• মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯, ৫ ভাদ্র ১৪২৬  |   ৩১ °সে
  • বেটা ভার্সন

ব্যর্থতার দায় নিয়ে কংগ্রেসে পদত্যাগের ধুম

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

২৪ মে ২০১৯, ১৮:০৬
ভারতের লোকসভা নির্বাচন
ছবি : সংগৃহীত

জাতীয় নির্বাচনে কংগ্রেস টানা ২ বার পরাজিত, ভোটের ফলাফলের একদিন পরই দলটিতে পদত্যাগের হিড়িক পড়েছে। কংগ্রেসের উত্তরপ্রদেশের রাজ বাব্বারসহ তিন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী সংসদীয় নির্বাচনে শোচনীয় অবদানের কারণে শুক্রবার (২৪ মে) দলটির সভাপতি রাহুল গান্ধীর কাছে পদত্যাগ করেন।

আগামীকাল কংগ্রেসের শীর্ষ নীতি নির্ধারণী কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটির (সিডব্লিউসি) বৈঠককালে রাহুল গান্ধীও পদত্যাগ করতে পারেন বলে শোনা যাচ্ছে। ভোটারদের কাছে জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় নির্বাচনি প্রচারণা চালাতে না পেরে উত্তরপ্রদেশে ঐতিহ্যবাহী গান্ধী পরিবারের ঘাঁটি আমেথিতেও পরাজিত হন রাহুল। 

কংগ্রেস দেশজুড়ে ৫২টি আসন পেয়েছে, আর বিজেপি ৩ শতাধিক আসনে জয়ী। ২০১৪ সালের চেয়েও এবার বিজেপি ভালো ফল করেছে। দলটির কর্ণাটক রাজ্যের প্রচারণা পরিচালনাকারী এইচ কে পাটিল ও ওড়িশা প্রধান নির্জন পটনায়েকও পদত্যাগ করেছেন। কর্ণাটক ও ওড়িশা থেকে কংগ্রেস শূন্য হাতে ফিরেছে এবার।

উত্তরপ্রদেশে ৮০টি আসনে কংগ্রেস মাত্র একটি আসনে নেমে এসেছে। এই রাজ্যে দলটির সাধারণ সম্পাদক ও রাহুলের বোন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী ভাদ্রা নির্বাচনি প্রচারণা চালানোর দায়িত্বে ছিলেন। প্রিয়াঙ্কার সঙ্গে জ্যোতিরাদ্দীথ সিন্ধিয়াও নিয়ে প্রচারণা চালিয়েছিলেন। যে একটি আসন কংগ্রেস এখান থেকে পেয়েছে তা সোনিয়া গান্ধীর রাইবরেলি আসন।

বৃহস্পতিবার এক টুইটে, উত্তর প্রদেশে কংগ্রেস এর হতাশার জন্য সাবেক অভিনেতা রাজ বাব্বার দায় স্বীকার করেছেন। তিনি টুইটে বলেন, 'উত্তরপ্রদেশের ফলাফল কংগ্রেসের জন্য হতাশাজনক। আমি সঠিকভাবে আমার দায়িত্ব পালন না করতে পারার অপরাধে নিজেকে দোষী মনে করছি।' 

'আমি দলের নেতৃত্বের সঙ্গে দেখা করব এবং আমার মতামত যাচাই করব। জনগণের আস্থা অর্জনের জন্য বিজয়ীদের অভিনন্দন' জানান রাজ। ফাতেহপুর সিক্রি সংসদীয় আসন থেকেও মি. বাব্বর পরাজিত হয়েছেন।

 

ওডি/এসএমএস

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড