• মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০১৯, ৮ শ্রাবণ ১৪২৬  |   ৩১ °সে
  • বেটা ভার্সন

গাড়ি থেকে টেনে নামিয়ে লাঞ্ছিত করল মিস ইন্ডিয়াকে

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১৮ জুন ২০১৯, ২০:১১
মিস ইন্ডিয়া
ছবি : সংগৃহীত

কাজ সেরে বাড়ি ফেরার পথে মাঝরাতে একদল যুবকের হাতে লাঞ্ছিত হওয়ার অভিযোগ তুললেন মডেল-অভিনেত্রী ঊষসী সেনগুপ্ত। ২০১০ সালে মিস ইন্ডিয়া খেতাব জেতা এই মডেল উবারে চড়ে বাড়ি ফিরছিলেন, তাতে ধাক্কা মারার পাশাপাশি চালককে মারধর করা এমনকি বেশ কয়েক কিলোমিটার ধাওয়া করে এসে তাকে গাড়ি থেকে টেনে নামানোর চেষ্টাও করা হয়। হাত থেকে ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করা হয় মোবাইল। পুলিশের কাছে জানাতে গেলে এটা এই থানার বিষয় নয় বলে এড়িয়ে যাওয়া হয়— এমনটাও অভিযোগ করেছেন তিনি। পুলিশ যদিও অভিযোগ পেয়ে এই ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৭ জনকে গ্রেফতার করেছে।

সোমবার (১৭ জুন) কাজ শেষ করে কলকাতার বাইপাসের ধারের একটি পাঁচতারকা হোটেল থেকে এক সহকর্মীর সঙ্গে উবারে করে বাড়ি ফিরছিলেন। রাত তখন ১২টা ৪৫ মিনিটের কাছাকাছি। একটি বাইক এসে তার গাড়িতে ধাক্কা মারে, থামতেই ওই বাইকচালক এবং তার বন্ধুরা মিলে ঝামেলা শুরু করেন। তারাও অন্য কয়েকটি বাইকে যাচ্ছিলেন। উবার চালককে গাড়ি থেকে টেনে নামিয়ে মারধর করা হয় বলে অভিযোগ করেন এই মডেল। সব মিলিয়ে ঘটনাস্থলে অন্তত ১৫ জন যুবক ছিলেন বলে পুলিশকে জানিয়েছেন ঊষসী।

এই অভিযোগের কথা ফেসবুকেও লিখেছেন তিনি। সেখানে ঊষসী লিখেছেন, 'আমি গাড়ি থেকে নেমে ভিডিও করতে শুরু করি। দৌড়ে ময়দান থানায় যাই। এক অফিসার দাঁড়িয়ে ছিলেন। তিনি বলেন, ওটা ভবানীপুর থানার ঘটনা। আমি হাতজোড় করে অনুরোধ করি, আপনি চলুন, না হলে ড্রাইভারকে মেরে ফেলবে। উনি গিয়ে ওদের বলেন, ঝামেলা করছ কেন? ওরা অফিসারকে ধাক্কা দিয়ে পালিয়ে যায়। সব কিছু মিটে যাওয়ার পর ভবানীপুর থানা থেকে দুজন অফিসার গিয়েছিলেন। আমি ভেবেছিলাম আজ সকালে পুলিশে জানাব।'

কিন্তু এর পরও দুর্ভোগ শেষ হয়নি তাদের। লেক গার্ডেন্সে ঊষসী তার সহকর্মীকে নামাতে যান। কিন্তু তারা বুঝতে পারেননি, ওই যুবকেরা বাইকে চেপে তাদের পিছু নিয়েছিলেন! লেকগার্ডেন্সে উবার থামতেই তিনটে বাইকে চড়ে আসা ছজন যুবক ঊষসীকে গাড়ি থেকে টেনে নামানোর চেষ্টা করেন। তিনি গাড়ি থেকে নেমে আসতেই তাকে ওই ভিডিও ডিলিট করার জন্য চাপ দেয়া হয়। ঊষসী লিখেছেন, 'পাশের পাড়াতেই আমি থাকি। ভয় পেয়ে চিৎকার করি। বাবা-বোনকে ফোন করি। সেই চিৎকার শুনে ওই যুবকেরা পালিয়ে যায়।'

পুলিশের কাছে বিষয়টি নিয়ে অভিযোগ জানাতে গিয়েও তাকে হেনস্তা হতে হয়েছে। তিনি ফেসবুকে লিখেছেন, 'আমি চারু মার্কেট থানায় যাই। ওখান থেকেও আমাকে বলা হয় ভবানীপুর থানাই একমাত্র ব্যবস্থা নিতে পারবে। অনেক বাদানুবাদের পর চারু মার্কেট থানা একটি এফআইআর নেয়। কিন্তু উবার চালক আলাদা অভিযোগ দায়ের করতে চাইলে পুলিশ জানায়, একই অভিযোগে দুটো এফআইআর নেয়া আইন বিরুদ্ধ।'

ঊষসীর এফআইআরের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু করার পর খতিয়ে দেখা হয় ওই এলাকার সিসি ক্যামেরার ফুটেজ। তারপরেই ওই ৭ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ধৃতদের দাবি, ওই উবারটি তাদের এক বন্ধুর বাইকে এসে ধাক্কা মারে। তাতে বাইকটি বেশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। বাইক সারানোর ক্ষতিপূরণ চাওয়াকে কেন্দ্র করেই ঝামেলার সূত্রপাত। মারধর এবং হেনস্তার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন তারা। পুলিশ জানিয়েছে, ধৃতদের সকলের বাড়ি আনোয়ার শাহ রোড, যাদবপুর এলাকায়।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
SELECT id,hl2,parent_cat_id,entry_time,tmp_photo FROM news WHERE ((spc_tags REGEXP '.*"location";s:[0-9]+:"ভারত".*')) AND id<>69690 ORDER BY id DESC LIMIT 0,5

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড