• মঙ্গলবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১২ ফাল্গুন ১৪২৬  |   ২০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

কাশ্মীর ইস্যুতে বিক্ষোভ, বাংলাদেশি-পাকিস্তানিদের বিরুদ্ধে কঠোর বাহরাইন

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১৩ আগস্ট ২০১৯, ১২:৪২
কাশ্মীর ইস্যুতে বাহরাইনে বিক্ষোভ
কাশ্মীর ইস্যুতে বাহরাইনে বাঙালি ও পাকিস্তানিদের বিক্ষোভ। (ছবিসূত্র : দ্য ইন্ডিয়া টুডে)

সংবিধানের পরিবর্তনের মাধ্যমে ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল ও সেখানকার মুসলিমদের ওপর নির্যাতনের প্রতিবাদে বাহরাইনে বিক্ষোভ করেছে বাংলাদেশি-পাকিস্তানিসহ এশিয়ার বেশ কিছু দেশের নাগরিক। যে কারণে এবার তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনি ব্যবস্থা গ্রহণের হুঁশিয়ারি দিয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের এই দ্বীপ রাষ্ট্রটির সরকার।

গত সোমবার (১২ আগস্ট) দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে পাঠানো এক টুইট বার্তায় প্রবাসী বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণের কথা জানানো হয়। 

টুইট বার্তায় বলা হয়, কাশ্মীরে বিশেষ মর্যাদা বাতিলের প্রতিবাদে বাহরাইনে পবিত্র ঈদুল আজহার নামাজ শেষে কোনো ধরনের অনুমোদন ছাড়াই সম্পূর্ণ অবৈধভাবে এই বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করা হয়। এতে এশিয়ার যেসব প্রবাসী নাগরিকরা অংশ নিয়েছেন; খুব শিগগিরই তাদের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হবে। 

কর্তৃপক্ষের বরাতে ভারতীয় গণমাধ্যম 'দ্য ইন্ডিয়া টুডে' জানায়, বাহরাইন সরকার এবার যেসব দেশের নাগরিকদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে; তাদের মধ্যে- বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের নাগরিক সব চেয়ে বেশি রয়েছেন। 

দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তাদের টুইট বার্তায় জানায়, ঈদের জামাত সফলতার সঙ্গে অনুষ্ঠিত হওয়ার পর আইন ভঙ্গ করে পুনরায় জমায়েত করায় বেশকিছু এশীয় নাগরিকের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করা হচ্ছে। মামলাটি এরই মধ্যে পাবলিক প্রসিকিউশন বরাবর পাঠানো হয়েছে। যেখানে স্থানীয় নাগরিক ও বাসিন্দাদের ধর্মীয় উৎসবগুলোকে রাজনৈতিক উদ্দেশে ব্যবহার না করার আহ্বান জানানো হয়।

এর আগে গত শুক্রবার (৯ আগস্ট) পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান কাশ্মীরের চলমান পরিস্থিতি জানাতে বাহরাইনের বাদশাহ শেখ হামাদ বিন ইসা আল খলিফার কাছে টেলিফোন করেন। যেখানে তিনি সেখানকার বিস্তারিত পরিস্থিতি বর্ণনা করেন।

মূলত এর পরপরই পাক প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে সেই ফোনালাপের বিষয়ে একটি বিবৃতি প্রকাশ করা হয়। যেখানে ইমরান খান বলেন, 'বাহরাইনের বাদশাহ বলেছেন- তার দেশ কাশ্মীরের চলমান পরিস্থিতি গভীর উদ্বেগের সঙ্গে নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছে। একই সঙ্গে তারা আশা করছে, সব পক্ষের সফল আলোচনার মাধ্যমে সকল সমস্যার সমাধান করা যাবে।

এর আগে গত ৫ আগস্ট (সোমবার) ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ ধারা রধের মাধ্যমে জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করেছিল ক্ষমতাসীন মোদী সরকার। যার প্রেক্ষিতে পরবর্তীতে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে বিতর্কিত লাদাখ ও জম্মু ও কাশ্মীর সৃষ্টির প্রস্তাবেও সমর্থন জানানো হয়।

আরও পড়ুন :- কাশ্মীর সীমান্তে যুদ্ধের আশঙ্কা : প্রস্তুতি নিচ্ছে পাকিস্তান

এসবের মধ্যেই চলমান কাশ্মীর ইস্যুতে পাক-ভারত মধ্যকার সম্পর্কে নতুন করে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে। এরই মধ্যে একে একে ভারত সরকারের সঙ্গে বাণিজ্য, যোগাযোগসহ সব ধরনের সম্পর্ক ছিন্নের ঘোষণা দিয়েছে প্রতিবেশী পাকিস্তান। যদিও এমন সংকটময় পরিস্থিতিতে পাক সরকারের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে এশিয়ার পরাশক্তি চীন; আর ভারত পাশে পেয়েছে রাশিয়াকে।

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড