• শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

ড্রাইভিং লাইসেন্স পেতে করণীয়

  অধিকার ডেস্ক

০২ নভেম্বর ২০১৯, ১৫:৪৪
ড্রাইভিং
ড্রাইভিং লাইসেন্স (ছবি : প্রতীকী) 

গাড়ি চালানোর অনুমতি বা ড্রাইভিং লাইসেন্সের প্রথম শর্ত হলো- লার্নার বা শিক্ষানবিশ ড্রাইভিং লাইসেন্স। যদি ড্রাইভিং লাইসেন্স করতে চান তাহলে আপনাকে আগে শিক্ষানবিশ ড্রাইভিং লাইসেন্স করতে হবে। রাজধানী ঢাকায় বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) কার্যালয় মিরপুর, ঢাকা মেট্রো-১, ২, ৩ সার্কেল রয়েছে। এছাড়া সারা দেশের বিভিন্ন জেলা থেকেও ড্রাইভিং লাইসেন্স করা যায়।

যেভাবে আবেদন করবেন

গ্রাহক তার আবেদনপত্রটি পূরণ করে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ বিআরটিএর যে সার্কেলের আওতাভুক্ত তাকে সেই সার্কেল অফিসে আবেদন করতে হবে। একজন রেজিস্টার্ড ডাক্তারের মাধ্যমে মেডিকেল সার্টিফিকেট জমা দিতে হবে। সার্কেল অফিস আপনাকে একটি নির্দিষ্ট মেয়াদের শিক্ষানবিশ ড্রাইভিং লাইসেন্স দেবে। পেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য বয়স ন্যূনতম ২০ বছর এবং অপেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য বয়স ন্যূনতম ১৮ বছর হতে হবে।

ড্রাইভিং লাইসেন্স পেতে যেসব কাগজ লাগবে

১. বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) অনুমোদিত ব্যাংক শাখায় টাকা জমার রশিদ।

২. ন্যাশনাল আইডি কার্ড/জন্ম সনদ/পাসপোর্টের সত্যায়িত ফটোকপি।

৩. স্থায়ী/অস্থায়ী ঠিকানার প্রমাণ স্বরূপ বিদ্যুৎ বিলের ফটোকপি।

৪. সদ্য তোলা ৩ কপি রঙিন স্ট্যাম্প সাইজের ছবি ও ১ কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি সংযুক্ত করতে হবে।

পেশাদার ভারী যানবাহনের ক্ষেত্রে

ট্রাক, লরি ও বাসের মতো ভারী যানবাহনের লাইসেন্স পেতে হলে আগে হালকা ও মধ্যম মোটরযানের লাইসেন্স থাকতে হয়। হালকা ও মধ্যম মোটরযানের লাইসেন্স পাওয়ার তিন বছর পার না হলে ভারী যানবাহনের লাইসেন্সের জন্য আবেদন করা যায় না।

লাইসেন্স ফি

১. (ক) ক্যাটাগরি-৩৪৫/-টাকা (শুধু মোটরসাইকেল অথবা হালকা মোটরযান)। 

২. (খ) ক্যাটাগরি-৫১৮/-টাকা (মোটরসাইকেল এবং হালকা মোটরযান একসঙ্গে অর্থাৎ মোটরসাইকেলের সাথে যে কোনো এক ধরনের মোটরযান)।

এরপর আপনাকে সার্কেল অফিস একটি শিক্ষানবিস বা লার্নার ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রদান করবে। যা দিয়ে আবেদনকারী ড্রাইভিং প্রশিক্ষণ গ্রহণ করতে পারবেন। শিক্ষানবিশ বা লার্নার ড্রাইভিং লাইসেন্স দিয়ে ২/৩ মাস প্রশিক্ষণ গ্রহণের পর আপনাকে নির্ধারিত তারিখ ও সময়ে নির্ধারিত কেন্দ্রে লিখিত, মৌখিক ও ফিল্ড টেস্ট-এ অংশগ্রহণ করতে হবে।

এ সময় প্রার্থীকে তার লার্নার বা শিক্ষানবিশ ড্রাইভিং লাইসেন্স (মূল কপি) ও লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। এসব পরীক্ষায় পাস করলে ড্রাইভিং লাইসেন্সের আবেদন করার সুযোগ পাবেন। বিস্তারিত জানতে বিআরটিএর ওয়েবসাইটে ভিজিট করুন।

নবায়ন

৫ বছর পর পর পেশাদার লাইসেন্স নবায়ন করাতে হয়। আর ১০ বছর পর পর অপেশাদার লাইসেন্স নবায়ন করাতে হয়।

ওডি/টিএএফ

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড