• রবিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২২ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

২০ ডলারের জন্য উত্তপ্ত ভারত-পাকিস্তান

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

২২ অক্টোবর ২০১৯, ১৩:৫৮
মোদী ও ইমরান
ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও পাকিস্তানি প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। (ছবিসূত্র : দ্য হিন্দু)

পাকিস্তানি ভূখণ্ডে অবস্থিত শিখ ধর্মাবলম্বীদের একটি পবিত্র তীর্থস্থান পরিদর্শনের জন্য এবার মাথাপিছু কুড়ি মার্কিন ডলার সার্ভিস চার্জ আদায়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইসলামাবাদ। মূলত এর পরপরই ভারত বিষয়টির তীব্র প্রতিবাদ জানাতে শুরু করেছে। নয়াদিল্লির দাবি, পাকিস্তানের এই চার্জ গরিব তীর্থযাত্রীদের প্রতি একটা অন্যায়। যদিও এ ক্ষেত্রে পাকিস্তান কোনো ধরনের নমনীয়তা প্রদর্শনে সম্মত নয়।

রবিবার (২০ অক্টোবর) পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান সোশ্যাল মিডিয়াতে দেওয়া এক পোস্টে এই চার্জ প্রকারান্তরে সমর্থন জানান। তিনি বলেন, ‘এতে অঞ্চলটির অর্থনীতি চাঙ্গা হবে এবং সে দেশের বৈদেশিক মুদ্রার সঞ্চয়ও বৃদ্ধি পাবে।’

যদিও পরদিন সোমবার (২১ অক্টোবর) ভারতীয় কেন্দ্র সরকারের মন্ত্রী হরসিমরত কাউর পাল্টা অভিযোগ তুলে বলেন, ‘পাকিস্তান এর মাধ্যমে গরিব লোকদের ধর্মবিশ্বাস নিয়ে ব্যবসা ফাঁদ পেতেছে। বর্তমানে এর চেয়ে লজ্জাজনক আর কিছুই হতে পারে না।’

মাত্র বিশ ডলারের এই সার্ভিস চার্জ নিয়ে পাক-ভারত মধ্যকার বিরোধটা ঠিক কিসের? শিখ ধর্মীয় প্রতিষ্ঠাতা গুরু নানকের জীবনের শেষ সময়টা কেটেছিল পাঞ্জাবের কর্তারপুরে, যা দেশভাগের পর এখন পাকিস্তানের নারোয়াল জেলাতে পড়েছে।

বিশ্লেষকদের মতে, কর্তারপুরের দরবার সাহেব গুরদোয়ারাতে যাতে ভারতীয় শিখ তীর্থযাত্রীরা সহজে পরিদর্শন করতে পারেন, সে লক্ষ্যে এবার দুই দেশ মিলে সীমান্ত এলাকায় একটি যাত্রাপথ নির্মাণ করছে। ভারতের গুরুদাসপুরে ডেরা বাবা নানক থেকে পাকিস্তানের কর্তারপুরে দরবার সাহেব পর্যন্ত বিস্তৃত এই সড়ককে কর্তারপুর করিডর নামে নামকরণ হয়েছে।

গত বছর ক্ষমতা গ্রহণের পর পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর করিডরটি খুলে দেন। তখন এক বিবৃতিতে তিনি বলেছিলেন, ‘ভারতসহ গোটা বিশ্ব থেকে আগত শিখ ধর্মাবলম্বীদের জন্য এই তীর্থস্থানটি উন্মুক্ত করে দেওয়া হবে। এমনকি সেখানে যাবতীয় সুযোগ-সুবিধার ব্যবস্থাও প্রদান করা হবে।’

আরও পড়ুন :- জাপানের সম্রাট নারুহিতোর অভিষেক হচ্ছে আজ

যদিও এবার বিতর্ক শুরু হয়েছে পাকিস্তান কেন প্রত্যেক তীর্থযাত্রী পিছু বিশ ডলার করে চার্জ আদায়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সার্কভুক্ত দেশের নাগরিকরা মূলত একে অন্যের দেশ ভ্রমণে গেলে সাধারণত কোনো ভিসা ফি প্রদান করতে হয় না। তবে পাকিস্তান এখন ভারতীয় নাগরিকদের এই ফি থেকে রেহাই দিতে রাজি হচ্ছে না।

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪, ০১৯০৭৪৮৪৮০০ 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড