• শনিবার, ২৪ আগস্ট ২০১৯, ৯ ভাদ্র ১৪২৬  |   ২৭ °সে
  • বেটা ভার্সন

খাসোগির দেহ পুড়িয়ে ফেলা হয় : আল-জাজিরা

দূতাবাসের দেয়ালে সন্ধান মেলে খাসোগির রক্তের

জামাল খাসোগি
সৌদি দূতাবাসের কড়া নির্দেশনায় অনেক গভীর এবং ১০০০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের বেশি তাপমাত্রা উৎপন্ন করতে সক্ষম চুলা নির্মাণ করা হয়েছিল। ছবি : সংগৃহীত

তুরস্কের ইস্তানবুলে সৌদি বংশোদ্ভূত মার্কিন প্রভাবশালী 'ওয়াশিংটন পোস্ট'র সাংবাদিক জামাল খাসোগিকে হত্যার পরে টুকরো টুকরো অংশগুলোকে একটি চুলায় পুড়িয়ে ফেলা হয়েছে, এমনটাই বের হয়ে এসেছে 'আল-জাজিরা'র অনুসন্ধানে। 

২০১৮ সালের দোসরা অক্টোবর যুক্তরাষ্ট্রে স্ব-নির্বাসনে যাওয়া সাংবাদিক খাসোগি ইস্তানবুলের সৌদি কনস্যুলেটে গিয়েছিলেন কাগজপত্র নিতে, সেখানেই তাকে হত্যা করা হয় নির্মমভাবে। হত্যা করে তার দেহটি অনেক টুকরো করা হয়, যা পরবর্তীতে কনস্যুলেটের কয়েকশ মিটার দূরেই অবস্থিত জেনারেলের বাসভবনে ব্যাগে করে নিয়ে একটি বড় চুলার মধ্যে পুড়িয়ে ফেলা হয়েছিল।

রবিবার (৩ মার্চ) রাতে 'আল-জাজিরা' অ্যারাবিক কর্তৃক প্রচারিত ডকুমেন্টারিতে সৌদি অ্যাসাসিনেশন দলটির খাসোগি হত্যাকাণ্ডের নতুন এই তথ্য তুলে ধরে। খাসোগির খণ্ডিত অংশ কনসালের বাসভবনে জ্বালানো পর্যবেক্ষণ করেছে তুর্কি কর্তৃপক্ষ। 

কাতার ভিত্তিক 'আল-জাজিরা' এমন একজনের সাক্ষাৎকার গ্রহণ করে যিনি অগ্নিকুণ্ডটি নির্মাণ করেছিলান যেখানে খাসোগিকে পুড়ে ফেলা হয়। তিনি জানান, বিশেষ এই চুলাটি সৌদি দূতাবাসের কড়া নির্দেশনায় তৈরি। অনেক গভীর এবং ১০০০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের বেশি তাপমাত্রা উৎপন্ন করতে সক্ষম এমন এক চুলা বানানোর নির্দেশনা আসে। এতটা উত্তপ্ত হতে হবে যা লৌহ দ্রব্যকে গলিয়ে ফেলতে সক্ষম।  

তুরস্কের সৌদি দূতাবাসের ভেতরেই অবস্থিত দূতের বাসভবনে খাসোগির মরদেহের সঙ্গে মাংসের ব্যাগও নিয়ে যাওয়া হয়। তুর্কি কর্তৃপক্ষ জানায় যে, সৌদি সাংবাদিকের মৃতদেহকে ঢাকতে চুলাতে মাংসও রান্না করে হয়েছিল। 'ওয়াশিংটন পোস্ট' এর এই কলামিস্ট সৌদি যুবরাজ সালমানের স্পষ্ট সমালোচক ছিলেন, ক্রাউন প্রিন্স সালমানের শাসনের সমালোচক খাসোগিকে হত্যায় কাজ করে একদল নির্মম ডেথ স্কোয়াড।

তুর্কি কর্তৃপক্ষ দূতাবাসের দেয়ালে খাসোগির রক্তের সন্ধান পায়। খাসোগিকে হত্যার পর দেয়ালে পেইন্ট করেছিল ডেথ স্কোয়াড, তা তুলতেই সেখানে খাসোগির লেগে থাকা রক্ত দেখতে পায় তদন্তকারীরা। 'আল-জাজিরা'র এই প্রামাণ্যচিত্রটি নিরাপত্তা কর্মকর্তা, রাজনীতিবিদ এবং খাসোগির কয়েকজন তুর্কি বন্ধুর সাক্ষাৎকার গ্রহণের ওপর ভিত্তি করে করা।

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড