• শনিবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২০, ৫ মাঘ ১৪২৭  |   ১৯ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

চিরতরে স্তব্ধ রেডিও কাশ্মীর

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

০১ নভেম্বর ২০১৯, ১৪:৪১
জম্মু-কাশ্মীর
ছবি : প্রতীকী

চিরতরে কণ্ঠ স্তব্ধ হয়ে গেল রেডিও কাশ্মীরের। পথ চলা শুরু হয়েছিল ১৯৪৮ সালের ১ জুলাই। শেষ হলো ২০১৯ সালের ৩১ অক্টোবর। সীমান্তের দুই পাশের বাসিন্দাদের কাছেই সমান জনপ্রিয় ছিল রেডিও কাশ্মীর।

তবে ‘ইয়ে রেডিও কাশ্মীর হ্যায়' শব্দটি আর কখনোই শুনতে পাবে না তারা। বৃহস্পতিবার জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখ নতুন দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে পথ চলা শুরু করার সঙ্গে সঙ্গেই ৭১ বছর ধরে চলা রেডিও কাশ্মীর কার্যত পরিচয় হারিয়েছে।

ভারতীয় গণমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া এক প্রতিবেদনে জানায়, কাশ্মীর বিভক্ত হয়ে পড়ায় রেডিও কাশ্মীর আর থাকছে না। এটি পরিচিত হবে অল ইন্ডিয়া রেডিও বা আকাশবাণী নামে।

ভারত স্বাধীন হওয়ার পর ৭২ বছর আকাশবাণীতে বহু প্রশাসনিক পরিবর্তন হলেও কোনোদিন রেডিও কাশ্মীর নামটির পরিবর্তন করা হয়নি। কিন্তু কালের পরিক্রমায় সেই কাজটাও হলো মোদী সরকারের সিদ্ধান্তে। এ বার রেডিও কাশ্মীরের পরিবর্তে শোনা যাবে ‘ইয়ে আকাশবাণী হ্যায়’।

রেডিও কাশ্মীরের এভাবে নাম পরিবর্তনকে সমর্থন করতে পারছেন না অল ইন্ডিয়া রেডিওর সাবেক প্রধান নির্বাহী জওহর সরকার। তিনি বলেন, এটার কোনো প্রয়োজন ছিল বলে আমার মনে হয় না। এর মাধ্যমে উপত্যকার সাধারণ মানুষের ভাবাবেগের ওপর আঘাত হানা হলো। এই রেডিও স্টেশনের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে গিয়েছিল কাশ্মীরের মনন। নাম পরিবর্তনের আগে সেই দিকটা একবারও ভাবা হলো না। বিষয়টি এমন হলো, সব যখন নেওয়া হয়েছে, তখন এটাও বা বাকি থাকে কেন।

জন্মলগ্ন থেকে শুরু করে অনেক তাৎপর্যপূর্ণ অধ্যায়ের মধ্যে দিয়ে যেতে হয়েছে রেডিও কাশ্মীরকে। ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধ, ভারত-চীন যুদ্ধ, কার্গিল যুদ্ধ, সীমান্তের উত্তপ্ত পরিস্থিতি- কোনো সময়েই এই রেডিও স্টেশনের সম্প্রচারে বাধা পড়েনি। তবে এবার মোদী সরকারের সিদ্ধান্তে চিরতরে বন্ধ হলো রেডিও কাশ্মীর।

ওডি/ডিএইচ

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: +৮৮০১৯০৭-৪৮৪৮00, +৮৮০১৯০৭৪৮৪৭০২  

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড