• বুধবার, ০৮ জুলাই ২০২০, ২৪ আষাঢ় ১৪২৭  |   ৩০ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

করোনামুক্ত নিকলী, আলো দেখাচ্ছে ভাইরাস প্রতিরোধ টিম

  নিজস্ব প্রতিবেদক

২৭ মে ২০২০, ২০:৩৫
করোনাভাইরাস প্রতিরোধ টিম
ছবি : সংগৃহীত

হাওড় অধ্যুষিত কিশোরগঞ্জ জেলা করোনার অন্যতম হটস্পটে পরিণত হয়েছে। কিন্তু এই জেলার অন্যান্য উপজেলার তুলনায় নিকলী উপজেলা কিছুটা ব্যতিক্রম। এই উপজেলায় প্রথম দিকে পাঁচজনের করোনা শক্ত হলেও এখন শতভাগ করোনা মুক্ত। আক্রান্ত পাঁচজনই সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

নিকলীর এ করোনা মোকাবেলায় সাফল্যের পেছনে রয়েছে জনবান্ধব উপজেলা প্রশাসন এবং তাদের সঙ্গে যোগ হয়েছে কিছু তরুণের সমন্বয়ে গঠিত নিকলী করোনাভাইরাস প্রতিরোধ টিম। যার স্বেচ্ছাসেবকদের নিরলস পরিশ্রম স্থানীয় উপজেলা প্রশাসনের কাজকে সহজতর এবং ত্বরান্বিত করেছে।

উপজেলার করোনাভাইরাস প্রতিরোধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করা করোনাভাইরাস প্রতিরোধ টিমের উপদেষ্টার ভূমিকা পালন করেছেন নিকলী উপজেলার কৃতি সন্তান মাদারীপুরের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মামুনুর রশিদ নীরব। এই কাজে সার্বিক সহযোগিতা করেছেন ঢাকাস্থ নিকলী ছাত্র পরিষদের সভাপতি মাজহারুল ইসলাম উজ্জ্বল, প্রাইম এশিয়া ইউনিভার্সিটির প্রাক্তন ছাত্র মুশফিকুর রহমান তুষার, তিতুমীর কলেজের প্রাক্তন ছাত্র নিয়াদ হাসান রকি প্রমুখ।

স্বেচ্ছাসেবক এই টিম উপজেলার বাইরে থেকে আসা ব্যক্তিদের তালিকা তৈরি, উক্ত ব্যক্তিদেরকে সতর্কীকরণ, হোম কোয়ারেন্টিন নিশ্চিতকরণ, প্রকৃত দুস্থ ব্যক্তিদের তালিকা তৈরি, মাইকিং করে এলাকাবাসীকে সতর্কীকরণ, তথ্য দিয়ে উপজেলা প্রশাসনকে সহায়তা, দরিদ্রদের মাঝে খাদ্য এবং অর্থ বিতরণসহ করোনাভাইরাস প্রতিরোধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে চলেছে।

নিকলী করোনাভাইরাস প্রতিরোধ টিমের প্রধান উপদেষ্টা মাদারীপুরের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মামুনুর রশিদ নীরবের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘সরকার বা প্রশাসনের একার পক্ষে করোনা প্রতিরোধ করা কঠিন। তাই আমরা নিকলী উপজেলার প্রতি ওয়ার্ড থেকে সদস্য নিয়ে ১৫৪ জনের তালিকা করি। প্রত্যেক ওয়ার্ড মনিটর করার জন্য ইউনিয়ন ভিত্তিক সমন্বয়ক এবং সমন্বয়কদের কার্যক্রম তদারকিতে ও নির্দিষ্ট কয়েকজন ভূমিকা রাখেন। 

তিনি বলেন, ‘যে কোনো ধরনের করোনা রোগের সন্দেহ ভাজন কেউ থাকলে স্বেচ্ছাসেবকরা মেসেঞ্জার গ্রুপে উপযুক্ত তথ্য ছবি প্রদান করে। তা যাচাই বাছাই করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবহিত করি। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শামসুদ্দিন মুন্না তড়িৎগতিতে এই ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহণ করেন। তিনি স্বেচ্ছাসেবকদের কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ প্রত্যেককে একটি করে আইডি কার্ড প্রদান করেন। স্বেচ্ছাসেবকরা মসজিদে, মাইকিং করে প্রচার, কোয়ারেন্টিন মানছে কিনা জানানো, ত্রাণ বিতরণ ইত্যাদি কাজে নিঃস্বার্থভাবে ভূমিকা রাখে। সকল স্বেচ্ছাসেবকরা উপজেলার যে কোনো দুর্যোগে যে কোনো সময় তাদের সর্বাত্মক চেষ্টা অব্যাহত রাখবে বলে অঙ্গীকার করে।’

স্বেচ্ছাসেবক টিমের উপজেলা প্রধান সমন্বয়কারী মাজহারুল ইসলাম উজ্জ্বলের সঙ্গে কথা বললে তিনি জানান, নিকলী আমাদের জন্মস্থান। নিকলীর আলো বাতাসে আমরা বেড়ে উঠেছি। বর্তমান বৈশ্বিক এই করোনা ভাইরাসের প্রকোপে সারা বিশ্বের উন্নত দেশগুলোই হিমশিম খাচ্ছে। সেখানে স্বাস্থ্যসেবায় পিছিয়ে থাকা বাংলাদেশের প্রত্যন্ত হাওড় অঞ্চল নিকলীর সাধারণ মানুষকে করোনাভাইরাস থেকে মুক্ত রাখতে, আঞ্চলিক দায়বদ্ধতা হিসেবে ঢাকাস্থ নিকলী ছাত্র পরিষদের উদ্যোগে, সংগঠনের সভাপতি হিসেবে ঢাকাস্থ নিকলী ছাত্র পরিষদের সম্মানিত উপদেষ্টামণ্ডলী ও নিকলীর সকল ছাত্রসমাজকে সঙ্গে নিয়ে করোনাভাইরাস প্রতিরোধ টিম প্রতিষ্ঠার চিন্তা করি এবং পরবর্তী সময়ে মাদারীপুরের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মামুনুর রশিদ নীরব মামার সঙ্গে কথা বলে টিমটি গঠন করি। নিকলী উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা পরিষদের অনুমতি নিয়ে টিম গঠনের পর থেকে নিকলীর সকল রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, স্থানীয় সরকারের জনপ্রতিনিধিবৃন্দ, পেশাজীবী, সুশীল সমাজ ও সাংবাদিকসহ সকলেই আন্তরিকভাবে সহযোগিতার মনোভাব নিয়ে এগিয়ে এসেছেন।

তিনি আরও বলেন, ‘সর্বোপরি বলবো, করোনাভাইরাস প্রতিরোধ টিমের মূল কাজ হচ্ছে, দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে নিকলীতে আসা ব্যক্তিদের হোম কোয়ারেন্টিন নিশ্চিত করা, সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার জন্য গণসচেতনতা তৈরি, অসহায় দুস্থ মানুষের ত্রাণের ব্যবস্থা করা এবং বিভিন্ন ক্ষেত্রে উপজেলা প্রশাসনকে তথ্য প্রদান করা। যা আমরা মার্চ মাসের শেষ সপ্তাহ থেকে করে আসছি এবং সামনের দিনগুলোতেও তা অব্যাহত থাকবে।’

আরও পড়ুন : ফুলবাড়িয়ায় শিক্ষকের উপর হামলার প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

টিমের স্বেচ্ছাসেবক জিলহজ আহমেদ সৌরভ জানান, বর্তমান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাজ সবচেয়ে বেশি প্রশংসনীয় ভূমিকার দাবিদার। ইউএনও করোনা প্রতিরোধের ব্যাপারে কোনো স্বেচ্ছাসেবকের ফোন পেলে বা কোনো তথ্য দিয়ে অবহিত করলে তড়িৎগতিতে ব্যবস্থা নিয়েছেন এবং ছুটে গিয়েছেন যা করোনা প্রতিরোধে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে। 

সৌরভ আরও বলেন, আমি কৃতজ্ঞতা জানাই এই উপজেলার কৃতি সন্তান জনাব মামুনুর রশিদ নীরব স্যার কে যিনি জাতির এই ক্রান্তিকালে তরুণদের একত্রিত করে স্বেচ্ছাসেবক টিম গঠন করেছেন। এছাড়াও পূর্ববর্তী বিভিন্ন দুর্যোগে তিনি এলাকার দুস্থ মানুষদের কল্যাণে এবং মেধাবী শিক্ষার্থীদের পড়ালেখার ব্যাপারে এগিয়ে এসেছেন। উপজেলার তরুণদের জন্য অনুকরণীয় ব্যক্তিত্ব।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: 02-9110584, +8801907484800

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড