• শুক্রবার, ২১ জুন ২০১৯, ৭ আষাঢ় ১৪২৬  |   ২৯ °সে
  • বেটা ভার্সন

ইসরায়েলে অ্যাভোকাডো ফল দেখিয়ে ব্যাংক ডাকাতি

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১২ জুন ২০১৯, ২২:১৬
ইসরায়েল
এই অ্যাভোকাডো ফলের গায়ে কালো রং করে ডাকাতি করা হয়; (ছবি : সংগৃহীত)

নকল বন্দুক দেখিয়ে চুরি, ছিনতাইয়ের ঘটনা নতুন নয়। কিন্তু একটি ফলকে বোমা বলে চালিয়ে দুটি ব্যাঙ্ক ডাকাতি! এমন ঘটনা মনে হয় আগে শোনা যায়নি। এমনই অবিশ্বাস্য কাণ্ড ঘটাল এক ইজরায়েলি ব্যক্তি। দক্ষিণ ইজরায়েলের বাসিন্দা ৪৭ বছর বয়সী এক ব্যক্তিকে সম্প্রতি গ্রেফতার করেছে সে দেশের পুলিশ। তারপরই চাঞ্চল্যকর এই ঘটনা সামনে এসেছে। 

মে মাসের মাঝামাঝি ইজারয়েলে বিরশেবা এলাকায় দুটি ব্যাঙ্ক ডাকাতি হয়। প্রথমে ঘটনায়, বিরশেবা শপিং মলে একটি পোস্টাল ব্যাঙ্কের ক্যাশ কাউন্টারে হাজির হয় ওই ব্যক্তি। কাউন্টারের দায়িত্বে থাকা মহিলাকে একটি চিরকুট দেয় সে। সেই চিরকুটে ভুল বানানে লেখা ছিল, ড্রয়ারে যা টাকা আছে তা আমার হাতে তুলে দিন, না হলে গ্রেনেড ছুঁড়ে দেব। ভয়ে ওই মহিলা ক্যাশ ড্রয়ারে যা ছিল বের করে অভিযুক্তের হাতে তুলে দেন। সেই অর্থ নিয়ে চম্পট দেয় ডাকাত।

এই ঘটনার পাঁচ দিন পর, ওরেন সেন্টার বাজার এলাকায় ফের একটি পোস্টাল ব্যাঙ্কে হানা দেয়। সেখানেও একই কায়দায় ব্যাঙ্ক লুঠে পালায় অভিযুক্ত। দুটি ব্যাঙ্ক মিলিয়ে লুঠ হওয়া অর্থের পরিমাণ ৮ হাজার ৩০০ মার্কিন ডলার। যা ভারতীয় মুদ্রায় ৫ লক্ষ ৭৫ হাজার টাকার মতো।

মুখ ঢেকে, সানগ্লাস পরে ডাকাতি চালায় ওই অভিযুক্ত। ফলে প্রথমে তাকে খুঁজে বের করা কঠিন হয়েছিল। কিন্তু মোবাইল টাওয়ার লোকেশনও অন্যান্য প্রযুক্তির সাহায্য নিয়ে পুলিশ ধরে ফেলে ডাকাতকে। তারপরেই চমকে যান তদন্তকারীরা। জানা গিয়েছে ডাকাতের হাতে গ্রেনেড নয়, ছিল অ্যাভোকাডো ফল। যার গড়ন অনেকটা হ্যান্ড গ্রেনেডের মতো। সেই ফলে কালো রং করে হ্যান্ড গ্রেনেডের মতো বানিয়ে ফেলেছিল ওই ডাকাত। এক নজরে দেখে কেউ বুঝতেই পারেনি ওটি ফল না গ্রেনেড।

গ্রেফতারের পর তার বিরুদ্ধে ব্যাঙ্ক ডাকাতি সহ একাধিক অভিযোগ দায়ের করে মামলা শুরু হয়েছে।

ওডি/কেএম

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড