• বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২৩ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

সিরিয়ায় রাসায়নিক হামলা চালিয়েছে তুরস্ক

তদন্তে জাতিসংঘ

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১৯ অক্টোবর ২০১৯, ১০:৪৫
সিরিয়ায় তুরস্কের অভিযান
সিরিয়ায় তুরস্কের রাসায়নিক হামলা। (ছবি : সম্পাদিত)

গত সপ্তাহের শুরুতে যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়ায় তুরস্কের যে সামরিক অভিযান শুরু হয়েছে, তাতে অঞ্চলটির শিশুদের ওপর হোয়াইট ফসফরাস ব্যবহার করা হয়। এমনটাই জানিয়েছে জাতিসংঘের রাসায়নিক অস্ত্র বিষয়ক পরিদর্শক দল। যদিও এমন অভিযোগের প্রেক্ষাপটে এবার সংস্থাটি তাদের তদন্ত কাজ শুরু করেছে বলেও দাবি তাদের। 

ব্রিটিশ গণমাধ্যম ‘দ্য গার্ডিয়ানের’ খবরে বলা হয়, শুক্রবার (১৮ অক্টোবর) রাসায়নিক অস্ত্র নিরোধ সংস্থা (ওপিসিডব্লিউ) বিষয়টি নিয়ে একটি বিবৃতি দিয়েছে। যেখানে বলা হয়, সিরিয়ায় তুর্কির রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহারের অভিযোগ নিয়ে সংস্থাটি এরই মধ্যে কাজ শুরু করেছে। অঞ্চলটিতে চলমান হামলায় তুর্কি সেনারা রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার করেছে এমন অভিযোগ আসার পরপরই তারা সকল তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ শুরু করেছে।

এ দিকে কুর্দিস রেড ক্রিসেন্ট এক বিবৃতিতে দাবি করেছে, সিরিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় সামরিক-বেসামরিক ছয় রোগী এরই মধ্যে অজানা অস্ত্রের দ্বারা অগ্নিদগ্ধ হয়ে হাক্কার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছেন। যে কারণে এখন তারা বিশ্লেষণের মাধ্যমে এটাই দেখার চেষ্টা করছে যে, দগ্ধ এসব মানুষের ওপর কোনো ধরনের রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার করা হয়েছে কি-না।

অঞ্চলটির দাতব্য সংস্থাটি তাদের বিবৃতিতে আরও জানিয়েছে, বিভিন্ন তদন্ত কাজ শেষে তারা এখনো নিশ্চিত নয় যে রাসায়নিক অস্ত্রের মাধ্যমেই এসব হামলাগুলো চালানো হয়েছে কি না। যে কারণে সংস্থাটি আন্তর্জাতিক বিভিন্ন অংশীদারি প্রতিষ্ঠান ও সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলোর সঙ্গে একত্রিত হয়ে বিষয়টি নিয়ে তদন্ত কাজ শুরু করেছে। তবে তদন্ত শেষে বিষয়টি পরিষ্কার হবে বলেও তারা আশাবাদ প্রকাশ করেছে।

অপর দিকে যুক্তরাজ্যের একজন রাসায়নিক অস্ত্র বিশেষজ্ঞ তার সাবেক এক সহকর্মীর মাধ্যমে মারাত্মকভাবে পুড়ে যাওয়া আঞ্চলিক এক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন শিশুর ছবি পেয়েছেন। পরবর্তী সময়ে ছবিটি পর্যালোচনার মাধ্যমে তিনি বলেছেন, ‘বিষয়টি পরিষ্কার না হলেও ধারণা করা হচ্ছে- শিশুটি রাসায়নিক অস্ত্র দ্বারাই দগ্ধ হয়েছে।’

আরও পড়ুন :- শত্রুদের দমনে গোপনে বিধ্বংসী যুদ্ধজাহাজ বানাচ্ছে চীন

এসব বিষয়ে ব্রিটিশ সামরিকবাহিনীর সাবেক রাসায়নিক অস্ত্র বিশেষজ্ঞ ব্রেটন গর্ডন বলেন, ‘সিরিয়ায় চালানো এসব অভিযানে মূলত হোয়াইট ফসফরাস ব্যবহার করা হয়েছে। যা ভয়াবহ একটি অস্ত্র। সিরিয়ার গৃহযুদ্ধে এটা ব্যবহার করা হয়েছে এবং এখনো হচ্ছে। দুর্ভাগ্যবশত হলেও এটাই সত্য যে, বর্তমানে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে অস্ত্রটির ব্যবহার অনেকটাই স্বাভাবিক পর্যায়ে চলে গেছে।’

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড