• রবিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬  |   ২২ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

পাকিস্তানকে ছাড়াই নতুন দক্ষিণ এশীয় জোট গড়ছে ভারত

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১০:২৮
লোগো
সাসেক লোগো। (ছবিসূত্র : ইন্ডিয়া টিভি)

প্রতিবেশী পাকিস্তানকে বাদ রেখেই এবার নতুন দক্ষিণ এশীয় অর্থনৈতিক জোট গঠনের উদ্যোগ নিয়েছে ভারত। আঞ্চলিক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির হার বাড়ানো এবং দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে পারস্পরিক সহযোগিতা জোরদারের লক্ষ্যে নয়া দিল্লির এ সিদ্ধান্ত বলে দাবি বিশ্লেষকদের। 

রবিবার (৮ সেপ্টেম্বর) গণমাধ্যম 'দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া'র খবরে বলা হয়, প্রস্তাবিত এই অর্থনৈতিক জোটটির নাম হবে 'সাউথ এশিয়া সাব-রিজিওনাল ইকোনোমিক কো-অপারেশন' (সাসেক)। যেখানে পারমাণবিক শক্তিধর প্রতিবেশী পাক-ভারত মধ্যকার রাজনৈতিক বিরোধ চরমে পৌঁছানো এবং সার্কের ধীর গতির কারণেই ভারতীয় নীতি নির্ধারকরা বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের মতো দ্রুত বর্ধনশীল দেশগুলোকে সঙ্গে নিয়ে আগামীতে সামনে এগুনোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

এবারের 'সাসেক' জোটের সদস্য রাষ্ট্র বাংলাদেশ, মিয়ানমার, শ্রীলংকা, নেপাল, ভুটান, মালদ্বীপ ও ভারতের অর্থমন্ত্রীরা খুব শিগগিরই নয়াদিল্লিতে প্রথমবারের মতো বৈঠকে বসবেন। যেখানে জোটটির নীতি ও কৌশল নির্ধারণের জন্য আসছে বসন্তে বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

এশিয়া উন্নয়ন ব্যাংকের (এডিবি) প্রেসিডেন্ট তাকেহিকো নাকাওর মতে, 'বাংলাদেশ, মিয়ানমার, নেপাল, ভুটান, শ্রীলংকা ও মালদ্বীপ নিয়ে গঠিত জোট সাসেকের ব্যাপারে বর্তমানে ভারত বেশ আগ্রহী হয়ে উঠেছে। যেখানে আঞ্চলিক একত্রীকরণ ও সহযোগিতা ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ। সেক্ষেত্রে বাংলাদেশ খুবই ভালোভাবে এগিয়ে যাচ্ছে।'

এর আগে ২০১১ সালে প্রথম এই সাসেক গঠনের উদ্যোগ নেওয়া হয়। যেখানে ভারত, বাংলাদেশ, ভুটান ও নেপাল উপ-আঞ্চলিক অর্থনৈতিক অগ্রগতির জন্য সহযোগিতা গভীর করতে সম্মতি প্রদান করে। পরবর্তীতে ২০১৪ সালে মালদ্বীপ ও শ্রীলঙ্কা জোটটিতে অন্তর্ভুক্ত হয় আর মিয়ানমার ২০১৭ সালে এতে যোগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে।

আরও পড়ুন :- ভারতে থেকে সকল অনুপ্রবেশকারীকে তাড়ানো হবে

বিশ্লেষকদের মতে, ২০১৭ সালে সাসেক অন্তর্ভুক্ত দেশগুলোর নেতারা জোটটি গঠনের উদ্যোগ এগিয়ে নেওয়ার জন্য আলোচনা করেন। যদিও এরপর খুব সামান্য অগ্রগতি হওয়ায় এর কার্যক্রম খানিকটা পিছিয়ে যায়।। যদিও এখন ভারতীয় নীতি নির্ধারকদের উদ্যোগে আঞ্চলিক জোটটি পুনরায় একটি স্পষ্ট রূপরেখা পাবে বলে ধারণা সংশ্লিষ্টদের।

ওডি/কেএইচআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক: মো: তাজবীর হোসাইন  

 

সম্পাদকীয় কার্যালয় 

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪, ০১৯০৭৪৮৪৮০০ 

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড