• রবিবার, ১৮ আগস্ট ২০১৯, ৩ ভাদ্র ১৪২৬  |   ২৮ °সে
  • বেটা ভার্সন

সর্বশেষ :

জিয়ার পরিচয় তিনি বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারী : রেলমন্ত্রী||কলকাতায় চিকিৎসা করাতে যাওয়া ২ বাংলাদেশিকে পিষে মারল জাগুয়ার||ছাত্রদলের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক পদের ফরম বিক্রি শুরু ||ইহুদিবাদী ইসরায়েলের প্রস্তাব নাকচ করে দিল মার্কিন সাংসদ||ভারতকে অবিলম্বে কাশ্মীরের কারফিউ তুলতে বলেছে ওআইসি||‘তদন্ত করতে হবে কেন এসব অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটছে’||ইউক্রেনের হোটেলে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ৮ জনের প্রাণহানি||‘অগ্নিকাণ্ডে কেউ চাপা পড়েছে কিনা তল্লাশি চলছে’ ||মুক্তিপ্রাপ্ত ইরানের সুপার ট্যাঙ্কারটি আটকে এবার যুক্তরাষ্ট্রের ওয়ারেন্ট জারি||অবৈধ অভিবাসন ইস্যুতে ঢাকায় আসছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী  
eid

হার্ট অ্যাটাকের পরও বাসের অর্ধশতাধিক যাত্রীর প্রাণরক্ষা!

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৭:০৫
বাস
(ছবি : প্রতীকী)

বাস চালানোর সময় হার্ট অ্যাটাকের পরও বাস ভর্তি যাত্রীদের প্রাণরক্ষা করলেন এক চালক। সম্প্রতি ভারতের চেন্নাই রাজ্যে ঘটে যাওয়া এমন বিরল ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করে মঙ্গলবার (১২ ফেব্রুয়ারি) এক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে দেশটির সংবাদমাধ্যম দ্য টাইমস অফ ইন্ডিয়া।

প্রতিবেদনে বলা হয়, সকাল সকাল অসহ্য যন্ত্রণাতে ছিঁড়ে যাচ্ছে তখন বুকের বাম পাশটা, আটকে যাচ্ছে দম। তবু মাথা সজাগ ছিল ৫১ বছর বয়সী বাস চালক সর্বেশ্বরণের। বাসটিতে তখন ৫০ জনের বেশি যাত্রী ছিল। আর সেই বাসের স্টিয়ারিংটা যে তিনিই ধরে আছেন, তা তখনো ভোলেননি চেন্নাইয়ের এই বাস চালক। 

তাই হার্ট অ্যাটাকে অচেতন হয়ে পড়ার আগেই চেন্নাইয়ের কোয়ামবেড়ু থেকে কাঞ্চিপুরম রুটের এক পাশে নিরাপদে বাসটিকে দাঁড় করান এমটিসি-র বাসের চালক।

এমন অবস্থাতে সড়কের পাশের নির্দিষ্ট স্থানে বাসটি থামানোর পর তাৎক্ষণিক কন্ডাক্টরকে ডেকে বলেন যে সব যাত্রীকে বাস থেকে এখানেই নামিয়ে দিতে। এ সময় সবাই বাস থেকে নেমে গেলে কন্ডাক্টরের সাহায্যে হাসপাতালে যান সেই চালক। তবে আর শেষ রক্ষা হয়নি তার। হাসপাতালে পৌঁছানোর পরপরই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন তিনি।

উল্লেখ্য, নিজের শরীরের এমন খারাপ অবস্থার মধ্যেও বাসটিকে নিরাপদে থামিয়ে যাত্রীদের জীবন বাঁচানোয় চালকের পরিবারের প্রতি কৃতজ্ঞতা এবং সমবেদনা প্রকাশ করেছে স্থানীয় প্রশাসন। এমনকি আর্থিকভাবেও তাদের সাহায্য সহায়তা করা হচ্ছে। 

তাছাড়া কাজের অতিরিক্ত চাপের কারণেই কি সর্বেশ্বরণের এভাবে মৃত্যু হলো কিনা, সেই বিষয়টিও খতিয়ে দেখছে প্রশাসন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মোঃ তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড