• বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ২ কার্তিক ১৪২৬  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

চীনা প্রেসিডেন্টের ওপর সাংবাদিকদের আনুগত্যের পরীক্ষা!

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১১:১৬
চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিন-পিং
চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিন-পিং। (ছবিসূত্র : এনবিসি)

আগামীতে এশিয়ার পরাশক্তি খ্যাত চীনের গণমাধ্যমে কাজ করার জন্য সকল সাংবাদিককে একটি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে। যেখানে তাদের প্রেসিডেন্ট শি জিন-পিংয়ের মতাদর্শ নিয়ে বোঝাপড়া এবং তার আনুগত্যের দিকগুলো তুলে ধরতে হবে। 

ব্রিটিশ গণমাধ্যম 'দ্য গার্ডিয়ান' জানায়, গত মাসে দেশটির বেশ কয়েকটি মিডিয়াতে পাঠানো নোটিশে চীনা সংবাদমাধ্যম নিয়ন্ত্রক প্রতিষ্ঠান এই পরীক্ষার কথা জানায়। যেখানে বলা হয়, দেশের যেকোনো নাগরিককে সাংবাদিকতার অনুমোদন নবায়ন করতে হলে তাকে 'স্ট্রাডি শি' নামে একটি অ্যাপের ওপর সাংবাদিকদের পরীক্ষা দিতে হবে। সংশ্লিষ্টদের ধারণা, 'খুব শিগগিরই এই নিয়ম চীনের সকল সাংবাদিকদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে।'

বিশ্লেষকদের মতে, ২০১৭ সালের অক্টোবর মাসে চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিন-পিংয়ের সকল চিন্তাকে দলীয় গঠনতন্ত্রে অন্তর্ভুক্ত করার প্রস্তাব অনুমোদন করে ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টি। আধুনিক চীনের রূপকার হিসেবে স্বীকৃত মাও সে তুংয়ের পর শি জিন-পিং হলেন দেশটির দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ব্যক্তি। ক্ষমতাসীন থাকা অবস্থায় যার চিন্তা দলীয় গঠনতন্ত্রে মতাদর্শের মর্যাদা পেল। 

গণমাধ্যমের দাবি, মতাদর্শের মর্যাদা পাওয়ায় মাও-এর মতবাদ যেমন দেশটিতে মাওবাদ হিসেবে বিবেচিত হয়, ঠিক তেমনই শির চিন্তাধারাও এখন থেকে শি-বাদ হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে। যে কারণে এখন থেকে জনগণের যেকোনো চ্যালেঞ্জ চীনা কমিউনিস্ট পার্টির বিরুদ্ধের অবস্থান হিসেবে বিবেচিত হবে। শি জিন-পিংয়ের চিন্তাধারা নিয়ে চলতি বছরের শুরুতে চালু হয় নতুন অ্যাপ 'স্ট্রাডি শি'। এবার মূলত সেই অ্যাপের মাধ্যমেই সাংবাদিকদের পরীক্ষা নেওয়া হবে। 

দেশটির অন্তত তিনটি স্বনামধন্য গণমাধ্যমের সাংবাদিকেরা 'দ্য গার্ডিয়ান'কে জানিয়েছে, তাদের প্রতিষ্ঠান ইতোমধ্যে সেই অ্যাপে রেজিস্ট্রেশনের জন্য একটি অনানুষ্ঠানিক নোটিশ পেয়েছে। সানদং প্রদেশের একটি গণমাধ্যমের কর্মীরা বলেন, 'উঁচু সারি থেকে শুরু করে নিম্ন পর্যায় পর্যন্ত কেউই এই কার্যক্রম থেকে বাঁচতে পারবে না বলে আমাদের বিশ্বাস।'

আগামী অক্টোবরে শুরু হতে যাওয়া পরীক্ষাটি মূলত পাঁচটি অংশে বিভক্ত। যার মধ্যে দুটি থাকবে নতুন যুগে শি জিন-পিংয়ের সমাজতান্ত্রিক শিক্ষা এবং প্রোপ্যাগান্ডা ইস্যুতে তার গুরুত্বপূর্ণ চিন্তা।

বিশেষজ্ঞদের মতে, গণমাধ্যম কর্মীদের বিরুদ্ধে সবচেয়ে কম মুক্ত দেশগুলোর একটি এই চীন। 'রিপোর্টস উইদাউট বর্ডারসে'র সাম্প্রতিক তালিকায় বিশ্বের মত ১৮০টি দেশের তালিকায় ১৭৭তম অবস্থানে আছে এশিয়ার পরাশক্তি খ্যাত এই চীন।

আরও পড়ুন :- যুদ্ধের প্রস্তুতি : যুদ্ধবিমান দিয়ে মহড়া চালাচ্ছে ইরান

দেশটির সাংবাদিকদের কাছে এর আগেও বেশ কয়েকবার নিজের প্রতি আনুগত্যের দাবি তুলেছেন প্রেসিডেন্ট শি জিন-পিং। ২০১৬ সালে তিনটি রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা 'সিনহুয়া'র সাংবাদিকদের প্রোপ্যাগান্ডা ফ্রন্টের সদস্য আখ্যা দিয়েছিলেন। তার ভাষায়, 'তাদের (সাংবাদিকদের) অবশ্যই আমাদের পার্টিকে সম্পূর্ণই নিজেদের পরিবার হিসেবে বিবেচনা করতে হবে।'

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড