর একটি খুব জটিল স্থান। আপনাদের হিন্দু আছে এবং আপনাদের মুসলমানও আছে। আমি বলব না যে, তারা একসঙ্গে ভালো আছে এবং এই মুহূর্তে আপনারা তাই দেখছেন।'

ট্রাম্পের এমন মন্তব্যের পর ইরানের প্রধান নেতার কাছ থেকে ভারতের কাশ্মীর অবস্থানের প্রতিক্রিয়া আসে। কাশ্মীর ইস্যু পাক-ভারত ছাপিয়ে অনেক আগেই বৈশ্বিক সঙ্কটে জড়িয়ে পরে। এবার সেখানে ইরান যুক্ত হচ্ছে। ভারতের সঙ্গে ইরানের বাণিজ্যিক সম্পর্ক ভালো, মার্কিন নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে দিল্লি তেহরানের কাছ থেকে তেল আমদানি করছে, অন্য দিকে ইসলামিক প্রজাতন্ত্রটি পাকিস্তানের প্রতিবেশী। 
 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড