• সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯, ২৯ আশ্বিন ১৪২৬  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন
sonargao

মুরসির ছেলে ও স্ত্রীর আবেগঘন স্ট্যাটাস

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১৯ জুন ২০১৯, ২০:১০
ছেলে, মোহাম্মদ মুরসি ও স্ত্রী
ছেলে, মোহাম্মদ মুরসি ও স্ত্রী (ছবি : ইন্টারনেট)

মিশরের প্রথম গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসির মৃত্যুতে এখন শোকাহত বিশ্ব। এমন সময় মুরসির ছেলে অভিযোগ করেছেন, সাবেক এই প্রেসিডেন্টের পরিবারকে শোক প্রকাশে বাধা দিয়েছে মিশরীয় কর্তৃপক্ষ। খবর ইয়েনি শাফাকের।

বুধবার (১৯ জুন) মুরসির ছেলে এক টুইট বার্তায় এ দাবি করেন।

এদিকে মুরসির স্ত্রী নাগলা মাহমুদ ফেসবুকে একটি আবেগঘন স্ট্যাটাস দিয়েছেন। এতে তিনি স্বামীকে শহীদ আখ্যা দিয়েছেন।

মুরসির স্ত্রী ফেসবুকে লেখেন, ‘ড. মোহাম্মদ মুরসি মিশর প্রজাতন্ত্রের বৈধ প্রেসিডেন্ট। তিনি আল্লাহর জন্য শহীদ হয়েছেন। তিনি কারাকক্ষে শিরদাঁড়া সোজা রেখে জুলুমের সঙ্গে লড়েছেন। তিনি শাহাদাতকে বেছে নিয়েছেন, দেশকে এগিয়ে নিতে মারা গেছেন। সত্য প্রচারের জন্য সামনে এগিয়ে গেছেন, পিছু হটেননি, তাই তার মৃত্যু হয়েছে। কোনো ক্লান্তি, বিরক্তি ও বশ্যতা স্বীকার না করে তিনি সত্যের তরবারী খাপখোলা রেখেছেন। তাই আল্লাহ তাকে নিজের কাছে নিয়েছেন। মোনাফেকি, বিশ্বাসঘাতকতা ও ভীরুতার যুগ থেকে আল্লাহ তাকে নিয়ে গেছেন।

তিনি আরও বলেন, ‘আল্লাহ তাকে নিজের কাছে নিয়েছেন, যেন তিনি ইয়াহইয়া, ঈসা; আসহাবে উখদুদ ও হাবিব আল নাজ্জারদের মতোই একই পরিস্থিতিতে যোগ দিতে পারেন। তার বাণী প্রচার ও দায়িত্ব বণ্টনের পর জান্নাতুল ফিরদাউস, উচ্চমর্যাদা ও সাহচর্যের জন্য আল্লাহ তাকে উঠিয়ে নিয়ে গেছেন। আগামীতে বহু প্রজন্মের জন্য তোমরা শিক্ষা হয়ে থাকবে। জান্নাতে, হে শহীদ। কী লাভজনক লেনদেন, হে শহীদ।’

গত সোমবার (১৭ জুন) আদালত প্রাঙ্গণে মারা যান মিশরের ক্ষমতাচ্যুত এই প্রেসিডেন্ট। ২০১২ সালের ১২ জুন গণআন্দোলনের মুখে সাবেক প্রেসিডেন্ট হোসনি মোবারক ক্ষমতাচ্যুত হলে প্রথমবারের মতো গণতান্ত্রিক নির্বাচনে জয় লাভ করে ক্ষমতায় আসেন মুরসি।

তিনি প্রায় এক বছর দেশ পরিচালনাও করেন। আবদুল ফাত্তাহ আল সিসির নেতৃত্বাধীন সেনা সদস্যদের অভ্যুত্থানের ফলে তাকেও ক্ষমতাচ্যুত করা হয়। সিসি ক্ষমতা গ্রহণের পর মুরসির শতাধিক সমর্থককে সহিংসতাসহ কয়েকটি অভিযোগে ফাঁসি দেওয়া হয়। হাজার হাজার সমর্থক বিনা বিচারে এখনো কারাগারে।

সেনা অভ্যুত্থানের মাধ্যমে মুরসিকে গ্রেফতার করা হলে তাতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র উষ্ণ ভূমিকা পালন করে। এমনকি তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা মিশরের সেনা সমর্থিত সিসি সরকারকে সমর্থন জানান।

সম্প্রতি সাবেক প্রেসিডেন্ট মুরসির দল ব্রাদারহুডকে আনুষ্ঠানিকভাবে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে ঘোষণা করেছে মিসর সরকার। দলটির নেতারা বর্তমানে শঙ্কার মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন।

ওডি/এমআর

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড