• শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৫ আশ্বিন ১৪২৬  |   ৩৩ °সে
  • বেটা ভার্সন

রাখাইনে জাহাজ ডুবিতে ১৮ জনের প্রাণহানি

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৩:৪৩
জাহাজ ডুবি
রাখাইনে জাহাজ ডুবি। (ছবি : প্রতীকী)

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের মানাউং শহরে স্থানীয় বন্দর কর্তৃপক্ষের একটি জাহাজ ডুবির ঘটনায় শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত প্রাণ হারিয়েছেন অন্তত ১৮ জন। এতে এখনও নিখোঁজ রয়েছেন জাহাজে থাকা আরও বেশ কিছু আরোহী। 

দেশটির দমকল বিভাগের কর্মকর্তাদের দেওয়া তথ্যের বরাতে করা প্রতিবেদনে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে স্থানীয় দৈনিক সংবাদমাধ্যম দ্য ইরাবতী।

প্রতিবেদনে বলা হয়, সোমবার (১১ ফেব্রুয়ারি) স্থানীয় সময় বিকালে ‘বুল এলিফ্যান্ট’ নামের সেই জাহাজটি অন্তত ২৫ আরোহী নিয়ে আচমকা পানির নিচে তলিয়ে যায়। মূলত এতেই এ হতাহতের ঘটনা ঘটে। এ সময় জাহাজ ডুবিতে হতাহতদের উদ্ধারে দমকল বাহিনীর ১০ সদস্যের সমন্বয়ে একটি উদ্ধারকারী দল গঠন করা হয়। মূলত তারাই এখন এই উদ্ধার অভিযানটি পরিচালনা করছেন।

এদিকে দমকল বাহিনীর প্রধান উ থ দার সংবাদমাধ্যম ইরাবতীকে বলেন, ‘বুল এলিফ্যান্ট নামের একটি জাহাজ ২৫ জন যাত্রী নিয়ে মানাউং শহরের লেট পেট তোয়া দ্বীপে একটি লাইট হাউস মেরামতের জন্য যাচ্ছিলেন। যাত্রাপথে জাহাজটি আচমকা দুর্ঘটনার কবলে পড়ে। তবে ঠিক কি কারণে এমন ভয়াবহ দুর্ঘটনাটি ঘটল তা আমরা এখনো নিশ্চিত নই।’

অপরদিকে রাখাইনের প্রাদেশিক পরিষদের আইন প্রণেতা উ বো নওয়ে বলেছেন, ‘আমরা শহরের বাসিন্দাদের কাছ থেকে এটা জানতে পেরেছি যে পানিতে ডুবে থাকা বরফ খণ্ডের সঙ্গে ধাক্কা লেগে জাহাজটি ডুবে যায়। উপকূল থেকে চার মাইল দূরে জাহাজ ডুবির ঘটনাটি ঘটেছে।’

শহরের এ প্রশাসক আরও বলেন, ‘আমি শুধু এটা জানতে পেরেছি ডুবে যাওয়া ওই জাহাজটিতে ২৫ জন যাত্রী ছিল।’

উল্লেখ্য, রাখাইনের এই জাহাজ ডুবির ঘটনায় এখন পর্যন্ত সাতজনকে জীবিত অবস্থাতে উদ্ধার করা হয়। ইতোমধ্যে তাদের চিকিৎসার জন্য হাসপাতালেও পাঠানো হয়েছে। যদিও এই জাহাজ ডুবির প্রকৃত কারণ এখনো জানা যায়নি। 

বন্দর কর্তৃপক্ষের বিশেষ একটি দল এই উদ্ধার অভিযানটি এককভাবে পরিচালনা করছে। এ ঘটনায় সকল নিহতেরা বন্দরের কর্মী কি-না সে বিষয়েও এখনই নিশ্চিতভাবে কিছু বলতে পারছে না কর্তৃপক্ষ।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: মো: তাজবীর হুসাইন

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড