• রবিবার, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ৫ ফাল্গুন ১৪২৫  |   ২৩ °সে
  • বেটা ভার্সন

সর্বশেষ : মানিকগঞ্জের সিঙ্গাইরে বিপুল পরিমাণ বোমা ও বোমা তৈরির সরঞ্জামসহ ১ জনকে আটক করেছে র‍্যাব

সৌদিতে মায়ের সামনে শিশু সন্তানের শিরশ্ছেদ!

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১০:৫৩

মায়ের সামনে হত্যাকাণ্ডের শিকার শিশু
মদিনায় মায়ের সামনে হত্যাকাণ্ডের শিকার ছয় বছরের শিশু আল-জাবের। (ছবি : সম্পাদিত)

সৌদি আরবের দ্বিতীয় পবিত্র নগরী মদিনায় মায়ের সামনে তার ছয় বছরের শিশু সন্তানকে শিরশ্ছেদ করেছে এক ট্যাক্সি চালক। মূলত শিশুটি শিয়া মতাবলম্বী পরিবারের সদস্য হওয়ায় তাকে এমন নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। মদিনা পুলিশের দেওয়া তথ্যের বরাতে করা প্রতিবেদনে এই শিশু হত্যার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে ব্রিটেন ভিত্তিক সংবাদমাধ্যম দ্য ডেইলি মেইল।

প্রতিবেদনে বলা হয়, বৃহস্পতিবার (৭ ফেব্রুয়ারি) স্থানীয় সময় রাতে সেই ব্যক্তির ট্যাক্সিতে চড়ে শিশুটি এবং তার মা মহানবীর রওজার উদ্দেশ্যে যাচ্ছিলেন। এ সময় গাড়িতে তাদের দুরুদ শুনে শিয়া মতাবলম্বী হওয়ার বিষয়টি টের পেয়ে মাঝ পথে মায়ের কাছ থেকে শিশুটিকে জোরপূর্বক নিয়ে তাকে হত্যা করে সেই ট্যাক্সি চালক। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করা যায়নি।

মদিনা পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়, হত্যার শিকার শিশুটির নাম জাকারিয়া আল-জাবের। ঘটনার দিন শিশুটি তার মায়ের সঙ্গে মহানবী হযরত মোহাম্মদ (সা.) এর রওজা মুবারক জিয়ারতের জন্য যাচ্ছিল। পথে তার মা দুরুদ শরীফ পাঠ করতে শুরু করলে ট্যাক্সি চালক জানতে চান তিনি কি শিয়া মতাবলম্বী মুসলমান কিনা? 

উত্তরে নারীটি হ্যাঁ বলার সঙ্গে সঙ্গে ট্যাক্সিটি থামিয়ে চালক শিশুকে গাড়ি থেকে জোরপূর্বক বের করে এনে ভাঙা কাচ দিয়ে তার ঘাড় থেকে মাথাটি পুরোপুরি আলাদা করে ফেলেন। আর তা দেখে সেখানেই জ্ঞান হারান শিশু জাবেরের মা।

এদিকে নির্মম এই হত্যাকাণ্ডের পর শোকে স্তব্ধ হয়ে পড়েন দেশটির শিয়া সম্প্রদায়ের লোকজন। সম্প্রদায়টির এক নেতা বলেন, ‘আমাদের বিরুদ্ধে সৌদিতে চলা নিপীড়নের অন্যতম অংশ এটি। এখানে সৌদি প্রশাসন শিয়াদের কোনো ধরনের সুরক্ষা প্রদান করছে না।’

অপরদিকে ওয়াশিংটন ভিত্তিক শিয়া মানবাধিকার সংস্থা (আসাপ) এক বিবৃতি প্রদানের মাধ্যমে ঘটনার তীব্র নিন্দা এবং খুব শিগগিরি বিচার দাবি করেছে। 

তাদের বিবৃতিতে বলা হয়, ‘সৌদি আরবের শিয়া সম্প্রদায় এখনও নানা হামলার শিকার হচ্ছে। পরিস্থিতির উন্নতিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় কোনো ধরনের উদ্যোগই গ্রহণ করছে না। এমন নৃশংসভাবে জাবেরের মাধ্যমে হত্যাকাণ্ডের অবশ্যই সুরাহা হওয়া উচিত।’

উল্লেখ্য, ঘটনার পরপরই সৌদিতে বিভিন্ন সময় নির্যাতনের শিকার হওয়া শিয়া সম্প্রদায়ের সদস্যরা তাৎক্ষণিক শিশুটির পরিবারের কাছে আসেন। এ সময় তারা পরিবারটির প্রতি সহানুভূতি এবং ঘটনার জন্য তীব্র নিন্দা প্রকাশ করেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

১৪৭/ডি, গ্রীন রোড, ঢাকা-১২১৫।

ফোন: ০২-৯১১০৫৮৪

ই-মেইল: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-২০১৯

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Developed by : অধিকার মিডিয়া লিমিটেড